নিজ বাসার বাথরুমে এনএসআই সদস্যের লাশ
jugantor
নিজ বাসার বাথরুমে এনএসআই সদস্যের লাশ

  সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  

০৮ নভেম্বর ২০২১, ২১:০১:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জে নিজ বাসার বাথরুম থেকে ইয়াকুব আলী (২৬) নামে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) এক সদস্যের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় তার গলায় গামছা পেঁচানো ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রোববার রাতে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের বাঁধনপাড়া এলাকার বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ইয়াকুব আলীর বাড়ি সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের কদমতলি গ্রামে। পরিবারের অন্যদের নিয়ে তিনি সুনামগঞ্জ পৌর শহরের বাঁধনপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।

২০২০ সালের জুলাই মাসে ইয়াকুব আলী জাতীয় গোয়েন্দা নিরাপত্তা সংস্থায় (এনএসআই) মাঠকর্মী (ফিল্ডস্টাফ) হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। তিনি ঢাকায় কর্মরত ছিলেন।

সম্প্রতি ইয়াকুব আলী ছুটিতে সুনামগঞ্জে আসেন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তিনি শহরের বাসাতেই ছিলেন। ঘটনার দিন তার স্ত্রী গ্রামের বাড়িতে (তার বাবার বাড়িতে) ছিলেন। চলতি বছরের গত ২২ আগস্ট তিনি বিয়ে করেছিলেন।

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রোববার রাতে ইয়াকুব আলী বাথরুমে ঢুকে অনেক সময় পরও বের না হওয়ায় পরিবারের লোকজন তাকে ডাকাডাকি শুরু করেন। কিন্তু কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে দেখেন গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় তার লাশ ঝুলছে। তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি পুলিশকে জানান পরিবারের সদস্যরা। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠায়।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. সহিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে যুগান্তরকে বলেন, এনএসআই সদস্য ইয়াকুব আলীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।

নিজ বাসার বাথরুমে এনএসআই সদস্যের লাশ

 সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি 
০৮ নভেম্বর ২০২১, ০৯:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জে নিজ বাসার বাথরুম থেকে ইয়াকুব আলী (২৬) নামে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) এক সদস্যের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। এ সময় তার গলায় গামছা পেঁচানো ছিল বলে জানিয়েছে পুলিশ।

রোববার রাতে সুনামগঞ্জ পৌর শহরের বাঁধনপাড়া এলাকার বাসা থেকে তার লাশ উদ্ধার করে পুলিশ।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, ইয়াকুব আলীর বাড়ি সুনামগঞ্জের তাহিরপুর উপজেলার উত্তর শ্রীপুর ইউনিয়নের কদমতলি গ্রামে। পরিবারের অন্যদের নিয়ে তিনি সুনামগঞ্জ পৌর শহরের বাঁধনপাড়া এলাকার একটি ভাড়া বাসায় থাকতেন।

২০২০ সালের জুলাই মাসে ইয়াকুব আলী জাতীয় গোয়েন্দা নিরাপত্তা সংস্থায় (এনএসআই) মাঠকর্মী (ফিল্ডস্টাফ) হিসেবে চাকরিতে যোগ দেন। তিনি ঢাকায় কর্মরত ছিলেন।

সম্প্রতি ইয়াকুব আলী ছুটিতে সুনামগঞ্জে আসেন। পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তিনি শহরের বাসাতেই ছিলেন। ঘটনার দিন তার স্ত্রী গ্রামের বাড়িতে (তার বাবার বাড়িতে) ছিলেন। চলতি বছরের গত ২২ আগস্ট তিনি বিয়ে করেছিলেন।

পরিবারের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, রোববার রাতে ইয়াকুব আলী বাথরুমে ঢুকে অনেক সময় পরও বের না হওয়ায় পরিবারের লোকজন তাকে ডাকাডাকি শুরু করেন। কিন্তু কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে দরজা ভেঙে দেখেন গলায় গামছা পেঁচানো অবস্থায় তার লাশ ঝুলছে। তাৎক্ষণিকভাবে বিষয়টি পুলিশকে জানান পরিবারের সদস্যরা। খবর পেয়ে পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতালে মর্গে পাঠায়।

সুনামগঞ্জ সদর মডেল থানার ওসি মো. সহিদুর রহমান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে যুগান্তরকে বলেন, এনএসআই সদস্য ইয়াকুব আলীর লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সুনামগঞ্জ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। পুলিশ ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন