দুদকের মামলায় পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী কারাগারে
jugantor
দুদকের মামলায় পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী কারাগারে

  কুষ্টিয়া প্রতিনিধি  

১১ নভেম্বর ২০২১, ২২:১২:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলামকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার বিকালে দুদকের মামলায় কুষ্টিয়ার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করেন নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম। আদালতের বিচারক মো. আশরাফুল ইসলাম জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

বিষয়টি নিশ্চিত করে রবিউল ইসলামের আইনজীবী হাসানুল আসকর হাসু বলেন, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের মামলায় হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করেছিলেন রবিউল ইসলাম। তবে হাইকোর্ট জামিন না দিয়ে ৬ সপ্তাহের মধ্যে নিন্ম আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন। হাইকোর্টের দেওয়া সময়ের মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকালে কুষ্টিয়ার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করেন নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম। তবে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

দুদক কুষ্টিয়ার কৌঁসুলি আল মুজাহিদ হোসেন মিঠু বলেন, কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও তার স্ত্রী বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে পৃথক দুটি মামলা করে জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২৭ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া জেলা দায়রা জজ বিশেষ আদালতের বিচারক শেখ আবু তাহেরের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন কুষ্টিয়ার উপসহকারী পরিচালক নীল কমল পাল।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৪ সালের ১ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ২ ডিসেম্বর সময়কালে কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম ও তার স্ত্রী কামরুন্নাহার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৫২ লাখ ১৬ হাজার ৫৭৩ টাকার সম্পদ অর্জন করেন। অপর মামলায় ২০০৪ সালের ১০ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সময়কালের মধ্যে কুষ্টিয়া পৌরসভায় কর্মরত সার্ভেয়ার আব্দুল মান্ননের স্ত্রী রূপালী খাতুন জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৭২ লাখ ৩২ হাজার ৬৪৮ টাকার সম্পদ অর্জন করেন এবং অন্যান্য সম্পদ বিভিন্ন জনের কাছে হস্তান্তর ও রূপান্তরসহ স্থানান্তর করে মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে অপরাধ করেছেন।

দুদকের মামলায় পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী কারাগারে

 কুষ্টিয়া প্রতিনিধি 
১১ নভেম্বর ২০২১, ১০:১২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম
কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম। ফাইল ছবি

জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে দুর্নীতি দমন কমিশনের (দুদক) দায়ের করা মামলায় কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলামকে কারাগারে প্রেরণ করেছেন আদালত। 

বৃহস্পতিবার বিকালে দুদকের মামলায় কুষ্টিয়ার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করেন নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম। আদালতের বিচারক মো. আশরাফুল ইসলাম জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন। 

বিষয়টি নিশ্চিত করে রবিউল ইসলামের আইনজীবী হাসানুল আসকর হাসু বলেন, জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের মামলায় হাইকোর্টে আগাম জামিনের আবেদন করেছিলেন রবিউল ইসলাম। তবে হাইকোর্ট জামিন না দিয়ে ৬ সপ্তাহের মধ্যে নিন্ম আদালতে আত্মসমর্পণের আদেশ দেন। হাইকোর্টের দেওয়া সময়ের মধ্যে বৃহস্পতিবার বিকালে কুষ্টিয়ার বিশেষ জেলা ও দায়রা জজ আদালতে উপস্থিত হয়ে জামিনের আবেদন করেন নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম। তবে আদালত জামিন নামঞ্জুর করে তাকে কারাগারে প্রেরণের আদেশ দেন।

দুদক কুষ্টিয়ার কৌঁসুলি আল মুজাহিদ হোসেন মিঠু বলেন, কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী ও তার স্ত্রী বিরুদ্ধে জ্ঞাত আয় বহির্ভূত সম্পদ অর্জন এবং মানি লন্ডারিংয়ের অভিযোগে পৃথক দুটি মামলা করে জেলা দুর্নীতি দমন কমিশন (দুদক)। ২৭ সেপ্টেম্বর কুষ্টিয়া জেলা দায়রা জজ বিশেষ আদালতের বিচারক শেখ আবু তাহেরের আদালতে মামলাটি দায়ের করেন কুষ্টিয়ার উপসহকারী পরিচালক নীল কমল পাল। 

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, ১৯৯৪ সালের ১ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ২ ডিসেম্বর সময়কালে কুষ্টিয়া পৌরসভার নির্বাহী প্রকৌশলী রবিউল ইসলাম ও তার স্ত্রী কামরুন্নাহার জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৫২ লাখ ১৬ হাজার ৫৭৩ টাকার সম্পদ অর্জন করেন। অপর মামলায় ২০০৪ সালের ১০ অক্টোবর থেকে ২০১৯ সালের ৪ নভেম্বর পর্যন্ত সময়কালের মধ্যে কুষ্টিয়া পৌরসভায় কর্মরত সার্ভেয়ার আব্দুল মান্ননের স্ত্রী রূপালী খাতুন জ্ঞাত আয় বহির্ভূত ৭২ লাখ ৩২ হাজার ৬৪৮ টাকার সম্পদ অর্জন করেন এবং অন্যান্য সম্পদ বিভিন্ন জনের কাছে হস্তান্তর ও রূপান্তরসহ স্থানান্তর করে মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনে অপরাধ করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন