অপহরণের ৭ মাস পর কিশোরী উদ্ধার
jugantor
অপহরণের ৭ মাস পর কিশোরী উদ্ধার

  সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি  

০৫ নভেম্বর ২০২১, ২১:৩২:৫২  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনার সাঁথিয়ায় অপহরণের সাত মাস পর কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় অপহরণ মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়।

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন- বেড়া উপজেলার বনগ্রাম দক্ষিণপাড়া গ্রামের নুরনবীর ছেলে নুর আলম (২৬) ও একই গ্রামের আলহাজ ফয়েজের ছেলে শাহাদৎ হোসেন (৫৪)।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত এপ্রিল মাসে এক কিশোরীকে নিয়ে পালিয়ে যায় বেড়া উপজেলার বনগ্রাম দক্ষিণপাড়া গ্রামের নুরনবীর ছেলে নুর আলম (২৬)। ঘটনার পরপরই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন।

সাঁথিয়া থানার এসআই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিধান দাস বলেন, তদন্তের ভিত্তিতে ঘটনার সঙ্গে যোগসূত্র থাকায় প্রথমে নুর আলমের সহযোগী শাহাদৎ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

শাহাদতের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানার কাঁচপুর থেকে বৃহস্পতিবার রাতে আসামি নুর আলমকে গ্রেফতার করা হয় এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে সাঁথিয়ায় নিয়ে আসা হয়।

শুক্রবার আদালত আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণ করেন। ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

অপহরণের ৭ মাস পর কিশোরী উদ্ধার

 সাঁথিয়া (পাবনা) প্রতিনিধি 
০৫ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৩২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনার সাঁথিয়ায় অপহরণের সাত মাস পর কিশোরীকে উদ্ধার করেছে পুলিশ। এ সময় অপহরণ মামলার দুই আসামিকে গ্রেফতার করা হয়। 

গ্রেফতারকৃতরা হচ্ছেন- বেড়া উপজেলার বনগ্রাম দক্ষিণপাড়া গ্রামের নুরনবীর ছেলে নুর আলম (২৬) ও একই গ্রামের আলহাজ ফয়েজের ছেলে শাহাদৎ হোসেন (৫৪)।

থানা ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত এপ্রিল মাসে এক কিশোরীকে নিয়ে পালিয়ে যায় বেড়া উপজেলার বনগ্রাম দক্ষিণপাড়া গ্রামের নুরনবীর ছেলে নুর আলম (২৬)। ঘটনার পরপরই কিশোরীর বাবা বাদী হয়ে সাঁথিয়া থানায় একটি অপহরণ মামলা দায়ের করেন। 

সাঁথিয়া থানার এসআই মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা বিধান দাস বলেন, তদন্তের ভিত্তিতে ঘটনার সঙ্গে যোগসূত্র থাকায় প্রথমে নুর আলমের সহযোগী শাহাদৎ হোসেনকে গ্রেফতার করা হয়।

শাহাদতের দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে নারায়ণগঞ্জ জেলার সোনারগাঁ থানার কাঁচপুর থেকে বৃহস্পতিবার রাতে আসামি নুর আলমকে গ্রেফতার করা হয় এবং ভিকটিমকে উদ্ধার করে  সাঁথিয়ায় নিয়ে আসা হয়। 

শুক্রবার আদালত আসামিদের জেলহাজতে প্রেরণ করেন। ভিকটিমকে মেডিকেল পরীক্ষার জন্য হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন