রাজশাহীতে ভাতিজার দায়ের কোপে চাচা খুন
jugantor
রাজশাহীতে ভাতিজার দায়ের কোপে চাচা খুন

  রাজশাহী ব্যুরো  

২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৪:৪৪:৪৮  |  অনলাইন সংস্করণ

খুন

রাজশাহীর মোহনপুরে ভাতিজার দায়ের কোপে নাজিম উদ্দিন শাহ (৪০) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন।

রোববার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার বাকশিমইল ইউনিয়নের সিন্দুরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাজিম উদ্দিন শাহ ওই এলাকার মৃত ময়েজ উদ্দিন শাহর ছেলে। খবর পেয়ে মোহনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করেন। এলাকাবাসীর সহায়তায় ভাতিজা নাসির উদ্দিন শাহকে (৩০) গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

মোহনপুর থানার এসআই ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ বলেন, সকালে নাজিম উদ্দিন শাহকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন তার ভাই নাজু শাহর ছেলে নাসির উদ্দিন শাহ। উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেওয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। নাজিম শাহর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বছরখানেক আগে নাসির উদ্দিন শাহ তার বাবা নাজু শাহকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে জখম করেন। ওই সময় নাজু শাহ বেশ কিছু দিন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। নাজু শাহ সুস্থ হয়ে ফিরে এসে ছেলে নাসির শাহের নামে মামলা করেন। সেই মামলার সাক্ষী ছিলেন নাজু শাহের ভাই নাজিম উদ্দিন শাহ। সাক্ষ্য দেওয়ায় চাচার ওপরে ক্ষুব্ধ ছিলেন ভাতিজা নাসির শাহ। এরই জেরে এ হত্যাকাণ্ড বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন। অন্য কোনো কারণ আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

রাজশাহীতে ভাতিজার দায়ের কোপে চাচা খুন

 রাজশাহী ব্যুরো 
২৮ নভেম্বর ২০২১, ০২:৪৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
খুন
ফাইল ছবি

রাজশাহীর মোহনপুরে ভাতিজার দায়ের কোপে নাজিম উদ্দিন শাহ (৪০) নামে এক ব্যক্তি খুন হয়েছেন।

রোববার সকাল ৯টার দিকে উপজেলার বাকশিমইল ইউনিয়নের সিন্দুরী গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত নাজিম উদ্দিন শাহ ওই এলাকার মৃত ময়েজ উদ্দিন শাহর ছেলে। খবর পেয়ে মোহনপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে নিহতের লাশ উদ্ধার করেন। এলাকাবাসীর সহায়তায় ভাতিজা নাসির উদ্দিন শাহকে (৩০) গ্রেফতার  করেছে পুলিশ।

মোহনপুর থানার এসআই ইব্রাহিম খলিলুল্লাহ বলেন, সকালে নাজিম উদ্দিন শাহকে এলোপাতাড়ি কুপিয়ে জখম করেন তার ভাই নাজু শাহর ছেলে নাসির উদ্দিন শাহ। উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে নেওয়ার পর তাকে মৃত ঘোষণা করেন কর্তব্যরত চিকিৎসক। নাজিম শাহর মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য রাজশাহী মেডিকেল কলেজ ফরেনসিক বিভাগে পাঠানো হয়েছে।

স্বজনদের বরাত দিয়ে পুলিশ জানায়, বছরখানেক আগে নাসির উদ্দিন শাহ তার বাবা নাজু শাহকে কোদাল দিয়ে কুপিয়ে জখম করেন। ওই সময় নাজু শাহ বেশ কিছু দিন রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন ছিলেন। নাজু শাহ সুস্থ হয়ে ফিরে এসে ছেলে নাসির শাহের নামে মামলা করেন। সেই মামলার সাক্ষী ছিলেন নাজু শাহের ভাই নাজিম উদ্দিন শাহ। সাক্ষ্য দেওয়ায় চাচার ওপরে ক্ষুব্ধ ছিলেন ভাতিজা নাসির শাহ। এরই জেরে এ হত্যাকাণ্ড বলে পুলিশ প্রাথমিকভাবে ধারণা করছেন। অন্য কোনো কারণ আছে কিনা সেটিও খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন