তিন পায়ের অদ্ভুত বাছুরটির দাম ৩ লাখ টাকা
jugantor
তিন পায়ের অদ্ভুত বাছুরটির দাম ৩ লাখ টাকা

  আতিউর রহমান, বিরল (দিনাজপুর)  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ১৩:৩১:৫৪  |  অনলাইন সংস্করণ

বাছুর

দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় তিন পাবিশিষ্ট অদ্ভুত এক বাছুরের দাম তিন লাখ টাকা হাঁকানো হয়েছে। প্রাকৃতিকভাবে বাছুরটির তিন পা নিয়ে জন্ম হয়। বাছুরটির বয়স সাত মাস।

নীবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে লালন-পালন করছেন কৃষক মো. নুর ইসলাম। তিনি দিনাজপুরের বিরল পৌর শহরের ৬নং ওয়ার্ডের শাকধোয়া এলাকার বাসিন্দা ও উপজেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাও. মো. মনসুর আলীর ছেলে।

এদিকে বাছুরটি দেখতে প্রতিদিন উৎসুক জনতা ভিড় করছেন ওই কৃষকের বাড়িতে।

কৃষক মো. নুর ইসলাম যুগান্তরকে জানান, সাত মাস আগে তিন পা নিয়েই বাছুরটির জন্ম হয়। অদ্ভুতভাবে বাছুরটি তিন পা নিয়েই দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। ধীরে ধীরে বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিন পা নিয়েই অন্যান্য গরুর মতোই চলাফেরা করছে বাছুরটি। এর তিনটি পা স্বাভাবিক থাকলেও পেছনের বাম পা শরীর ভেদ করে সামান্য একটু বের হয়ে আছে। এখানে দুটি নোখও রয়েছে।
বর্তমানে বাছুরটি সুস্থ রয়েছে। স্বাভাবিক অবস্থায় বাছুরটি নিয়মিত খাওয়া-দাওয়া এবং বিশ্রাম করে।

তিনি আরও জানান, বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ও রিসোর্ট থেকে ও বাছুরটি ক্রয়ের জন্য প্রস্তাব আসে। তবে তিন লাখ টাকা মূল্য পেলে এ ষাঁড় বাছুরটি বিক্রি কবেন বলে জানান মো. নুর ইসলাম।

তিন পায়ের অদ্ভুত বাছুরটির দাম ৩ লাখ টাকা

 আতিউর রহমান, বিরল (দিনাজপুর) 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ০১:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
বাছুর
ছবি: যুগান্তর

দিনাজপুরের বিরল উপজেলায় তিন পাবিশিষ্ট অদ্ভুত এক বাছুরের দাম তিন লাখ টাকা হাঁকানো হয়েছে। প্রাকৃতিকভাবে বাছুরটির তিন পা নিয়ে জন্ম হয়। বাছুরটির বয়স সাত মাস।

নীবিড় পরিচর্যার মাধ্যমে লালন-পালন করছেন কৃষক মো. নুর ইসলাম। তিনি দিনাজপুরের বিরল পৌর শহরের ৬নং ওয়ার্ডের শাকধোয়া এলাকার বাসিন্দা ও উপজেলা ইমাম সমিতির সভাপতি মাও. মো. মনসুর আলীর ছেলে।

এদিকে বাছুরটি দেখতে প্রতিদিন উৎসুক জনতা ভিড় করছেন ওই কৃষকের বাড়িতে।

কৃষক মো. নুর ইসলাম যুগান্তরকে জানান, সাত মাস আগে তিন পা নিয়েই বাছুরটির জন্ম হয়। অদ্ভুতভাবে বাছুরটি তিন পা নিয়েই দাঁড়িয়ে থাকতে পারে। ধীরে ধীরে বড় হওয়ার সঙ্গে সঙ্গে তিন পা নিয়েই অন্যান্য গরুর মতোই চলাফেরা করছে বাছুরটি। এর তিনটি পা স্বাভাবিক থাকলেও পেছনের বাম পা শরীর ভেদ করে সামান্য একটু বের হয়ে আছে। এখানে দুটি নোখও রয়েছে।
বর্তমানে বাছুরটি সুস্থ রয়েছে। স্বাভাবিক অবস্থায় বাছুরটি নিয়মিত খাওয়া-দাওয়া এবং বিশ্রাম করে।
 
তিনি আরও জানান, বিভিন্ন পর্যটনকেন্দ্র ও রিসোর্ট থেকে ও বাছুরটি ক্রয়ের জন্য প্রস্তাব আসে। তবে তিন লাখ টাকা মূল্য পেলে এ ষাঁড় বাছুরটি বিক্রি কবেন বলে জানান মো. নুর ইসলাম।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর