যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড
jugantor
যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

  যশোর ব্যুরো  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৮:০৯:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরে যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার দায়ে আকিমুল ইসলাম নামে একজনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দিয়েছেন আদালত।

বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক (জেলা জজ) নিলুফার শিরিন এ রায় ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর বিচারক দণ্ডিতকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন।

দণ্ডিত আকিমুল ইসলাম যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নায়ড়া গ্রামের মৃত অহেদ আলীর ছেলে। নিহত হালিমা খাতুন যশোরের শার্শা উপজেলার পুটখালি গ্রামের লিয়াকত আলীর মেয়ে।

স্পেশাল পিপি মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল সাংবাদিকদের জানান, দণ্ডিত আকিমুল ইসলাম যৌতুকের কারণে তার স্ত্রী হালিমা খাতুনকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন করত। এজন্য হালিমা খাতুন বিভিন্ন সময় পিতার কাছ থেকে টাকা এনে স্বামীকে দিতেন। সর্বশেষ আকিমুল ১৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। ২০১৩ সালের ৩১ মে হালিমা খাতুন তার পিতার কাছ থেকে এক লাখ টাকার একটি চেক এনে দেন। আকিমুল দাবিকৃত টাকা না পেয়ে হালিমাকে মারপিট করে। এতে অন্তঃসত্ত্বা হালিমা মারা যান।

এরপর আকিমুল ও তার পরিবারের লোকজন হালিমার মরদেহ ফেলে পালিয়ে যায়। প্রতিবেশীদের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে হালিমার বাড়ির লোকজন পুলিশের সহায়তায় মরদেহ উদ্ধার করেন। এরপর হালিমার পিতা লিয়াকত আলী বাদী হয়ে আকিমুল ইসলামের নামে ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর ঝিকরগাছা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন।

মামলার তদন্ত শেষে থানার এসআই কামাল হোসেন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বিজ্ঞ আদালত সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি আকিমুল ইসলামকে দোষী সাব্যস্ত করে বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করেন।

যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যা, স্বামীর মৃত্যুদণ্ড

 যশোর ব্যুরো 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৬:০৯ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

যশোরে যৌতুকের দাবিতে অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীকে হত্যার দায়ে আকিমুল ইসলাম নামে একজনকে মৃত্যুদণ্ড ও ৫০ হাজার টাকা জরিমানার রায় দিয়েছেন আদালত। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে যশোরের নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিজ্ঞ বিচারক (জেলা জজ) নিলুফার শিরিন এ রায়  ঘোষণা করেন। রায় ঘোষণার পর বিচারক দণ্ডিতকে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন। 

দণ্ডিত  আকিমুল ইসলাম যশোরের ঝিকরগাছা উপজেলার নায়ড়া গ্রামের মৃত অহেদ আলীর ছেলে। নিহত হালিমা খাতুন যশোরের শার্শা উপজেলার পুটখালি গ্রামের লিয়াকত আলীর মেয়ে।

স্পেশাল পিপি মোস্তাফিজুর রহমান মুকুল সাংবাদিকদের জানান, দণ্ডিত আকিমুল ইসলাম যৌতুকের কারণে তার স্ত্রী হালিমা খাতুনকে প্রায়ই শারীরিক নির্যাতন করত। এজন্য হালিমা খাতুন বিভিন্ন সময় পিতার কাছ থেকে টাকা এনে স্বামীকে দিতেন। সর্বশেষ আকিমুল ১৫ লাখ টাকা যৌতুক দাবি করে। ২০১৩ সালের ৩১ মে হালিমা খাতুন তার পিতার কাছ থেকে এক লাখ টাকার একটি  চেক এনে  দেন। আকিমুল দাবিকৃত টাকা না পেয়ে হালিমাকে মারপিট করে। এতে অন্তঃসত্ত্বা হালিমা মারা যান। 

এরপর আকিমুল ও তার পরিবারের লোকজন হালিমার মরদেহ ফেলে পালিয়ে যায়। প্রতিবেশীদের কাছ থেকে বিষয়টি জেনে হালিমার বাড়ির লোকজন পুলিশের সহায়তায় মরদেহ উদ্ধার করেন। এরপর হালিমার পিতা লিয়াকত আলী বাদী হয়ে আকিমুল ইসলামের নামে ২০১৩ সালের ১ সেপ্টেম্বর ঝিকরগাছা থানায় হত্যা মামলা দায়ের করেন। 

মামলার তদন্ত শেষে থানার এসআই কামাল হোসেন আসামির বিরুদ্ধে আদালতে চার্জশিট দাখিল করেন। বিজ্ঞ আদালত সাক্ষীদের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে আসামি আকিমুল ইসলামকে দোষী সাব্যস্ত করে বৃহস্পতিবার এ রায় ঘোষণা করেন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন