নির্বাচনে হেরে কম্বল ফেরত নিলেন ইউপি সদস্য!
jugantor
নির্বাচনে হেরে কম্বল ফেরত নিলেন ইউপি সদস্য!

  যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল   

৩০ নভেম্বর ২০২১, ০০:১৭:২৯  |  অনলাইন সংস্করণ

নির্বাচনে হেরে যাওয়ার ক্ষোভে দুই বছর আগে দেয়া ৪ কম্বল ফেরত নিলেন মহিলা ইউপি সদস্য। টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রমেছা খানমের বিরুদ্ধে উঠেছে এমন অভিযোগ।

রোববার টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সহদেবপুর ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য পরাজিত হন সাবেক সদস্য রমেছা খানম। নির্বাচিত হন জোসনা বেগম।

অভিযোগে জানা যায়, প্রায় ২ বছর আগে শীতকালে পরিষদের অনুদানের টাকায় আকুয়া গ্রামের মকবুল হোসেন, আনু মিয়া, সংকু, বংকুকে একটি করে কম্বল দেন তৎকালীন সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রমেছা খানম। তবে এ সময় তিনি যাদের কম্বল দিয়েছিলেন তারা বিজয়ী প্রার্থী জোসনা বেগমের প্রতিবেশী। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার কারণেই রমেছা খানম তাদের কাছ থেকে ওই কম্বল গুলো ফেরত নিয়েছেন।

ভুক্তভোগী মকবুল হোসেন জানান, প্রায় ২ বছর আগে আমাদের চার ভাইকে চারটি কম্বল দিয়েছিলেন রমেছা খানম। রোববার হয়ে যাওয়া নির্বাচনে আমাদের পাশের বাড়ির প্রার্থী জোসনা বেগমের পক্ষে তারা কাজ করেন। এ জন্য আর রমেছা খানম পরাজিত হওয়ায় কম্বলগুলো ফেরত নিয়েছেন।

অনু মিয়া জানান, যে কাজটি রমেছা খানম করলেন তা এলাকাবাসী দেখলেন, গরিবদের প্রতি তার অবিচার আগে থেকেই। এ জন্যই তার পক্ষে নির্বাচন করিনি। এ কারণেই তিনি সোমবার সকালে এসে সব কম্বল নিয়ে গেছেন।

এ বিষয়ে সাবেক ইউপি সদস্য রমেছা খানম জানান, কম্বল ফেরত নেয়ার মতো তেমন কোন দামি কোন জিনিস হলো। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। বিরোধীরা এখন তার বিরুদ্ধে এ ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালানো শুরু করেছেন বলে দাবি করেছেন তিনি।

নির্বাচনে হেরে কম্বল ফেরত নিলেন ইউপি সদস্য!

 যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল  
৩০ নভেম্বর ২০২১, ১২:১৭ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নির্বাচনে হেরে যাওয়ার ক্ষোভে দুই বছর আগে দেয়া ৪ কম্বল ফেরত নিলেন মহিলা ইউপি সদস্য। টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯  নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রমেছা খানমের বিরুদ্ধে উঠেছে এমন অভিযোগ।

রোববার টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার সহদেবপুর ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে সহদেবপুর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য পরাজিত হন সাবেক সদস্য রমেছা খানম। নির্বাচিত হন জোসনা বেগম।
 
অভিযোগে জানা যায়, প্রায় ২ বছর আগে শীতকালে পরিষদের অনুদানের টাকায় আকুয়া গ্রামের মকবুল হোসেন, আনু মিয়া, সংকু, বংকুকে একটি করে কম্বল দেন তৎকালীন সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রমেছা খানম। তবে এ সময় তিনি যাদের কম্বল দিয়েছিলেন তারা বিজয়ী প্রার্থী জোসনা বেগমের প্রতিবেশী। নির্বাচনে পরাজিত হওয়ার কারণেই রমেছা খানম তাদের কাছ থেকে ওই কম্বল গুলো ফেরত নিয়েছেন।
 
ভুক্তভোগী মকবুল হোসেন জানান, প্রায় ২ বছর আগে আমাদের চার ভাইকে চারটি কম্বল দিয়েছিলেন রমেছা খানম। রোববার হয়ে যাওয়া নির্বাচনে আমাদের পাশের বাড়ির প্রার্থী জোসনা বেগমের পক্ষে তারা কাজ করেন। এ জন্য আর রমেছা খানম পরাজিত হওয়ায় কম্বলগুলো ফেরত নিয়েছেন।

অনু মিয়া জানান, যে কাজটি রমেছা খানম করলেন তা এলাকাবাসী দেখলেন, গরিবদের প্রতি তার অবিচার আগে থেকেই। এ জন্যই তার পক্ষে নির্বাচন করিনি। এ কারণেই তিনি সোমবার সকালে এসে সব কম্বল নিয়ে গেছেন।

এ বিষয়ে সাবেক ইউপি সদস্য রমেছা খানম জানান, কম্বল ফেরত নেয়ার মতো তেমন কোন দামি কোন জিনিস হলো। এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা কথা। বিরোধীরা এখন তার বিরুদ্ধে এ ধরনের মিথ্যা অপপ্রচার চালানো শুরু করেছেন বলে দাবি করেছেন তিনি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন