রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপি নেতা দুলুর জামিন
jugantor
রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপি নেতা দুলুর জামিন

  রাজশাহী ব্যুরো  

৩০ নভেম্বর ২০২১, ২০:২৬:৩০  |  অনলাইন সংস্করণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামিন পেয়েছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। মঙ্গলবার সকালে তিনি রাজশাহীর মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন।

শুনানি শেষে বিচারক শাহ মোহাম্মদ জাকির হোসেন তার জামিন মঞ্জুর করেন। এ সময় আদালত প্রাঙ্গণে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীও আদালত প্রাঙ্গণে জড়ো হন।

বিএনপি নেতা দুলুর আইনজীবী পারভেজ জাহেদী জানান, রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় গত সেপ্টেম্বর মাসে উচ্চ আদালত থেকে জামিন লাভ করেন বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। দুই মাসের আগাম এ জামিনের মেয়াদ ছিল ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। হাইকোর্টের আদেশ মোতাবেক নিম্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন নেওয়ার আবশ্যকতা ছিল। মঙ্গলবার বিএনপি নেতা দুলু রাজশাহীর মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্যে রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ হয়েছে দাবি করে গত ১৬ মার্চ দুলুসহ চার বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এ একটি মামলা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম।

মামলার অপর তিন আসামি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন আগেই আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন।

মামলার বাদী অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম বলেন, গত ২ মার্চ বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে মিজানুর রহমান মিনু তার বক্তব্যে বলেন, আজ রাত কাল নাও হতে পারে। পঁচাত্তর মনে নেই? এই বক্তব্য দিয়ে মিজানুর রহমানসহ সহযোগীরা রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ করেছেন।

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় বিএনপি নেতা দুলুর জামিন

 রাজশাহী ব্যুরো 
৩০ নভেম্বর ২০২১, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় জামিন পেয়েছেন বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাডভোকেট রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। মঙ্গলবার সকালে তিনি রাজশাহীর মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে হাজির হয়ে জামিনের আবেদন করেন।

শুনানি শেষে বিচারক শাহ মোহাম্মদ জাকির হোসেন তার জামিন মঞ্জুর করেন। এ সময় আদালত প্রাঙ্গণে বিপুলসংখ্যক পুলিশ মোতায়েন করা হয়। বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের বিপুলসংখ্যক নেতাকর্মীও আদালত প্রাঙ্গণে জড়ো হন।

বিএনপি নেতা দুলুর আইনজীবী পারভেজ জাহেদী জানান, রাষ্ট্রদ্রোহ মামলায় গত সেপ্টেম্বর মাসে উচ্চ আদালত থেকে জামিন লাভ করেন বিএনপি নেতা রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু। দুই মাসের আগাম এ জামিনের মেয়াদ ছিল ৩০ নভেম্বর পর্যন্ত। হাইকোর্টের আদেশ মোতাবেক নিম্ন আদালতে হাজির হয়ে জামিন নেওয়ার আবশ্যকতা ছিল। মঙ্গলবার বিএনপি নেতা দুলু রাজশাহীর মুখ্য মহানগর হাকিমের (সিএমএম) আদালতে হাজির হয়ে জামিন প্রার্থনা করলে বিচারক তার জামিন মঞ্জুর করেন।

আদালত সূত্রে জানা গেছে, গত ২ মার্চ রাজশাহীতে বিএনপির  বিভাগীয় সমাবেশে বক্তব্য দেন। ওই বক্তব্যে রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ হয়েছে দাবি করে গত ১৬ মার্চ দুলুসহ চার বিএনপি নেতার বিরুদ্ধে রাজশাহী মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট আদালত-৪ এ একটি মামলা করেন মহানগর আওয়ামী লীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম।

মামলার অপর তিন আসামি বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা মিজানুর রহমান মিনু, মহানগর বিএনপির সভাপতি মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল ও সাধারণ সম্পাদক শফিকুল হক মিলন আগেই আদালতে আত্মসমর্পণ করে জামিন নেন।

মামলার বাদী অ্যাডভোকেট মুসাব্বিরুল ইসলাম বলেন, গত ২ মার্চ বিএনপির বিভাগীয় সমাবেশে মিজানুর রহমান মিনু তার বক্তব্যে বলেন, আজ রাত কাল নাও হতে পারে। পঁচাত্তর মনে নেই? এই বক্তব্য দিয়ে মিজানুর রহমানসহ সহযোগীরা রাষ্ট্রদ্রোহের অপরাধ করেছেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন