চাঁদা না দেয়ায় দুই শ্রমিককে সন্ত্রাসীদের অমানবিক নির্যাতন
jugantor
চাঁদা না দেয়ায় দুই শ্রমিককে সন্ত্রাসীদের অমানবিক নির্যাতন

  লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি  

২৯ নভেম্বর ২০২১, ২৩:৩০:৩২  |  অনলাইন সংস্করণ

লাখ টাকা চাঁদা না দেওয়ায় দুই কাঠ শ্রমিককে হাত-পা বেঁধে অমানবিক নির্যাতন করেছে এক দল পাহাড়ি সন্ত্রাসী।

বান্দরবানের লামা উপজেলায় সদর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড দুর্গম ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় সোমবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে।

এদিন রাত ৮টায় স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে লামা সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়।

আহতরা জানিয়েছেন, সোমবার দুপুর ১টায় ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল ঘিলাচন্দ্র পাড়া লামা উপজেলা সদর থেকে ২৪ কিলোমিটার উত্তর পূর্ব দিকে অবস্থিত।

আহতরা হলেন, লামা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের লামামুখ এলাকার মৃত আব্দুল কাদের এর ছেলে হারুণ অর রশিদ (৪৮) ও লামা সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা ল্যাংগা ঘোনা এলাকার মৃত আকবর হোসেনের ছেলে মো. আজিজ (২০)। আহতদের লামা হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

লামা হাসপাতালে জরুরি বিভাগের সহকারী মেডিকেল অফিসার ডা. বিবি ফাতেমা বলেন, এইভাবে মানুষ মানুষকে মারতে পারে! সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাদের চিকিৎসার জন্য আন্তঃবিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, পাহাড়ি সন্ত্রাসী কর্তৃক দুই গাছ শ্রমিককে মারধরের ঘটনা শুনেছি। এই বিষয়ে কেউ থানায় এখনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আহত কাঠ শ্রমিক হারুণ অর রশিদ বলেন, দুপুরে পাহাড়ে কাঠ কেটে আমরা কয়েকজন শ্রমিক ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় একটি দোকানে বসেছিলাম। তখন ৮/১০ জনের অস্ত্রধারী একটি পাহাড়ি সন্ত্রাসী গ্রুপ দোকানে এসে আমাদের ঘিরে ফেলে। তারা বলে তাদের সাথে যোগাযোগ না করে আমরা কেন গাছ কাটতে এসেছি। তাদের ১ লাখ টাকা চাঁদা না দিয়ে কেন গাছ কাটতে এসেছি, সে জন্য সন্ত্রাসীরা আমাদের দুইজনকে চোখ ও হাত-পা বেঁধে অমানবিকভাবে মারধর করে। ঘিলাচন্দ্র পাড়ার কারবারী চিকওয়া ত্রিপুরা ও সাবেক মেম্বার মারাং ত্রিপুরা তাদের জিম্মায় নিয়ে আমাদের সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আামদের রাত ৮টার দিকে লামা হাপাতালে নিয়ে আসে।

এই ঘটনায় লামা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন বলেন, দুর্গমে বাঙালিদের কোন নিরাপত্তা নেই। ঘটনাটি মর্মান্তিক।

চাঁদা না দেয়ায় দুই শ্রমিককে সন্ত্রাসীদের অমানবিক নির্যাতন

 লামা (বান্দরবান) প্রতিনিধি 
২৯ নভেম্বর ২০২১, ১১:৩০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

লাখ টাকা চাঁদা না দেওয়ায় দুই কাঠ শ্রমিককে হাত-পা বেঁধে অমানবিক নির্যাতন করেছে এক দল পাহাড়ি সন্ত্রাসী।

বান্দরবানের লামা উপজেলায় সদর ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড দুর্গম ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় সোমবার দুপুরে এই ঘটনা ঘটে। 

এদিন রাত ৮টায় স্থানীয়দের সহযোগিতায় আহতদের উদ্ধার করে লামা সরকারি হাসপাতালে নিয়ে আসা হয়। 

আহতরা জানিয়েছেন, সোমবার দুপুর ১টায় ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় এই ঘটনা ঘটে। ঘটনাস্থল ঘিলাচন্দ্র পাড়া লামা উপজেলা সদর থেকে ২৪ কিলোমিটার উত্তর পূর্ব দিকে অবস্থিত।

আহতরা হলেন, লামা পৌরসভার ৫নং ওয়ার্ডের লামামুখ এলাকার মৃত আব্দুল কাদের এর ছেলে হারুণ অর রশিদ (৪৮) ও লামা সদর ইউনিয়নের মেরাখোলা ল্যাংগা ঘোনা এলাকার মৃত আকবর হোসেনের ছেলে মো. আজিজ (২০)। আহতদের লামা হাসপাতালে ভর্তি রেখে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

লামা হাসপাতালে জরুরি বিভাগের সহকারী মেডিকেল অফিসার ডা. বিবি ফাতেমা বলেন, এইভাবে মানুষ মানুষকে মারতে পারে! সারা শরীরে আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। তাদের চিকিৎসার জন্য আন্তঃবিভাগে ভর্তি করা হয়েছে।

ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে লামা থানা পুলিশের অফিসার ইনচার্জ মোহাম্মদ মিজানুর রহমান বলেন, পাহাড়ি সন্ত্রাসী কর্তৃক দুই গাছ শ্রমিককে মারধরের ঘটনা শুনেছি। এই বিষয়ে কেউ থানায় এখনো অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে ব্যবস্থা নেয়া হবে।

আহত কাঠ শ্রমিক হারুণ অর রশিদ বলেন, দুপুরে পাহাড়ে কাঠ কেটে আমরা কয়েকজন শ্রমিক ঘিলাচন্দ্র পাড়ায় একটি দোকানে বসেছিলাম। তখন ৮/১০ জনের অস্ত্রধারী একটি পাহাড়ি সন্ত্রাসী গ্রুপ দোকানে এসে আমাদের ঘিরে ফেলে। তারা বলে তাদের সাথে যোগাযোগ না করে আমরা কেন গাছ কাটতে এসেছি। তাদের ১ লাখ টাকা চাঁদা না দিয়ে কেন গাছ কাটতে এসেছি, সে জন্য সন্ত্রাসীরা আমাদের দুইজনকে চোখ ও হাত-পা বেঁধে অমানবিকভাবে মারধর করে। ঘিলাচন্দ্র পাড়ার কারবারী চিকওয়া ত্রিপুরা ও সাবেক মেম্বার মারাং ত্রিপুরা তাদের জিম্মায় নিয়ে আমাদের সন্ত্রাসীদের হাত থেকে রক্ষা করে। পরে স্থানীয়দের সহায়তায় আামদের রাত ৮টার দিকে লামা হাপাতালে নিয়ে আসে।

এই ঘটনায় লামা সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মিন্টু কুমার সেন বলেন, দুর্গমে বাঙালিদের কোন নিরাপত্তা নেই। ঘটনাটি মর্মান্তিক।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন