রাজহাঁসে ঘাস খাওয়া কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১
jugantor
রাজহাঁসে ঘাস খাওয়া কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১

  ঝিনাইদহ প্রতিনিধি   

২০ নভেম্বর ২০২১, ২০:১০:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝিনাইদহের মহেশপুরে রাজহাঁস নিয়ে সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত মফিজুল ইসলাম (৩৫) মহেশপুর উপজেলার নস্তি গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। পেশায় তিনি কৃষক ছিলেন।

সংশ্লিষ্ট নাটিমা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার বশির উদ্দিন জানান, শুক্রবার বিকালে মফিজুলের রাজহাঁস প্রতিবেশী ভাটা কামালের লাগানো নেপিয়ার ঘাস খেয়ে ফেলে। কামালের স্ত্রী তারা বানু ক্ষিপ্ত হয়ে রাজহাঁসটি মারধর করে।

খবর পেয়ে মফিজুলের স্ত্রী কদবানু ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ সময় উভয় নারীর মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনার জেরে সন্ধ্যায় কামাল ও মফিজুলের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। মেহগনি গাছের ডাল দিয়ে মফিজুলের মাথায় কামাল আঘাত করেন। গুরুতর আহত মফিজুলকে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে শনিবার ভোরে ঢাকায় নেওয়ার পথে মানিকগঞ্জ এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সের ভেতর মৃত্যু হয় তার। পরে লাশ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্স গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে।

সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

ঘটনার বিষয়ে জানতে মহেশপুর থানার ওসি মো. সাইফুল ইসলামের অফিসিয়াল নাম্বারে কল করা হলে তিনি রিসিভ করেননি।

তবে কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাইমিনুল ইসলাম বলেন, রাজহাঁসে ঘাস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মফিজুল আহত হন। চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়েছে তার। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে আটকের চেষ্টা চলছে।

রাজহাঁসে ঘাস খাওয়া কেন্দ্র করে সংঘর্ষ, নিহত ১

 ঝিনাইদহ প্রতিনিধি  
২০ নভেম্বর ২০২১, ০৮:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ঝিনাইদহের মহেশপুরে রাজহাঁস নিয়ে সংঘর্ষে এক ব্যক্তি নিহত হয়েছেন। নিহত মফিজুল ইসলাম (৩৫) মহেশপুর উপজেলার নস্তি গ্রামের মৃত আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। পেশায় তিনি কৃষক ছিলেন। 

সংশ্লিষ্ট নাটিমা ইউনিয়ন পরিষদের মেম্বার বশির উদ্দিন জানান, শুক্রবার বিকালে মফিজুলের রাজহাঁস প্রতিবেশী ভাটা কামালের লাগানো নেপিয়ার ঘাস খেয়ে ফেলে। কামালের স্ত্রী তারা বানু ক্ষিপ্ত হয়ে রাজহাঁসটি মারধর করে।

খবর পেয়ে মফিজুলের স্ত্রী কদবানু ঘটনাস্থলে ছুটে যান। এ সময় উভয় নারীর মধ্যে ঝগড়া শুরু হয়। একপর্যায়ে হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনার জেরে সন্ধ্যায় কামাল ও মফিজুলের মধ্যে সংঘর্ষ বেধে যায়। মেহগনি গাছের ডাল দিয়ে মফিজুলের মাথায় কামাল আঘাত করেন। গুরুতর আহত মফিজুলকে মহেশপুর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। অবস্থার অবনতি হলে রাতেই তাকে যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখান থেকে শনিবার ভোরে ঢাকায় নেওয়ার পথে মানিকগঞ্জ এলাকায় অ্যাম্বুলেন্সের ভেতর মৃত্যু হয় তার। পরে লাশ নিয়ে অ্যাম্বুলেন্স গ্রামের বাড়িতে ফিরে আসে। 

সেখান থেকে লাশ উদ্ধার করে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠায় পুলিশ।

ঘটনার বিষয়ে জানতে মহেশপুর থানার ওসি মো. সাইফুল ইসলামের অফিসিয়াল নাম্বারে কল করা হলে তিনি রিসিভ করেননি। 

তবে কোটচাঁদপুর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোহাইমিনুল ইসলাম বলেন, রাজহাঁসে ঘাস খাওয়া নিয়ে সংঘর্ষের ঘটনায় মফিজুল আহত হন। চিকিৎসার জন্য ঢাকায় নেওয়ার পথে মৃত্যু হয়েছে তার। এ ঘটনায় জড়িত ব্যক্তিকে আটকের চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন