বিয়ের ৫ বছরে তিনবার আত্মহত্যার চেষ্টা প্রবাসীর স্ত্রীর, অতঃপর...
jugantor
বিয়ের ৫ বছরে তিনবার আত্মহত্যার চেষ্টা প্রবাসীর স্ত্রীর, অতঃপর...

  টঙ্গী পূর্ব (গাজীপুর) প্রতিনিধি  

৩০ নভেম্বর ২০২১, ১৫:১৮:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

আত্মহত্যা

গাজীপুরের টঙ্গীতে আফসানা মিমি (২২) নামে এক প্রবাসীর স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এর আগেও তিনি আরও দুবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে টঙ্গীর এরশাদনগর ৩নং ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আফসানা মিমি মাদারীপুরের কালকিনি থানার রায়পুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।

টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই ইয়াসিন আরাফাত জানান, ৫ বছর আগে দিদার হোসেনের সঙ্গে বিয়ে হয় আফসানা মিমির। গত চার বছর হলো তার স্বামী বাহরাইনে আছেন।

তবে স্বামী প্রবাসে যাওয়ার পর থেকেই মিমি তার মা-বাবার সঙ্গে এরশাদনগর ওই এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন। স্বামীর সংসারসহ খুঁটিনাটি বিষয়াদি নিয়ে মায়ের সঙ্গে মিমির কথা কাটাকাটি হতো। এতে তার মনে ক্ষোভ দানা বাধে। এরই জের ধরে মিমি মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৪টার দিকে পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘুমিয়ে থাকলে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের মায়ের বরাত দিয়ে ওই এসআই আরও জানান, এর আগেও দুবার আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন মিমি। দুবার প্রাণে বেঁচে গেলেও তৃতীয়বার প্রাণ গেল তার। মিমি কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল বলেও জানান তিনি।

টঙ্গী পূর্ব থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

বিয়ের ৫ বছরে তিনবার আত্মহত্যার চেষ্টা প্রবাসীর স্ত্রীর, অতঃপর...

 টঙ্গী পূর্ব (গাজীপুর) প্রতিনিধি 
৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৩:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
আত্মহত্যা
ফাইল ছবি

গাজীপুরের টঙ্গীতে আফসানা মিমি (২২) নামে এক প্রবাসীর স্ত্রী গলায় ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এর আগেও তিনি আরও দুবার আত্মহত্যার চেষ্টা করেছিলেন।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে টঙ্গীর এরশাদনগর ৩নং ব্লকে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত আফসানা মিমি মাদারীপুরের কালকিনি থানার রায়পুর গ্রামের আনোয়ার হোসেনের মেয়ে।

টঙ্গী পূর্ব থানার এসআই ইয়াসিন আরাফাত জানান, ৫ বছর আগে দিদার হোসেনের সঙ্গে বিয়ে হয় আফসানা মিমির। গত চার বছর হলো তার স্বামী বাহরাইনে আছেন।

তবে স্বামী প্রবাসে যাওয়ার পর থেকেই মিমি তার মা-বাবার সঙ্গে এরশাদনগর ওই এলাকায় বসবাস করে আসছিলেন। স্বামীর সংসারসহ খুঁটিনাটি বিষয়াদি নিয়ে মায়ের সঙ্গে মিমির কথা কাটাকাটি হতো। এতে তার মনে ক্ষোভ দানা বাধে। এরই জের ধরে মিমি মঙ্গলবার রাত সাড়ে ৪টার দিকে পরিবারের অন্য সদস্যরা ঘুমিয়ে থাকলে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

খবর পেয়ে পুলিশ নিহতের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাজীপুর শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

নিহতের মায়ের বরাত দিয়ে ওই এসআই আরও জানান, এর আগেও দুবার আত্মহত্যা করতে চেয়েছিলেন মিমি। দুবার প্রাণে বেঁচে গেলেও তৃতীয়বার প্রাণ গেল তার। মিমি কিছুটা মানসিক ভারসাম্যহীন ছিল বলেও জানান তিনি।

টঙ্গী পূর্ব থানার ইন্সপেক্টর (তদন্ত) মো. দেলোয়ার হোসেন চৌধুরী বলেন, এ ঘটনায় থানায় একটি অপমৃত্যুর মামলা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন