স্বামী বিদেশে, যা করল দেবর
jugantor
স্বামী বিদেশে, যা করল দেবর

  যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ ও সিংগাইর প্রতিনিধি  

১৫ নভেম্বর ২০২১, ২১:৫২:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বামী বিদেশে থাকায় গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করতেন তার দেবর। এতে অতিষ্ঠ হয়ে বাবার বাড়ি চলে যান ওই প্রবাসীর স্ত্রী। পরে সেখানে গিয়ে ভাবিকে স্ত্রী ধর্ষণ করেন দেবর।

এ ঘটনায় ওই প্রবাসীর স্ত্রী রোববার মানিকগঞ্জের সিংগাইর থানায় মামলা করেছেন। এছাড়া এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিসহ আরও দুই ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ নিয়ে একদিনে তিনটি পৃথক মামলা হয়েছে মানিকগঞ্জের সিংগাইর থানায়।

তিন ধর্ষণের ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে হয়েছে। গ্রেফতারকৃত দুই জনকে সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

থানা পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, রোববার উপজেলার জামিত্তা ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী (২০) তার দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন।

মামলারে এজাহারে জানা গেছে, স্বামী প্রবাসে থাকায় ওই গৃহবধূর চাচাতো দেবর (২৮) দীর্ঘদিন ধরে তাকে উত্যক্ত করতো। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে পিতার বাড়ি গিয়ে থাকতেন ওই গৃহবধূ।

রোববার বিকাল ৪টার দিকে হেলাল পিতার বাড়ি গিয়ে ওই প্রবাসীর স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বাদীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে ধর্ষককে আটক করে থানায় সোপর্দ করে।

অপরদিকে উপজেলার পৌর এলাকার বাসিন্দা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিকে (১৪) প্রতিবেশী শহীদের ছেলে আলামিন (২২) গত ২৪ অক্টোবর দিবাগত রাত ১০টার দিকে সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার জন্য বের হলে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ১৪ নভেম্বর সিংগাইর থানায় মামলা করেন।

এদিকে সিংগাইর পৌর এলাকার গোবিন্দল গ্রামের এক ট্রাক ড্রাইভারের স্ত্রীকে (২৮) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের মানিকদহ গ্রামের হাছেন বিশ্বাস ছেলে দুলাল বিশ্বাস (৩০) জোর করে ধর্ষণ করে।

গত ২৬ অক্টোবর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে মো. দুলাল বিশ্বাস ওই নারীর ঘরে ঢুকে বিয়ের কথা বলে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় দুলাল বিশ্বাসকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা বলেন, পৃথক ৩টি ধর্ষণের মামলা হয়েছে। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে দুলালকে গ্রেফতার করে। এছাড়া এক ধর্ষককে গ্রামবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তাদের দুইজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

স্বামী বিদেশে, যা করল দেবর

 যুগান্তর প্রতিবেদন, মানিকগঞ্জ ও সিংগাইর প্রতিনিধি 
১৫ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্বামী বিদেশে থাকায় গৃহবধূকে উত্ত্যক্ত করতেন তার দেবর। এতে অতিষ্ঠ হয়ে বাবার বাড়ি চলে যান ওই প্রবাসীর স্ত্রী। পরে সেখানে গিয়ে ভাবিকে স্ত্রী ধর্ষণ করেন দেবর।

এ ঘটনায় ওই প্রবাসীর স্ত্রী রোববার মানিকগঞ্জের সিংগাইর থানায় মামলা করেছেন। এছাড়া এক বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিসহ আরও দুই ধর্ষণের অভিযোগে মামলা হয়েছে। এ নিয়ে একদিনে তিনটি পৃথক মামলা হয়েছে মানিকগঞ্জের সিংগাইর থানায়।

তিন ধর্ষণের ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে হয়েছে। গ্রেফতারকৃত দুই জনকে সোমবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

থানা পুলিশ ও মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, রোববার উপজেলার জামিত্তা ইউনিয়নের এক প্রবাসীর স্ত্রী (২০) তার দেবরের বিরুদ্ধে ধর্ষণ মামলা করেন।

মামলারে এজাহারে জানা গেছে, স্বামী প্রবাসে থাকায় ওই গৃহবধূর চাচাতো দেবর (২৮) দীর্ঘদিন ধরে তাকে উত্যক্ত করতো। তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হয়ে স্বামীর বাড়ি থেকে পিতার বাড়ি গিয়ে থাকতেন ওই গৃহবধূ।

রোববার বিকাল ৪টার দিকে হেলাল পিতার বাড়ি গিয়ে ওই প্রবাসীর স্ত্রীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। পরে বাদীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে ধর্ষককে আটক করে থানায় সোপর্দ করে।

অপরদিকে উপজেলার পৌর এলাকার বাসিন্দা বুদ্ধিপ্রতিবন্ধিকে (১৪) প্রতিবেশী শহীদের ছেলে আলামিন (২২) গত ২৪ অক্টোবর দিবাগত রাত ১০টার দিকে সময় প্রকৃতির ডাকে সাড়া দেওয়ার জন্য বের হলে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ১৪ নভেম্বর সিংগাইর থানায় মামলা করেন।

এদিকে সিংগাইর পৌর এলাকার গোবিন্দল গ্রামের এক ট্রাক ড্রাইভারের স্ত্রীকে (২৮) বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে উপজেলার বলধারা ইউনিয়নের মানিকদহ গ্রামের হাছেন বিশ্বাস ছেলে দুলাল বিশ্বাস (৩০) জোর করে ধর্ষণ করে।

গত ২৬ অক্টোবর দিবাগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে মো. দুলাল বিশ্বাস ওই নারীর ঘরে ঢুকে বিয়ের কথা বলে ধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ওই নারী বাদী হয়ে সিংগাইর থানায় মামলা দায়ের করেন। এ ঘটনায় দুলাল বিশ্বাসকে পুলিশ গ্রেফতার করে।

সিংগাইর থানার ওসি সফিকুল ইসলাম মোল্ল্যা বলেন, পৃথক ৩টি ধর্ষণের মামলা হয়েছে। পুলিশ রাতেই অভিযান চালিয়ে দুলালকে গ্রেফতার করে। এছাড়া এক ধর্ষককে গ্রামবাসী আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে। তাদের দুইজনকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন