খুলনায় জুট মিল শ্রমিকদের অনশন 
jugantor
খুলনায় জুট মিল শ্রমিকদের অনশন 

  খুলনা ব্যুরো  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ২২:০৫:৩৫  |  অনলাইন সংস্করণ

নগরীর মিরেরডাঙ্গা শিল্প এলাকার এ্যাজাক্স জুট মিল শ্রমিক কর্মচারীদের চুড়ান্ত বকেয়া পাওনাদি এককালিন পরিশোধের জন্য অনশন শুরু করেছেন।

জুট মিল চালু ও ৬ দফা দাবিতে বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল, শ্রমিক কর্মচারী
ফেডারেশন ও এ্যাজাক্স জুট মিলের সাধারণ শ্রমিক কর্মচারীদের উদ্যোগে জুট পুর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী অনশন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

সোমবার সকাল ১০টায় এ্যাজাক্স জুট মিলের শ্রমিক ক্লাবের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করেন সাধারণ শ্রমিক কর্মচারীরা।

মিলের শ্রমিক নেতা মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহেদ মুরাদের সভাপতিত্বে সোনালী জুট মিল ওয়াকার্স ইউনিয়নের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো.বাবুল হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কেসিসি ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.সাইফুল ইসলাম।

বক্তব্য রাখেন বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি শেখ আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল খান, সংগঠনের সহসভাপতি আফিল জুট মিল মজদুর ইউনিয়নের শ্রমিক নেতা কাবিল হোসেন, নিজামউদ্দিন, মহসেন জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী আসহাফ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব উদ্দীন, আমির মুন্সি, জুট স্পিনার্স মিলের শ্রমিক নেতা মো.আলাউদ্দিন, কেসমত, জাহাঙ্গির হোসেন, আবু তালেব, সবুর, আলম, মো.মুজিবর, আব্দুর রশিদ, মো.আলা, হাসান, সাংবাদিক মিহির রঞ্জন বিশ্বাস, সোনালী জুট মিল শ্রমিক নেতা লিয়াকত মুন্সি, মো.বাবুল খান, আফিলউদ্দিন, লুৎফর রহমান, তোফাজ্জেল হোসেন, মো.ওদুদ শরিফ, আবুল হোসেন, মো.দুলাল,দেলোয়ার, শাহিদুল, গিয়াসউদ্দিন, আব্দুল হাই, আব্দুর রশিদ প্রমুখ।
কেসিসি ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.সাইফুল ইসলাম বেলা ১টার সময় শরবত পান করিয়ে শ্রমিকদের অনশন ভাঙেন।

অনশন কর্মসূচিতে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ বলেন, বকেয়া পরিশোধের ব্যাপারে দীর্ঘদিন ধরে শান্তিপুর্ণ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসলেও শ্রমিকদের দাবি পুরণে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি। আগামী ১ ডিসেম্বর খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অনশন ও ৩ ডিসেম্বর ফুলবাড়ী গেটে শ্রমিক গণমিছিল কর্মসূচি ঘোষণা করেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

খুলনায় জুট মিল শ্রমিকদের অনশন 

 খুলনা ব্যুরো 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ১০:০৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নগরীর মিরেরডাঙ্গা শিল্প এলাকার এ্যাজাক্স জুট মিল শ্রমিক কর্মচারীদের চুড়ান্ত বকেয়া পাওনাদি এককালিন পরিশোধের জন্য অনশন শুরু করেছেন। 

জুট মিল চালু ও ৬ দফা দাবিতে বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল, শ্রমিক কর্মচারী 
ফেডারেশন ও এ্যাজাক্স জুট মিলের সাধারণ শ্রমিক কর্মচারীদের উদ্যোগে জুট পুর্বঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী অনশন কর্মসূচি পালিত হয়েছে।

সোমবার সকাল ১০টায় এ্যাজাক্স জুট মিলের শ্রমিক ক্লাবের সামনে অনশন কর্মসূচি পালন করেন সাধারণ শ্রমিক কর্মচারীরা। 

মিলের শ্রমিক নেতা মুক্তিযোদ্ধা ওয়াহেদ মুরাদের সভাপতিত্বে সোনালী জুট মিল ওয়াকার্স ইউনিয়নের সাবেক সাংগঠনিক সম্পাদক মো.বাবুল হোসেনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন কেসিসি ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.সাইফুল ইসলাম। 

বক্তব্য রাখেন বেসরকারী পাট, সুতা, বস্ত্রকল শ্রমিক কর্মচারী ফেডারেশনের সভাপতি শেখ আমজাদ হোসেন, সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল খান,  সংগঠনের সহসভাপতি আফিল জুট মিল মজদুর ইউনিয়নের শ্রমিক নেতা কাবিল হোসেন, নিজামউদ্দিন, মহসেন জুট মিলের শ্রমিক নেতা বীর মুক্তিযোদ্ধা ক্বারী আসহাফ উদ্দীন, বীর মুক্তিযোদ্ধা মাহাতাব উদ্দীন, আমির মুন্সি, জুট স্পিনার্স মিলের শ্রমিক নেতা মো.আলাউদ্দিন, কেসমত, জাহাঙ্গির হোসেন, আবু তালেব, সবুর, আলম, মো.মুজিবর, আব্দুর রশিদ, মো.আলা, হাসান, সাংবাদিক মিহির রঞ্জন বিশ্বাস, সোনালী জুট মিল শ্রমিক নেতা লিয়াকত মুন্সি, মো.বাবুল খান, আফিলউদ্দিন, লুৎফর রহমান, তোফাজ্জেল হোসেন, মো.ওদুদ শরিফ, আবুল হোসেন, মো.দুলাল,দেলোয়ার, শাহিদুল, গিয়াসউদ্দিন, আব্দুল হাই, আব্দুর রশিদ প্রমুখ। 
কেসিসি ওয়ার্ড কাউন্সিলর মো.সাইফুল ইসলাম বেলা ১টার সময় শরবত পান করিয়ে শ্রমিকদের অনশন ভাঙেন। 

অনশন কর্মসূচিতে শ্রমিক নেতৃবৃন্দ বলেন, বকেয়া পরিশোধের ব্যাপারে দীর্ঘদিন ধরে শান্তিপুর্ণ আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসলেও শ্রমিকদের দাবি পুরণে কোন পদক্ষেপ গ্রহন করা হয়নি। আগামী ১ ডিসেম্বর খুলনা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে অনশন ও ৩ ডিসেম্বর ফুলবাড়ী গেটে শ্রমিক গণমিছিল কর্মসূচি ঘোষণা করেন শ্রমিক নেতৃবৃন্দ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন