মাছ ধরতে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ল দুই বন্ধু
jugantor
মাছ ধরতে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ল দুই বন্ধু

  যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল   

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:৩১:১৪  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার ভাবলা এলাকার বুরবুরা বিলে মাছ ধরতে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে বাদল (২৬), মানিক (২৫) নামে দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় চানু মিয়া নামের অপর সাথী অল্পের জন্য রক্ষা পেলেও লাফ দিয়ে সরতে গিয়ে আহত হয়েছেন।

নিহতরা হলেন- মধুপুর উপজেলার মহিষমারা গ্রামের কুদ্রত আলীর ছেলে বাদল ও একই গ্রামের আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বাসিন্দা সুরজত আলী সুরুজ ছেলে মানিক।

বঙ্গবন্ধু সেতু রেলওয়ে স্টেশনের হেড বুকিং রেজাউল করিম বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উত্তরবঙ্গগামী কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে দুজন নিহত হন। বিষয়টি শোনার পরই আমরা রেলওয়ে পুলিশকে জানিয়েছি।

ঘারিন্দা রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আব্দুস সবুর জানান, ঘটনা শোনার পরপরই আমরা ঘটনাস্থলে যাই। আমরা পৌঁছার আগেই স্বজনরা লাশ দুটি নিয়ে গেছেন।

নিহতদের সঙ্গে থাকা মৎস্য শিকারি চানু মিয়া জানান, বাদল, মানিককে পেছন থেকে অনুসরণ করে রেললাইন ধরে চারজন হাঁটছিলেন। ২০-৫০ গজ দূরে এগিয়েই বিলে নেমে মাছ ধরা শুরু করতেন। এমন সময় পেছন থেকে ট্রেন আসে। অন্যরা দ্রুত সরে গেলেও চোখের পলকে ট্রেন বাদলকে পিষে আর মানিককে ধাক্কা দিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়।

মধুপুরের মহিষমারা ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মোতালেব হোসেন বলেন, রাতেই দুইজনের মরদেহ বাড়ি নিয়ে আসেন সঙ্গে থাকা অন্যরা। মানিকের ৮ দিনের সন্তানসহ স্ত্রী ও মা-বাবা রয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাদের লাশ দাফন করা হয়েছে।

মাছ ধরতে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ল দুই বন্ধু

 যুগান্তর প্রতিবেদন, টাঙ্গাইল  
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:৩১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

টাঙ্গাইলের কালিহাতী উপজেলার ভাবলা এলাকার বুরবুরা বিলে মাছ ধরতে যাওয়ার সময় ট্রেনে কাটা পড়ে বাদল (২৬), মানিক (২৫)  নামে দুই বন্ধুর মৃত্যু হয়েছে। এ সময় চানু মিয়া নামের অপর সাথী অল্পের জন্য রক্ষা পেলেও লাফ দিয়ে সরতে গিয়ে আহত হয়েছেন। 

নিহতরা হলেন- মধুপুর উপজেলার মহিষমারা গ্রামের কুদ্রত আলীর ছেলে বাদল ও একই গ্রামের আশ্রয়ণ কেন্দ্রের বাসিন্দা সুরজত আলী সুরুজ ছেলে মানিক।

বঙ্গবন্ধু সেতু রেলওয়ে স্টেশনের হেড বুকিং রেজাউল করিম বলেন, বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে উত্তরবঙ্গগামী কুড়িগ্রাম এক্সপ্রেস ট্রেনে কাটা পড়ে দুজন নিহত হন। বিষয়টি শোনার পরই আমরা রেলওয়ে পুলিশকে জানিয়েছি।

ঘারিন্দা রেলওয়ে পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ এএসআই আব্দুস সবুর জানান, ঘটনা শোনার পরপরই আমরা ঘটনাস্থলে যাই। আমরা পৌঁছার আগেই স্বজনরা লাশ দুটি নিয়ে গেছেন।

নিহতদের সঙ্গে থাকা মৎস্য শিকারি চানু মিয়া জানান, বাদল, মানিককে পেছন থেকে অনুসরণ করে রেললাইন ধরে চারজন হাঁটছিলেন। ২০-৫০ গজ দূরে এগিয়েই বিলে নেমে মাছ ধরা শুরু করতেন। এমন সময় পেছন থেকে ট্রেন আসে। অন্যরা দ্রুত সরে গেলেও চোখের পলকে ট্রেন বাদলকে পিষে আর মানিককে ধাক্কা দিয়ে যায়। ঘটনাস্থলেই তাদের মৃত্যু হয়। 

মধুপুরের মহিষমারা ইউপি চেয়ারম্যান কাজী মোতালেব হোসেন বলেন, রাতেই দুইজনের মরদেহ বাড়ি নিয়ে আসেন সঙ্গে থাকা অন্যরা। মানিকের ৮ দিনের সন্তানসহ স্ত্রী ও মা-বাবা রয়েছেন। বৃহস্পতিবার দুপুরে জানাজা শেষে স্থানীয় কবরস্থানে তাদের লাশ দাফন করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন