বাবার আঘাতে শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ, মায়ের মামলা
jugantor
বাবার আঘাতে শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ, মায়ের মামলা

  চট্টগ্রাম ব্যুরো  

০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:১২:২০  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামে এক পাষণ্ড বাবার বিরুদ্ধে আড়াই বছরের শিশুপুত্রকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত শিশুর নাম মানিক হোসেন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে শিশুটি মারা যায়।

ইপিজেড থানার প্রি-পোর্ট ২ নম্বর মাইলের মাথা জনি কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শিশুটির মা আম্বিয়া খাতুন শিশুর বাবা মামুন হোসেনের বিরুদ্ধে ইপিজেড থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

পুলিশ জানায়, ভিকটিম শিশুর মা আম্বিয়া খাতুন ও বাবা মামুন গার্মেন্টে চাকরি করেন। কাজ শেষে মা বাসায় ফিরে শিশুটির মুখে দাগ ও অচেতন অবস্থায় দেখতে পান। পরবর্তীতে স্বামী-স্ত্রী একত্রে শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য বের হলেও মামুন কৌশলে ঘটনাস্থল থেকে তাৎক্ষণিকভাবে পালিয়ে যান।

শিশুটিকে বুধবার রাত ৮টার দিকে প্রথমে আশ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাত সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

ইপিজেড থানার ওসি কবিরুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, বাবার আঘাতে শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে মায়ের অভিযোগ। ঘটনার পর থেকে ওই শিশুর বাবা পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেফতার চেষ্টা চলছে।

বাবার আঘাতে শিশুর মৃত্যুর অভিযোগ, মায়ের মামলা

 চট্টগ্রাম ব্যুরো 
০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০১:১২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামে এক পাষণ্ড বাবার বিরুদ্ধে আড়াই বছরের শিশুপুত্রকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। নিহত শিশুর নাম মানিক হোসেন। চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বুধবার রাত সাড়ে ১২টার দিকে শিশুটি মারা যায়।

ইপিজেড থানার প্রি-পোর্ট ২ নম্বর মাইলের মাথা জনি কলোনি এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় শিশুটির মা আম্বিয়া খাতুন শিশুর বাবা মামুন হোসেনের বিরুদ্ধে ইপিজেড থানায় একটি হত্যা মামলা করেছেন।

পুলিশ জানায়, ভিকটিম শিশুর মা আম্বিয়া খাতুন ও বাবা মামুন গার্মেন্টে চাকরি করেন। কাজ শেষে মা বাসায় ফিরে শিশুটির মুখে দাগ ও অচেতন অবস্থায় দেখতে পান। পরবর্তীতে স্বামী-স্ত্রী একত্রে শিশুটিকে চিকিৎসকের কাছে নিয়ে যাওয়ার জন্য বের হলেও মামুন কৌশলে ঘটনাস্থল থেকে তাৎক্ষণিকভাবে পালিয়ে যান।

শিশুটিকে বুধবার রাত ৮টার দিকে প্রথমে আশ্রাবাদ মা ও শিশু হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় রাত সাড়ে ১২টার দিকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করে। এ ঘটনায় ভিকটিমের মা বাদী হয়ে তার স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা করেছেন।

ইপিজেড থানার ওসি কবিরুল ইসলাম যুগান্তরকে বলেন, বাবার আঘাতে শিশুর মৃত্যু হয়েছে বলে মায়ের অভিযোগ। ঘটনার পর থেকে ওই শিশুর বাবা পলাতক রয়েছেন। তাকে গ্রেফতার চেষ্টা চলছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন