এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে অ্যাসিডে ঝলসে দিল বখাটেরা
jugantor
এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে অ্যাসিডে ঝলসে দিল বখাটেরা

  নাটোর প্রতিনিধি  

২১ নভেম্বর ২০২১, ২২:৪৯:৪৩  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোর সদর উপজেলায় সানজিদা আক্তার বীনা (১৯) নামের এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীর মুখ অ্যাসিডে ঝলসে দিয়েছে বখাটেরা। রোববার সন্ধ্যায় সদরের ডাঙ্গাপাড়া বাজারসংলগ্ন রাস্তার পাশে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় বীনাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে রাতেই ঢাকায় স্থানান্তর করার প্রস্তুতি চলছে।

অ্যাসিড দগ্ধ এইচএসসি পরীক্ষার্থী বীনা ওই এলাকার নুরুল ইসলামের মেয়ে। সে চলতি বছর রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের মধ্যে একজন মুহিন পার্শ্ববর্তী দত্তপড়া এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। মুহিনের সহযোগীদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। তাদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশের একাধিক টিম।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য নাটোরের বাড়ি থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছিল রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ থেকে পরীক্ষার্থী বীনা। তাকে প্রায়ই বিরক্ত করত স্থানীয় বখাটে মুহিন ও তার সহযোগীরা। রোববার সন্ধ্যার পূর্বমুহূর্তে বীনা বাড়ির অদূরে প্রাইভেট পড়ে ফেরার সময় বখাটে মুহিন তার দুই সহযোগীসহ মোটরসাইকেল নিয়ে বীনার পথরোধ করে।

বীনা দাঁড়ানো মাত্রই বোতলে থাকা অ্যাসিড দিয়ে তার মুখ ঝলসে দেয় মুহিন। বীনা চিৎকার করলে ঘটনাস্থল থেকে তিনজন দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা বীনাকে উদ্ধার করে এবং তার বাড়ির লোকজনকে খবর দেন। পরে পরিবারের লোকজন বীনাকে সরাসরি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। রাত ৯টার দিকে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে।

বীনার চাচাতো ভাই মেহেদি হাসান জানান, বীনা একজন মেধাবী ছাত্রী। সামনেই তার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। সে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

নাটোর সদর থানার ওসি মুনসুর রহমান বলেন, ঘটনার পর থেকে পুলিশ অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে। তবে পরিবারের সদস্যরা ভিকটিমকে নিয়ে হাসপাতালে অবস্থান করায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেছেন, ভিকটিমের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে। অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের ধরতে পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম মাঠে নেমেছে।

এইচএসসি পরীক্ষার্থীকে অ্যাসিডে ঝলসে দিল বখাটেরা

 নাটোর প্রতিনিধি 
২১ নভেম্বর ২০২১, ১০:৪৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোর সদর উপজেলায় সানজিদা আক্তার বীনা (১৯) নামের এক এইচএসসি পরীক্ষার্থীর মুখ অ্যাসিডে ঝলসে দিয়েছে বখাটেরা। রোববার সন্ধ্যায় সদরের ডাঙ্গাপাড়া বাজারসংলগ্ন রাস্তার পাশে এ ঘটনা ঘটে।

গুরুতর আহত অবস্থায় বীনাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল থেকে রাতেই ঢাকায় স্থানান্তর করার প্রস্তুতি চলছে।

অ্যাসিড দগ্ধ এইচএসসি পরীক্ষার্থী বীনা ওই এলাকার নুরুল ইসলামের মেয়ে। সে চলতি বছর রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ থেকে এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নিচ্ছে।

অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের মধ্যে একজন মুহিন পার্শ্ববর্তী দত্তপড়া এলাকার আব্দুর রাজ্জাকের ছেলে। মুহিনের সহযোগীদের পরিচয় এখনো জানা যায়নি। তাদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে পুলিশের একাধিক টিম।

প্রত্যক্ষদর্শী ও পুলিশ সূত্রে জানা যায়, এইচএসসি পরীক্ষায় অংশ নেওয়ার জন্য নাটোরের বাড়ি থেকে প্রস্তুতি নিচ্ছিল রাজশাহী সরকারি সিটি কলেজ থেকে পরীক্ষার্থী বীনা। তাকে প্রায়ই বিরক্ত করত স্থানীয় বখাটে মুহিন ও তার সহযোগীরা। রোববার সন্ধ্যার পূর্বমুহূর্তে বীনা বাড়ির অদূরে প্রাইভেট পড়ে ফেরার সময় বখাটে মুহিন তার দুই সহযোগীসহ মোটরসাইকেল নিয়ে বীনার পথরোধ করে।

বীনা দাঁড়ানো মাত্রই বোতলে থাকা অ্যাসিড দিয়ে তার মুখ ঝলসে দেয় মুহিন। বীনা চিৎকার করলে ঘটনাস্থল থেকে তিনজন দ্রুত পালিয়ে যায়। এ সময় স্থানীয়রা বীনাকে উদ্ধার করে এবং তার বাড়ির লোকজনকে খবর দেন। পরে পরিবারের লোকজন বীনাকে সরাসরি রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান। রাত ৯টার দিকে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে।

বীনার চাচাতো ভাই মেহেদি হাসান জানান, বীনা একজন মেধাবী ছাত্রী। সামনেই তার উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষা। সে পরীক্ষার জন্য প্রস্তুতি নিচ্ছিল।

নাটোর সদর থানার ওসি মুনসুর রহমান বলেন, ঘটনার পর থেকে পুলিশ অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের ধরতে অভিযান শুরু করেছে। তবে পরিবারের সদস্যরা ভিকটিমকে নিয়ে হাসপাতালে অবস্থান করায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া যায়নি।

নাটোরের পুলিশ সুপার লিটন কুমার সাহা বলেছেন, ভিকটিমের অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকায় নেওয়া হচ্ছে। অ্যাসিড নিক্ষেপকারীদের ধরতে পুলিশ ও গোয়েন্দা পুলিশের একাধিক টিম মাঠে নেমেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন