সাজেকে আগুনে পুড়ল পর্যটন রিসোর্ট
jugantor
সাজেকে আগুনে পুড়ল পর্যটন রিসোর্ট

  প্রতিনিধি, রাঙামাটি ও বাঘাইছড়ি  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৩:১০:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

সাজেক

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক পর্যটনকেন্দ্রে আগুনে পুড়ল চারটি রিসোর্ট, দুটি রেস্টুরেন্ট ও একটি বসতবাড়ি। এতে আনুমানিক প্রায় পাঁচ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্তদের।

বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে ‘অবকাশ’ নামে একটি রিসোর্ট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

জানা যায়, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৮০০ ফুট উচ্চ পাহাড়ে স্থাপিত সাজেক পর্যটনকেন্দ্রের ওই রিসোর্ট থেকে আগুন লাগার মুহূর্তেই আশপাশের রিসোর্ট ও স্থাপনায় ছড়িয়ে পড়ে।

সাজেক রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জেরি লুসাই বলেন, সেখানকার অবকাশ রিসোর্ট থেকে আগুন লেগে মুহূর্তেই আশপাশের সাজেক ইকো ভ্যালি, মেঘছুট রিসোর্ট, একটি নির্মাণাধীন রিসোর্টসহ মারুতি রেস্টুরেন্ট এবং জাকারিয়া লুসাইয়ের বসতঘর ভস্মীভূত হয়।

খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আকস্মিক এ অগ্নিকাণ্ডে পর্যটকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, আগুন লাগার আসল কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। সেনাবাহিনীর সহায়তায় বড় ধরনের বিপদ হতে রক্ষা পাওয়া গেছে। খাগড়াছড়ির দীঘিনালা থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ করেছে।

সাজেকে আগুনে পুড়ল পর্যটন রিসোর্ট

 প্রতিনিধি, রাঙামাটি ও বাঘাইছড়ি 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
সাজেক
ছবি: যুগান্তর

রাঙামাটির বাঘাইছড়ি উপজেলার সাজেক পর্যটনকেন্দ্রে আগুনে পুড়ল চারটি রিসোর্ট, দুটি রেস্টুরেন্ট ও একটি বসতবাড়ি। এতে আনুমানিক প্রায় পাঁচ কোটি টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে দাবি ক্ষতিগ্রস্তদের।

বৃহস্পতিবার ভোর ৪টার দিকে ‘অবকাশ’ নামে একটি রিসোর্ট থেকে আগুনের সূত্রপাত বলে জানিয়েছেন স্থানীয়রা।

জানা যায়, সমুদ্রপৃষ্ঠ থেকে ১৮০০ ফুট উচ্চ পাহাড়ে স্থাপিত সাজেক পর্যটনকেন্দ্রের ওই রিসোর্ট থেকে আগুন লাগার মুহূর্তেই আশপাশের রিসোর্ট ও স্থাপনায় ছড়িয়ে পড়ে।

সাজেক রিসোর্ট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক জেরি লুসাই বলেন, সেখানকার অবকাশ রিসোর্ট থেকে আগুন লেগে মুহূর্তেই আশপাশের সাজেক ইকো ভ্যালি, মেঘছুট রিসোর্ট, একটি নির্মাণাধীন রিসোর্টসহ মারুতি রেস্টুরেন্ট এবং জাকারিয়া লুসাইয়ের বসতঘর ভস্মীভূত হয়।

খবর পেয়ে তাৎক্ষণিক সেনাবাহিনী ও ফায়ার সার্ভিসের লোকজন গিয়ে প্রায় দুই ঘণ্টা চেষ্টার পর আগুন নিয়ন্ত্রণে আনেন। আকস্মিক এ অগ্নিকাণ্ডে পর্যটকদের মধ্যে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। আগুনে হতাহতের খবর পাওয়া যায়নি।

রাঙামাটি পার্বত্য জেলা প্রশাসক মো. মিজানুর রহমান বলেন, আগুন লাগার আসল কারণ খুঁজে বের করার চেষ্টা করছি। সেনাবাহিনীর সহায়তায় বড় ধরনের বিপদ হতে রক্ষা পাওয়া গেছে। খাগড়াছড়ির দীঘিনালা থেকে ফায়ার সার্ভিসের একটি দল গিয়ে আগুন নিয়ন্ত্রণের কাজ করেছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন