নির্বাচনে লড়ছেন সুনামগঞ্জের ১৫ বিএনপি নেতা
jugantor
নির্বাচনে লড়ছেন সুনামগঞ্জের ১৫ বিএনপি নেতা

  সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি  

১৮ নভেম্বর ২০২১, ২১:৫৮:১১  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জ সদর এবং শান্তিগঞ্জ উপজেলার ১৭ ইউনিয়নে ১১টিতে ভিন্ন প্রতীকে লড়ছেন ১৫ বিএনপি নেতা। কোনো কোনো ইউনিয়নে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন এসব প্রার্থী।

এদের মধ্যে সদরের ৯ ইউনিয়নে লড়ছেন ৭ এবং পার্শ্ববর্তী শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮ ইউনিয়নে লড়ছেন ৮ বিএনপি নেতা। এর মধ্যে অনেকেই রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান পদে সমাসীন।

আগামী ২৮ নভেম্বর এসব ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে শুধুমাত্র সদর উপজেলার লক্ষ্মণশ্রী ইউনিয়নে ভোট হবে ইভিএমে।

সুনামগঞ্জ সদর ও শান্তিগঞ্জ উপজেলায় বিএনপিপন্থী প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন সদর উপজেলার লক্ষ্মণশ্রী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াদুদ। তিনি আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন এবারের নির্বাচনে। তিনি সুনামগঞ্জ জেলা কৃষক দলের সদস্য সচিব।

সদরের মোল্লাপাড়া ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীকে ভোটযুদ্ধে আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মো. নুরুল হক।
সদরের রঙ্গারচর ইউনিয়নে লড়ছেন আরেক বিএনপি নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হাই। নির্বাচনে লড়ছেন তিনি মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে।

সদরের মোহনপুর ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ভোটের লড়াইয়ে নেমেছেন দলীয় নেতা মছিহুর রহমান। জেলার সর্ববৃহৎ গৌরারং ইউনিয়নে টেবিল ফ্যান প্রতীক নিয়ে লড়ছেন বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা ফুল মিয়া। একই ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে মো. সামসুল হক এবং অটোরিকশা প্রতীক নিয়ে ভোটযুদ্ধে আছেন বিএনপিপন্থী শহিদুল ইসলাম।

শান্তিগঞ্জ উপজেলার জয়কলস ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন ফরিদুর রহমান, পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীকে আক্কাস খান অপু, দরগাপাশায় ঘোড়া প্রতীকে নেছার আলম ও চশমা প্রতীকে সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা সুফি মিয়া।

একই উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন সাবেক চেয়ারম্যান ছালেক উদ্দিন, পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নে চশমা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন বিএনপি নেতা লুৎফুর রহমান জায়গীরদার খোকন ও ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে দলের নেতা নূর মিয়া। শান্তিগঞ্জের পাথারিয়া ইউনিয়নে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ আমিন লড়ছেন চশমা প্রতীক নিয়ে।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম নুরুল বললেন, দল নির্বাচনে যায়নি। এজন্য দলীয় প্রতীকও কেউ পাননি। দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে নির্বাচনে যারা অংশ নিয়েছেন, তারা নিজ দায়িত্বেই লড়ছেন। এখানে দলের কোনো দায়-দায়িত্ব নেই। দলের কোনো বিধিনিষেধও নেই।

নির্বাচনে লড়ছেন সুনামগঞ্জের ১৫ বিএনপি নেতা

 সুনামগঞ্জ প্রতিনিধি 
১৮ নভেম্বর ২০২১, ০৯:৫৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সুনামগঞ্জ সদর এবং শান্তিগঞ্জ উপজেলার ১৭ ইউনিয়নে ১১টিতে ভিন্ন প্রতীকে লড়ছেন ১৫ বিএনপি নেতা। কোনো কোনো ইউনিয়নে মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতায় রয়েছেন এসব প্রার্থী।

এদের মধ্যে সদরের ৯ ইউনিয়নে লড়ছেন ৭ এবং পার্শ্ববর্তী শান্তিগঞ্জ উপজেলার ৮ ইউনিয়নে লড়ছেন ৮ বিএনপি নেতা। এর মধ্যে অনেকেই রয়েছেন বর্তমান চেয়ারম্যান পদে সমাসীন।

আগামী ২৮ নভেম্বর এসব ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এর মধ্যে শুধুমাত্র সদর উপজেলার লক্ষ্মণশ্রী ইউনিয়নে ভোট হবে ইভিএমে।

সুনামগঞ্জ সদর ও শান্তিগঞ্জ উপজেলায় বিএনপিপন্থী প্রার্থীদের মধ্যে রয়েছেন সদর উপজেলার লক্ষ্মণশ্রী ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান আব্দুল ওয়াদুদ। তিনি আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন এবারের নির্বাচনে। তিনি সুনামগঞ্জ জেলা কৃষক দলের সদস্য সচিব।

সদরের মোল্লাপাড়া ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীকে ভোটযুদ্ধে আছেন বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মো. নুরুল হক।
সদরের রঙ্গারচর ইউনিয়নে লড়ছেন আরেক বিএনপি নেতা বর্তমান চেয়ারম্যান মো. আব্দুল হাই। নির্বাচনে লড়ছেন তিনি মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে।

সদরের মোহনপুর ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ভোটের লড়াইয়ে নেমেছেন দলীয় নেতা মছিহুর রহমান। জেলার সর্ববৃহৎ গৌরারং ইউনিয়নে টেবিল ফ্যান প্রতীক নিয়ে লড়ছেন বর্তমান চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা ফুল মিয়া। একই ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে মো. সামসুল হক এবং অটোরিকশা প্রতীক নিয়ে ভোটযুদ্ধে আছেন বিএনপিপন্থী শহিদুল ইসলাম।

শান্তিগঞ্জ উপজেলার জয়কলস ইউনিয়নে আনারস প্রতীক নিয়ে লড়ছেন ফরিদুর রহমান, পূর্ব পাগলা ইউনিয়নে ঘোড়া প্রতীকে আক্কাস খান অপু, দরগাপাশায় ঘোড়া প্রতীকে নেছার আলম ও চশমা প্রতীকে সাবেক চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা সুফি মিয়া।

একই উপজেলার পূর্ব বীরগাঁও ইউনিয়নে মোটরসাইকেল প্রতীক নিয়ে লড়ছেন সাবেক চেয়ারম্যান ছালেক উদ্দিন, পশ্চিম বীরগাঁও ইউনিয়নে চশমা প্রতীক নিয়ে লড়ছেন বিএনপি নেতা লুৎফুর রহমান জায়গীরদার খোকন ও ঘোড়া প্রতীক নিয়ে ভোটের মাঠে দলের নেতা নূর মিয়া। শান্তিগঞ্জের পাথারিয়া ইউনিয়নে উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বর্তমান চেয়ারম্যান আমিনুর রশীদ আমিন লড়ছেন চশমা প্রতীক নিয়ে।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট নুরুল ইসলাম নুরুল বললেন, দল নির্বাচনে যায়নি। এজন্য দলীয় প্রতীকও কেউ পাননি। দলের নেতাকর্মীদের মধ্যে নির্বাচনে যারা অংশ নিয়েছেন, তারা নিজ দায়িত্বেই লড়ছেন। এখানে দলের কোনো দায়-দায়িত্ব নেই। দলের কোনো বিধিনিষেধও নেই।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন