চিঠির সূত্র ধরে চাঁদা দিয়ে ফেরত আনলেন সন্তানকে
jugantor
চিঠির সূত্র ধরে চাঁদা দিয়ে ফেরত আনলেন সন্তানকে

  অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি  

০৯ নভেম্বর ২০২১, ২১:২৭:৩৯  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার শ্রীধরপুর ইউনিয়নের বর্ণী গ্রামের ইসলাম মোল্যার ৫ বছরের শিশুপুত্র ইব্রাহিম মোল্যাকে অপহরণ করে একটি চিঠি ফেলে রেখে যায় অপহরণকারীরা। সোমবার দুপুরে অপহরণের এ ঘটনাটি ঘটে।

অপহরণকারীদের রেখে যাওয়া চিঠিটি যুগান্তরের অভয়নগর প্রতিনিধির কাছে পৌঁছায়। সেই চিঠিতে যা লেখা রয়েছে তা হুবহু তুলে ধরা হলো—

‘ভাই ইসলাম খুব দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আপনার ছেলেকে আমরা তুলে নিয়ে গেলাম। কেউ আমাদের সুপারি দিয়েছে যে আপনার ছেলেকে মেরে দেওয়ার জন্য। আমরা ছেলেটাকে মারতে চাই না। বেশি কথা বাড়াবাড়ি করবেন না, ছেলেকে ফিরিয়ে পেতে হলে তিন লাখ টাকা নিয়ে চলে আসবেন মাওয়া ঘাটটিতে সন্ধ্যা ৬টায়। আমরা ওখানে অপেক্ষা করব; যদি মনে করেন থানা বা পুলিশ বা মস্তান সঙ্গে আনবেন- তাহলে জীবনে চরম ভুল করবেন। ছেলে পাইবেন না, যদিও পান ছেলের টুকরা টুকরা প্যাকেট; যা দেখলে আপনার পৃথিবী শেষ। আর একটা কথা- ওইখানে লোক যাবে মাত্র এক থেকে দুইজন, ছেলেটা ওর মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিতে চাই। আর আমাদেরকে কে পাঠিয়েছে ওনার কাছে বলে দিব। যদি বেশি ঝামেলা না করে চুপচাপ টাকাটা নিয়ে চলে আসেন ছেলেকে চুপচাপ পেয়ে যাবেন। আর আপনারা যা কিছু করবেন সব খবর আমরা পাইব। মনে রাখবেন লোক আসবেন ছেলে আনতে একজন।’

মঙ্গলবার বিকালে অপহৃত শিশু ইব্রাহিম মোল্যার পিতা ইসমাইল মোল্যা জানান, বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আলী দেখছেন। এ ব্যাপারে আমি এখন মুখ খুলতে পারছি না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, তার স্ত্রী বিউটি বেগম ও শ্যালক সুফিয়ান তার ছেলেকে উদ্ধার করেছে। এর চেয়ে বেশি কিছু আর বলতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।

চিঠির সূত্র ধরে চাঁদা দিয়ে ফেরত আনলেন সন্তানকে

 অভয়নগর (যশোর) প্রতিনিধি 
০৯ নভেম্বর ২০২১, ০৯:২৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোর জেলার অভয়নগর উপজেলার শ্রীধরপুর ইউনিয়নের বর্ণী গ্রামের  ইসলাম মোল্যার ৫ বছরের শিশুপুত্র ইব্রাহিম মোল্যাকে অপহরণ করে একটি চিঠি ফেলে রেখে যায় অপহরণকারীরা। সোমবার দুপুরে অপহরণের এ ঘটনাটি ঘটে।

অপহরণকারীদের রেখে যাওয়া চিঠিটি যুগান্তরের অভয়নগর প্রতিনিধির কাছে পৌঁছায়। সেই চিঠিতে যা লেখা রয়েছে তা হুবহু তুলে ধরা হলো—

‘ভাই ইসলাম খুব দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি যে, আপনার ছেলেকে আমরা তুলে নিয়ে গেলাম। কেউ আমাদের সুপারি দিয়েছে যে আপনার ছেলেকে মেরে দেওয়ার জন্য। আমরা ছেলেটাকে মারতে চাই না। বেশি কথা বাড়াবাড়ি করবেন না, ছেলেকে ফিরিয়ে পেতে হলে তিন লাখ টাকা নিয়ে চলে আসবেন মাওয়া ঘাটটিতে সন্ধ্যা ৬টায়। আমরা ওখানে অপেক্ষা করব; যদি মনে করেন থানা বা পুলিশ বা মস্তান সঙ্গে আনবেন- তাহলে জীবনে চরম ভুল করবেন। ছেলে পাইবেন না, যদিও পান ছেলের টুকরা টুকরা প্যাকেট; যা দেখলে আপনার পৃথিবী শেষ। আর একটা কথা- ওইখানে লোক যাবে মাত্র এক থেকে দুইজন, ছেলেটা ওর মায়ের কাছে ফিরিয়ে দিতে চাই। আর আমাদেরকে কে পাঠিয়েছে ওনার কাছে বলে দিব। যদি বেশি ঝামেলা না করে চুপচাপ টাকাটা নিয়ে চলে আসেন ছেলেকে চুপচাপ পেয়ে যাবেন। আর আপনারা যা কিছু করবেন সব খবর আমরা পাইব। মনে রাখবেন লোক আসবেন ছেলে আনতে একজন।’

মঙ্গলবার বিকালে অপহৃত শিশু ইব্রাহিম মোল্যার পিতা ইসমাইল মোল্যা জানান, বিষয়টি স্থানীয় চেয়ারম্যান মোহাম্মাদ আলী দেখছেন। এ ব্যাপারে আমি এখন মুখ খুলতে পারছি না।

এক প্রশ্নের জবাবে তিনি জানান, তার স্ত্রী বিউটি বেগম ও শ্যালক সুফিয়ান তার ছেলেকে উদ্ধার করেছে। এর চেয়ে বেশি কিছু আর বলতে তিনি অপারগতা প্রকাশ করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন