বরেণ্য রাজনীতিক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা আর নেই
jugantor
বরেণ্য রাজনীতিক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা আর নেই

  নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি  

২২ নভেম্বর ২০২১, ১৬:১৭:২৭  |  অনলাইন সংস্করণ

বরেণ্য রাজনীতিক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা আর নেই

বরেণ্য রাজনীতিক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা (৬৩) আর নেই।


অগ্নাশয়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে রোববার দিবাগত রাত ২টা ৪৫ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)

তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বরেণ্য এ রাজনীতিবিদের প্রথম জানাজ রাজধানীর মোহাম্মদপুরে তার নিজ বাসভবন এলাকায় সকাল সাড়ে ৭টার দিকে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর পর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ-এ (কেআইবি) তার মরদেহ শ্রদ্ধা জানানো শেষে সকাল সাড়ে ৯টায় দ্বিতীয় জানাজা হয়েছে। বাদজোহর বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহে তৃতীয় এবং বাদ মাগরিব নিজ জন্মভূমি শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে চতুর্থ জানাজা শেষে লাশ দাফন করা হবে।

কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা ১৯৫৮ সালের ৫ জানুয়ারি শেরপুরে নালিতাবাড়ীর ছিটপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। রাজনীতির উজ্জ্বল নক্ষত্র বদিউজ্জামান বাদশা বাংলাদেশ কৃষিবিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাবেক সহসভাপতি, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি, নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ উপজেলা চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন। তিনি ছিলেন অনন্য সাধারণ সংগঠক, আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ, দুঃসময়ের সাহসী ও গণমুখী চরিত্রের রাজনৈতিক কর্মী এবং বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী, বহু ভাষাজ্ঞান সম্পন্ন প্রজ্ঞাবান মানুষ। তিনি স্বৈরাচারী এরশাদবিরোধী আন্দোলনে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন। নালিতাবাড়ীতে তিনি হাজী নূরুল হক নন্নী-পোড়াগাঁও মৈত্রী কলেজ, নালিতাবাড়ী ডায়াবেটিক সমিতির প্রতিষ্ঠাসহ বিভিন্ন শিক্ষা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় তিন মাস আগে তিনি অসুস্থ হলে গত ২১ সেপ্টেম্বর তাকে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। সেখানে তার শরীরে ডেঙ্গু শনাক্ত হয়। এর পর তরল পানিবাহিত জন্ডিস, ফুসফুসে সংক্রমণ, বডি ইনসুলিন ম্যানেজমেন্ট, শ্বাসকষ্ট ও অস্বাভাবিক ওজন কমে যাওয়াসহ নানা সমস্যার একপর্যায়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ২৩ অক্টোবর তাকে ভারতের চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তার শরীরে ক্যান্সার শনাক্ত হয়।

চিকিৎসকগণের দেওয়া তথ্যানুযায়ী প্রায় বছরখানেক আগে তার অগ্নাশয়ে সৃষ্ট অসংখ্য ক্ষত থেকে ক্যান্সার ফুসফুস, লিভার ও শরীরের নিচের দিকে হাড় পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তা ব্রেনের দিকে ছড়াতে থাকে। পরে সংকটাপন্ন অবস্থায় ডাক্তারের পরামর্শ ও ব্যবস্থাপত্র নিয়ে গত ৯ নভেম্বর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে তাকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয় এবং ওই দিনই রাজধানীর পান্থপথে বিআরবি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে প্রথমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি) হাসপাতাল এবং পরে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। অবশেষে রোববার দিবাগত রাতে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

তার মৃত্যুতে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি, হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক এমপি, শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার পাল, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মুকছেদুর রহমান লেবু গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন।

বরেণ্য রাজনীতিক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা আর নেই

 নালিতাবাড়ী (শেরপুর) প্রতিনিধি 
২২ নভেম্বর ২০২১, ০৪:১৭ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বরেণ্য রাজনীতিক কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা আর নেই
ফাইল ছবি

বরেণ্য রাজনীতিক, বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক, কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা উপকমিটির সদস্য কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা (৬৩) আর নেই।


অগ্নাশয়ের ক্যান্সারে আক্রান্ত হয়ে রোববার দিবাগত রাত ২টা ৪৫ মিনিটে রাজধানীর একটি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি ইন্তেকাল করেছেন। (ইন্নালিল্লাহি ... রাজিউন)

তিনি স্ত্রী, দুই ছেলে ও এক মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, বরেণ্য এ রাজনীতিবিদের প্রথম জানাজ রাজধানীর মোহাম্মদপুরে তার নিজ বাসভবন এলাকায় সকাল সাড়ে ৭টার দিকে অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর পর কৃষিবিদ ইনস্টিটিউশন বাংলাদেশ-এ (কেআইবি) তার মরদেহ শ্রদ্ধা জানানো শেষে সকাল সাড়ে ৯টায় দ্বিতীয় জানাজা হয়েছে। বাদজোহর বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় ময়মনসিংহে তৃতীয় এবং বাদ মাগরিব নিজ জন্মভূমি শেরপুরের নালিতাবাড়ীতে চতুর্থ জানাজা শেষে লাশ দাফন করা হবে।

কৃষিবিদ বদিউজ্জামান বাদশা ১৯৫৮ সালের ৫ জানুয়ারি শেরপুরে নালিতাবাড়ীর ছিটপাড়ায় জন্মগ্রহণ করেন। রাজনীতির উজ্জ্বল নক্ষত্র বদিউজ্জামান বাদশা বাংলাদেশ কৃষিবিশ্ববিদ্যালয় ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, ছাত্রলীগ কেন্দ্রীয় কার্যনির্বাহী সংসদের সাবেক সহসভাপতি, কৃষক লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সহসভাপতি, নালিতাবাড়ী উপজেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান, বাংলাদেশ উপজেলা  চেয়ারম্যান অ্যাসোসিয়েশন কেন্দ্রীয় কমিটির সাবেক সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।  তিনি ছিলেন অনন্য সাধারণ সংগঠক, আওয়ামী লীগের নিবেদিত প্রাণ, দুঃসময়ের সাহসী ও গণমুখী চরিত্রের রাজনৈতিক কর্মী এবং বহুমুখী প্রতিভার অধিকারী, বহু ভাষাজ্ঞান সম্পন্ন প্রজ্ঞাবান মানুষ। তিনি স্বৈরাচারী এরশাদবিরোধী আন্দোলনে ময়মনসিংহ জেলা ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের সভাপতির দায়িত্বও পালন করেন। নালিতাবাড়ীতে তিনি হাজী নূরুল হক নন্নী-পোড়াগাঁও মৈত্রী কলেজ, নালিতাবাড়ী ডায়াবেটিক সমিতির প্রতিষ্ঠাসহ বিভিন্ন শিক্ষা, ধর্মীয় প্রতিষ্ঠান গড়ে তোলা এবং সামাজিক-সাংস্কৃতিক, পেশাজীবী সংগঠনের পৃষ্ঠপোষক ছিলেন।

পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, প্রায় তিন মাস আগে তিনি অসুস্থ হলে গত ২১ সেপ্টেম্বর তাকে রাজধানীর আনোয়ার খান মডার্ন হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।  সেখানে তার শরীরে ডেঙ্গু শনাক্ত হয়। এর পর তরল পানিবাহিত জন্ডিস, ফুসফুসে সংক্রমণ, বডি ইনসুলিন ম্যানেজমেন্ট, শ্বাসকষ্ট ও অস্বাভাবিক ওজন কমে যাওয়াসহ নানা সমস্যার একপর্যায়ে গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়লে গত ২৩ অক্টোবর তাকে ভারতের চেন্নাইয়ের অ্যাপোলো হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শারীরিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা শেষে তার শরীরে ক্যান্সার শনাক্ত হয়।

চিকিৎসকগণের দেওয়া তথ্যানুযায়ী প্রায় বছরখানেক আগে তার অগ্নাশয়ে সৃষ্ট অসংখ্য ক্ষত থেকে ক্যান্সার ফুসফুস, লিভার ও শরীরের নিচের দিকে হাড় পর্যন্ত ছড়িয়ে পড়ে। একপর্যায়ে তা ব্রেনের দিকে ছড়াতে থাকে। পরে সংকটাপন্ন অবস্থায় ডাক্তারের পরামর্শ ও ব্যবস্থাপত্র নিয়ে গত ৯ নভেম্বর এয়ার অ্যাম্বুলেন্সযোগে তাকে বাংলাদেশে নিয়ে আসা হয় এবং ওই দিনই রাজধানীর পান্থপথে বিআরবি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। পরে সেখান থেকে প্রথমে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (পিজি) হাসপাতাল এবং পরে বাংলাদেশ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে লাইফ সাপোর্টে রাখা হয়। অবশেষে রোববার দিবাগত রাতে পৃথিবীর মায়া ত্যাগ করে তিনি না ফেরার দেশে পাড়ি জমান।

তার মৃত্যুতে কৃষিমন্ত্রী ড. আব্দুর রাজ্জাক এমপি, হুইপ মো. আতিউর রহমান আতিক এমপি, শেরপুর জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট চন্দন কুমার পাল, নালিতাবাড়ী উপজেলা চেয়ারম্যান মো. মুকছেদুর রহমান লেবু গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন