শপথের আগেই কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান
jugantor
শপথের আগেই কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান

  ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি  

২৮ নভেম্বর ২০২১, ১৯:১০:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

কারাগার

ঢাকার ধামরাইয়ে প্রতিপক্ষকে মারধরের মামলায় সহযোগীদের নিয়ে কারাগারে গেছেন বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান। এতে তার অনুসারীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন।

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে শপথ গ্রহণের সময় নির্ধারণ করেছে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যানমেম্বারদের এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হবে।

কিন্তু বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর কারাগারে থাকায় তার শপথ গ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে।

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বাস্তা নয়াচর গ্রামের বাসিন্দা। ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে বালিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হন।

চেয়ারম্যান মজিবর রহমান গত ২২ নভেম্বর এলাকায় ফিল্মি স্টাইলে সন্ত্রাসী তাণ্ডব চালান। তিনি প্রতিপক্ষের তিন যুবককে বাড়ি থেকে ধরে এনে লোহার শিকলে বেঁধে প্রকাশ্যে হাতুড়িপেটা ও হকিস্টিক দিয়ে হাত-পায়ের হাড় গুঁড়িয়ে দেন।

এ ঘটনায় থানায় ২৬ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের হলে ইউপি চেয়ারম্যান মজিবর রহমানকে ১২ সহযোগীসহ গ্রেফতার করে আদলাতে পাঠায় পুলিশ। আদালত ৭ জনের জামিন মঞ্জুর করে এবং ৫ সহযোগীসহ ওই চেয়ারম্যানকে কারাগারে পাঠান।

চেয়ারম্যান মজিবর রহমান এখনো কারাগারে আছেন। এতে তার অনুসারীরা চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন।

চেয়ারম্যানের অনুসারী মো. শাহীন আলম বেপারী বলেন, বুকভরা আশা নিয়ে মজিবর রহমানকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান বানিয়েছি। সামান্য একটু ভুলের জন্য তিনি কারাগারে আছেন। তার শপথ অনুষ্ঠান নিয়ে দুশ্চিন্তার রয়েছি।

আওয়ামী লীগ কর্মী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমাদের বিশ্বাসের অমর্যাদা করেছেন মজিবর চেয়ারম্যান। সে এমন কাজ না করলে তাকে কারাগারে যেতে হতো না। আর আমাদেরও শপথ গ্রহণ নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে হতো না।

শপথের আগেই কারাগারে ইউপি চেয়ারম্যান

 ধামরাই (ঢাকা) প্রতিনিধি 
২৮ নভেম্বর ২০২১, ০৭:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
কারাগার
নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান

ঢাকার ধামরাইয়ে প্রতিপক্ষকে মারধরের মামলায় সহযোগীদের নিয়ে কারাগারে গেছেন বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান। এতে তার অনুসারীরা হতাশ হয়ে পড়েছেন। 

স্থানীয় সরকার মন্ত্রণালয় ডিসেম্বর মাসের প্রথম সপ্তাহে শপথ গ্রহণের সময় নির্ধারণ করেছে। ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মেম্বারদের এ শপথ গ্রহণ অনুষ্ঠান হবে। 

কিন্তু বালিয়া ইউনিয়ন পরিষদের নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর কারাগারে থাকায় তার শপথ  গ্রহণ অনিশ্চিত হয়ে পড়েছে। 

নবনির্বাচিত চেয়ারম্যান মজিবর রহমান বালিয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও বাস্তা নয়াচর গ্রামের বাসিন্দা। ১১ নভেম্বর অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ধাপের ইউপি নির্বাচনে তিনি আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীকে বালিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বিজয়ী হন।

চেয়ারম্যান মজিবর রহমান গত ২২ নভেম্বর এলাকায় ফিল্মি স্টাইলে সন্ত্রাসী তাণ্ডব চালান। তিনি প্রতিপক্ষের তিন  যুবককে বাড়ি থেকে ধরে এনে লোহার শিকলে বেঁধে প্রকাশ্যে হাতুড়িপেটা ও হকিস্টিক দিয়ে হাত-পায়ের হাড় গুঁড়িয়ে দেন। 

এ ঘটনায় থানায় ২৬ জনকে আসামি করে মামলা দায়ের হলে ইউপি চেয়ারম্যান মজিবর রহমানকে ১২ সহযোগীসহ গ্রেফতার করে আদলাতে পাঠায় পুলিশ। আদালত ৭ জনের জামিন মঞ্জুর করে এবং ৫ সহযোগীসহ ওই চেয়ারম্যানকে কারাগারে পাঠান। 

চেয়ারম্যান মজিবর রহমান এখনো কারাগারে আছেন। এতে তার অনুসারীরা চেয়ারম্যানের শপথ গ্রহণ নিয়ে দুশ্চিন্তায় রয়েছেন। 

চেয়ারম্যানের অনুসারী মো. শাহীন আলম বেপারী বলেন, বুকভরা আশা নিয়ে মজিবর রহমানকে ভোট দিয়ে চেয়ারম্যান বানিয়েছি। সামান্য একটু ভুলের জন্য তিনি কারাগারে আছেন। তার শপথ অনুষ্ঠান নিয়ে দুশ্চিন্তার  রয়েছি।

আওয়ামী লীগ কর্মী মো. জাহাঙ্গীর আলম বলেন, আমাদের বিশ্বাসের অমর্যাদা করেছেন মজিবর চেয়ারম্যান। সে এমন কাজ না করলে তাকে কারাগারে যেতে হতো না। আর আমাদেরও শপথ গ্রহণ নিয়ে দুশ্চিন্তা করতে হতো না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন