ডোবায় যুবকের তিন টুকরো লাশ, মাথা পাওয়া যায়নি
jugantor
ডোবায় যুবকের তিন টুকরো লাশ, মাথা পাওয়া যায়নি

  কুমিল্লা ব্যুরো  

০৮ নভেম্বর ২০২১, ১৭:৪৯:৪৫  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় ডোবা থেকে থেকে সামিউল ইসলাম নামে এক যুবকের অর্ধগলিত তিন টুকরো বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে লাশের মাথা পাওয়া যায়নি।

সোমবার দুপুরে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের মনশাসন এলাকা থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

সামিউল (২১) একই উপজেলার সৈয়দপুর শরৎনগর কাজি বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি পেশায় পিকআপ ভ্যানচালক ছিলেন। পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

কালিরবাজার ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য গোলাম মোস্তফা জানান, সোমবার দুপুরে মনশাসন এলাকায় স্থানীয়রা লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে নিহতের পরিচয় নিশ্চিত করেছে।

নিহত সামিউলের স্বজন লিপি আক্তার জানান, ১১ দিন আগে সামিউল বন্ধুর বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বের হয়েছিল। তারপর থেকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। যারাই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে তাদের ফাঁসি চাই।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহত যুবকের লাশ উদ্ধার করেছি। লাশের কয়েকটি অংশ উদ্ধার করলেও এখনও মাথার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

ডোবায় যুবকের তিন টুকরো লাশ, মাথা পাওয়া যায়নি

 কুমিল্লা ব্যুরো 
০৮ নভেম্বর ২০২১, ০৫:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লায় ডোবা থেকে থেকে সামিউল ইসলাম নামে এক যুবকের অর্ধগলিত তিন টুকরো বস্তাবন্দী লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে লাশের মাথা পাওয়া যায়নি।

সোমবার দুপুরে জেলার আদর্শ সদর উপজেলার কালিরবাজার ইউনিয়নের মনশাসন এলাকা থেকে ওই যুবকের লাশ উদ্ধার করা হয়।

সামিউল (২১) একই উপজেলার সৈয়দপুর শরৎনগর কাজি বাড়ির নুরুল ইসলামের ছেলে। তিনি পেশায় পিকআপ ভ্যানচালক ছিলেন। পরিকল্পিতভাবে তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে জানান স্থানীয়রা।

কালিরবাজার ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের সদস্য গোলাম মোস্তফা জানান, সোমবার দুপুরে মনশাসন এলাকায় স্থানীয়রা লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়া হয়। পরিবারের সদস্যরা ঘটনাস্থলে এসে নিহতের পরিচয় নিশ্চিত করেছে।

নিহত সামিউলের স্বজন লিপি আক্তার জানান, ১১ দিন আগে সামিউল বন্ধুর বাড়িতে যাওয়ার কথা বলে বের হয়েছিল। তারপর থেকে বিভিন্ন স্থানে খোঁজাখুঁজি করেও তাকে পাওয়া যায়নি। যারাই এ হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে জড়িত রয়েছে তাদের ফাঁসি চাই।

এ বিষয়ে কোতোয়ালি মডেল থানার ওসি আনওয়ারুল আজিম জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থল থেকে নিহত যুবকের লাশ উদ্ধার করেছি। লাশের কয়েকটি অংশ উদ্ধার করলেও এখনও মাথার সন্ধান পাওয়া যায়নি। এ হত্যাকাণ্ডের রহস্য উদঘাটনে আমাদের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন