শিক্ষকের পকেটে মোবাইল, দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি
jugantor
শিক্ষকের পকেটে মোবাইল, দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

  সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

০২ ডিসেম্বর ২০২১, ২২:০১:২৬  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরিদর্শকের কাছে মোবাইল পাওয়ায় মীর মোহাম্মদ নূর উদ্দীন নামে এক শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষক মীর মোহাম্মদ নূর উদ্দীন ওই কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক ছিলেন। তিনি এইচএসসি বিএম ভোকেশনাল শাখার একটি কক্ষে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

জানা গেছে, সকালে সাতকানিয়া-বান্দরবান সড়কের বাজালিয়ায় অবস্থিত কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাতেমা তুজ জোহরা। সেখানে বিএম ভোকেশনাল শাখার একটি কক্ষে তিনি পরিদর্শকের কাছে মোবাইল ফোন দেখতে পেয়ে সঙ্গে কেন্দ্র সচিবকে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা তুজ জোহরা বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে সব ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার নিষিদ্ধ। চলমান এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় একটি কেন্দ্রে শিক্ষকের হাতে মোবাইল দেখতে পেয়ে কেন্দ্র সচিবকে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব আবুল কাশেম বলেন, পরীক্ষা চলাকালীন পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কেউই মোবাইল কিংবা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন না। কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে ইউএনও ওই শিক্ষকের কাছে মোবাইল পেয়েছেন। তাই পরীক্ষা পরিচালনা কার্যবিধি লঙ্ঘন করায় তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এখন তিনি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কোনো কাজের সঙ্গে আর যুক্ত থাকবেন না।

শিক্ষকের পকেটে মোবাইল, দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি

 সাতকানিয়া (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
০২ ডিসেম্বর ২০২১, ১০:০১ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্রে পরিদর্শকের কাছে মোবাইল পাওয়ায় মীর মোহাম্মদ নূর উদ্দীন নামে এক শিক্ষককে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। বৃহস্পতিবার কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজ কেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

শিক্ষক মীর মোহাম্মদ নূর উদ্দীন ওই কলেজের গণিত বিভাগের প্রভাষক ছিলেন। তিনি এইচএসসি বিএম ভোকেশনাল শাখার একটি কক্ষে পর্যবেক্ষকের দায়িত্ব পালন করছিলেন।

জানা গেছে, সকালে সাতকানিয়া-বান্দরবান সড়কের বাজালিয়ায় অবস্থিত কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজের এইচএসসি পরীক্ষা কেন্দ্র পরিদর্শনে যান উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ফাতেমা তুজ জোহরা। সেখানে বিএম ভোকেশনাল শাখার একটি কক্ষে তিনি পরিদর্শকের কাছে মোবাইল ফোন দেখতে পেয়ে সঙ্গে কেন্দ্র সচিবকে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার নির্দেশ দেন। 

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ফাতেমা তুজ জোহরা বলেন, পরীক্ষা কেন্দ্রে সব ধরনের ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার নিষিদ্ধ। চলমান এইচএসসি পরীক্ষার কেন্দ্র পরিদর্শনের সময় একটি কেন্দ্রে শিক্ষকের হাতে মোবাইল দেখতে পেয়ে কেন্দ্র সচিবকে তার বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নির্দেশ দিয়েছি।

কর্নেল (অব.) অলি আহমদ বীরবিক্রম ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ ও কেন্দ্র সচিব আবুল কাশেম বলেন, পরীক্ষা চলাকালীন পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কেউই মোবাইল কিংবা ইলেকট্রনিক ডিভাইস ব্যবহার করতে পারবেন না। কেন্দ্র পরিদর্শনে এসে ইউএনও ওই শিক্ষকের কাছে মোবাইল পেয়েছেন। তাই পরীক্ষা পরিচালনা কার্যবিধি লঙ্ঘন করায় তাকে দায়িত্ব থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। এখন তিনি পরীক্ষা সংশ্লিষ্ট কোনো কাজের সঙ্গে আর যুক্ত থাকবেন না।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন