হুইলচেয়ারে এসে ভোট দিলেন প্রবীণ শিক্ষক
jugantor
হুইলচেয়ারে এসে ভোট দিলেন প্রবীণ শিক্ষক

  যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল  

০২ নভেম্বর ২০২১, ২২:৪৮:২১  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইল পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচনে হুইলচেয়ারে এসে ভোট দিয়েছেন প্রবীণ স্কুলশিক্ষক মো. আব্দুস সবুর (৮৫)। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় বেড়াডোমা শহীদ জাহাঙ্গীর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে অসুস্থ এই শিক্ষক ভোট দিতে আসেন।

ব্যাপক নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে টাঙ্গাইল পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে এই ওয়ার্ডের দুটি কেন্দ্র দুই ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন।

নিজ ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে ভোট দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ রাখতে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি ও পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা কেন্দ্রগুলোতে উৎসবমুখর পরিবেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ করা হয়।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, নির্বাচনে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এই ওয়ার্ডের ভোটার সংখা ৭ হাজার ২৭৬ জন। নির্বাচনে ৬৮ শতাংশ ভোট পড়েছে।

হুইলচেয়ারে এসে ভোট দিলেন প্রবীণ শিক্ষক

 যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল 
০২ নভেম্বর ২০২১, ১০:৪৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইল পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচনে হুইলচেয়ারে এসে ভোট দিয়েছেন প্রবীণ স্কুলশিক্ষক মো. আব্দুস সবুর (৮৫)। মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১১টায় বেড়াডোমা শহীদ জাহাঙ্গীর উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে অসুস্থ এই শিক্ষক ভোট দিতে আসেন।

ব্যাপক নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে টাঙ্গাইল পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদে উপনির্বাচনে শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে এই ওয়ার্ডের দুটি কেন্দ্র দুই ম্যাজিস্ট্রেটসহ পর্যাপ্ত আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা দায়িত্ব পালন করেন।

নিজ ওয়ার্ডের উপনির্বাচনে ভোট দিয়েছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য ছানোয়ার হোসেন। আইনশৃঙ্খলা নিয়ন্ত্রণ রাখতে ভোট কেন্দ্র পরিদর্শন করেন জেলা প্রশাসক ড. মো. আতাউল গনি ও পুলিশ সুপার সরকার মোহাম্মদ কায়সার।

নিরাপত্তার চাদরে ঢাকা কেন্দ্রগুলোতে উৎসবমুখর পরিবেশে স্বাস্থ্যবিধি মেনে সকাল ৮টা থেকে বিরতিহীনভাবে বিকাল ৪টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ করা হয়।

জেলা নির্বাচন অফিস সূত্র জানায়, নির্বাচনে ৪ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। এই ওয়ার্ডের ভোটার সংখা ৭ হাজার ২৭৬ জন।  নির্বাচনে ৬৮ শতাংশ ভোট পড়েছে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন