একসঙ্গেই প্রাণ গেল ২ বন্ধুর
jugantor
একসঙ্গেই প্রাণ গেল ২ বন্ধুর

  বগুড়া ব্যুরো  

০১ ডিসেম্বর ২০২১, ০০:৫৯:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে ট্রাক ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই নিহত হলেন দুই বন্ধু।

ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের শেরপুরের কৃষ্ণপুর এলাকায় মঙ্গলবার রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন - সম্পদ (১৬) ও নাহিদ (১৮) । উপজেলার হৃদয় ইসলামের ছেলে সম্পদ এবং মির্জাপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত জাহিদুল ইসলামের ছেলে নাহিদ। দু’জনই স্থানীয় সামিট ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের ছাত্র।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সম্পদ ও নাহিদ মির্জাপুর বাজারে ঘুরতে গিয়েছিলেন। বাজার থেকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে কৃষ্ণপুর এলাকায় বগুড়া থেকে ঢাকাগামী একটি ১০ চাকার ট্রাকের সাথে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা দুই বন্ধু নিহত হন।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ওয়্যার হাউজ পরিদর্শক নাদির হোসেন জানান, নিহত দু’জনের মরদেহ উদ্ধার করে হাইওয়ে পুলিশ বগুড়া অঞ্চলের শেরপুর ফাঁড়ির কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পরে তাদের মরদেহ স্বজনদের কাছে দিয়েছেন তারা।

শেরপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, ঘাতক ট্রাক ও চালককে শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। নিহতের স্বজনরা এ ব্যাপারে
মামলা করলে তা নেওয়া হবে।

একসঙ্গেই প্রাণ গেল ২ বন্ধুর

 বগুড়া ব্যুরো 
০১ ডিসেম্বর ২০২১, ১২:৫৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

শেরপুরে ট্রাক ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখী সংঘর্ষে ঘটনাস্থলেই নিহত হলেন দুই বন্ধু। 

ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের শেরপুরের কৃষ্ণপুর এলাকায় মঙ্গলবার রাতে এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতরা হলেন - সম্পদ (১৬) ও নাহিদ (১৮) । উপজেলার হৃদয় ইসলামের ছেলে সম্পদ এবং মির্জাপুর ইউনিয়নের কৃষ্ণপুর গ্রামের মৃত জাহিদুল ইসলামের ছেলে নাহিদ। দু’জনই স্থানীয় সামিট ইন্টারন্যাশনাল স্কুল অ্যান্ড কলেজের উচ্চ মাধ্যমিক প্রথম বর্ষের ছাত্র।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, সম্পদ ও নাহিদ মির্জাপুর বাজারে ঘুরতে গিয়েছিলেন। বাজার থেকে রাত সাড়ে ৮টার দিকে মোটরসাইকেল নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে কৃষ্ণপুর এলাকায় বগুড়া থেকে ঢাকাগামী একটি ১০ চাকার ট্রাকের সাথে মুখোমুখী সংঘর্ষ হয়। এতে ঘটনাস্থলেই তারা দুই বন্ধু নিহত হন।

শেরপুর ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্সের ওয়্যার হাউজ পরিদর্শক নাদির হোসেন জানান, নিহত দু’জনের মরদেহ উদ্ধার করে হাইওয়ে পুলিশ বগুড়া অঞ্চলের শেরপুর ফাঁড়ির কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। পরে তাদের মরদেহ স্বজনদের কাছে দিয়েছেন তারা। 

শেরপুর থানার ওসি শহিদুল ইসলাম জানান, ঘাতক ট্রাক ও চালককে শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে। নিহতের স্বজনরা এ ব্যাপারে
মামলা করলে তা নেওয়া হবে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন