যুবলীগ নেতা ইসমাইল হত্যা মামলার রায় ১৪ নভেম্বর
jugantor
যুবলীগ নেতা ইসমাইল হত্যা মামলার রায় ১৪ নভেম্বর

  রাজশাহী ব্যুরো  

০৭ নভেম্বর ২০২১, ২১:৫৩:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১৪ নভেম্বর রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন হত্যা মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য করা হয়েছে। রাজশাহীর দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রোববার দুপুরে রায় ঘোষণার এ দিন ধার্য করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সময় মামলার ৩৫ জন আসামিই আদালতে হাজির ছিলেন। আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করতে আসেন ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন। তার সঙ্গে স্থানীয় কয়েকজন আইনজীবীও ছিলেন। আর বাদীপক্ষে ছিলেন আইনজীবী এজাজুল হক মানু ও আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু।

ইসমাইল হোসেন গোদাগাড়ীর দেওপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন পালপুরে ভোটকেন্দ্র দখলে বাধা দেওয়ায় বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা তাকে পিটিয়ে আহত করেন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ নিয়ে থানায় হত্যা মামলা করেন নিহতের স্ত্রী বিজলা বেগম।

২০১৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জেলা জজ আদালতে মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর স্বল্প সময়ে বিচার শেষ করার জন্য মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তর করা হয়। ট্রাইব্যুনালের প্রথম দিনই ২৪ আগস্ট চার্জ গঠন হয়। এরপর আদালত উভয়পক্ষের মোট ২৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

যুবলীগ নেতা ইসমাইল হত্যা মামলার রায় ১৪ নভেম্বর

 রাজশাহী ব্যুরো 
০৭ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

আগামী ১৪ নভেম্বর রাজশাহীর গোদাগাড়ী উপজেলা যুবলীগ নেতা ইসমাইল হোসেন হত্যা মামলার রায় ঘোষণার দিন ধার্য করা হয়েছে। রাজশাহীর দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালের বিচারক অনুপ কুমার যুক্তিতর্ক উপস্থাপন শেষে রোববার দুপুরে রায় ঘোষণার এ দিন ধার্য করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, যুক্তিতর্ক উপস্থাপনের সময় মামলার ৩৫ জন আসামিই আদালতে হাজির ছিলেন। আসামিপক্ষে যুক্তিতর্ক উপস্থাপন করতে আসেন ব্যারিস্টার মাহফুজুর রহমান মিলন। তার সঙ্গে স্থানীয় কয়েকজন আইনজীবীও ছিলেন। আর বাদীপক্ষে ছিলেন আইনজীবী এজাজুল হক মানু ও আদালতের রাষ্ট্রপক্ষের আইনজীবী এন্তাজুল হক বাবু।

ইসমাইল হোসেন গোদাগাড়ীর দেওপাড়া ইউনিয়ন যুবলীগের সাবেক সভাপতি। ২০১৮ সালের ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনের দিন পালপুরে ভোটকেন্দ্র দখলে বাধা দেওয়ায় বিএনপি-জামায়াতের কর্মীরা তাকে পিটিয়ে আহত করেন। পরে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তিনি মারা যান। এ নিয়ে থানায় হত্যা মামলা করেন নিহতের স্ত্রী বিজলা বেগম।

২০১৯ সালের ১১ সেপ্টেম্বর জেলা পুলিশের গোয়েন্দা শাখার (ডিবি) পরিদর্শক রফিকুল ইসলাম জেলা জজ আদালতে মামলার অভিযোগপত্র দাখিল করেন। এরপর স্বল্প সময়ে বিচার শেষ করার জন্য মামলাটি দ্রুতবিচার ট্রাইব্যুনালে হস্তান্তর করা হয়। ট্রাইব্যুনালের প্রথম দিনই ২৪ আগস্ট চার্জ গঠন হয়। এরপর আদালত উভয়পক্ষের মোট ২৪ জনের সাক্ষ্য গ্রহণ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন