বিয়ের জন্য শিশু অপহরণ, তরুণী গ্রেফতার
jugantor
বিয়ের জন্য শিশু অপহরণ, তরুণী গ্রেফতার

  মৌলভীবাজার প্রতিনিধি  

০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:২০:৩৭  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার ওমান প্রবাসী জুবেল আহমদের (২৬) সঙ্গে বিয়ের কথাবার্তা চলছিল ওসমানীনগর থানার পশ্চিম রুকনপুর গ্রামের রোয়েনা আক্তার রিয়ার (২১)। আলাপ-আলোচনায় সমঝোতা না হওয়ায় বিয়ের বিষয়টি থেমে যায়। ওই যুবককে বিয়ে করতে পাত্রী পরিচিত কয়েকজনের সহযোগিতায় পাত্রের ২২ মাস বয়সী ভাতিজাকে অপহরণ করে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজনগর উপজেলার উত্তরভাগ ইউনিয়নের কেশরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অপহরণের ২৪ ঘণ্টা পর শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে রাজনগর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় মূলহোতা হিসেবে ওই তরুণীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ওমান প্রবাসী ছোট ভাইয়ের বন্ধু পরিচয় দিয়ে উপজেলার কেশরপাড়া গ্রামের জাবেদ আহমদের বাড়িতে যায় দুই যুবক। এ সময় চা-নাস্তা খাওয়ার পর জাবেদ আহমদের ২২ মাস বয়সী শিশু সাইফকে নিয়ে রিচার্জ কার্ড কেনার কথা বলে বের হয় তারা। পরে তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকারে শিশুটিকে নিয়ে তারা পালিয়ে যায়।

৪-৫ ঘণ্টা পর শিশুটির দাদির ফোনে কল করে জানানো হয় তাকে ফিরে পেতে হলে জুবেল আহমদের সঙ্গে যে মেয়ের বিয়ের কথাবার্তা চলছে তার সঙ্গে বিয়ে করাতে হবে। বিষয়টি জাবেদ আহমদ থানায় অভিযোগ করলে রাজনগর থানার এসআই মো. নূর উদ্দিনের নেতৃত্বে প্রযুক্তির সহায়তায় অবস্থান নিশ্চিত হয়ে শুক্রবার বিকালে সিলেটের ওসমানীনগর থানার তাজপুর বাজারের কদমতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ।

এ সময় ওসমানীনগর থানার পশ্চিম রুকনপুর এলাকার মৃত কনাই মিয়ার মেয়ে রোয়েনা আক্তার রিয়াকে (২১) গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে রাজনগর থানায় মামলা হয়েছে।

শনিবার বিকালে প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. জিয়াউর রহমান। তিনি বলেন, শিশুটিকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত আছে।

বিয়ের জন্য শিশু অপহরণ, তরুণী গ্রেফতার

 মৌলভীবাজার প্রতিনিধি 
০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:২০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

মৌলভীবাজারের রাজনগর উপজেলার ওমান প্রবাসী জুবেল আহমদের (২৬) সঙ্গে বিয়ের কথাবার্তা চলছিল ওসমানীনগর থানার পশ্চিম রুকনপুর গ্রামের রোয়েনা আক্তার রিয়ার (২১)। আলাপ-আলোচনায় সমঝোতা না হওয়ায় বিয়ের বিষয়টি থেমে যায়। ওই যুবককে বিয়ে করতে পাত্রী পরিচিত কয়েকজনের সহযোগিতায় পাত্রের ২২ মাস বয়সী ভাতিজাকে অপহরণ করে। 

বৃহস্পতিবার দুপুরে রাজনগর উপজেলার উত্তরভাগ ইউনিয়নের কেশরপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। অপহরণের ২৪ ঘণ্টা পর শিশুকে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দিয়েছে রাজনগর থানা পুলিশ। এ ঘটনায় মূলহোতা হিসেবে ওই তরুণীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, গত বৃহস্পতিবার দুপুরে ওমান প্রবাসী ছোট ভাইয়ের বন্ধু পরিচয় দিয়ে উপজেলার কেশরপাড়া গ্রামের জাবেদ আহমদের বাড়িতে যায় দুই যুবক। এ সময় চা-নাস্তা খাওয়ার পর জাবেদ আহমদের ২২ মাস বয়সী শিশু সাইফকে নিয়ে রিচার্জ কার্ড কেনার কথা বলে বের হয় তারা। পরে তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেটকারে শিশুটিকে নিয়ে তারা পালিয়ে যায়।

৪-৫ ঘণ্টা পর শিশুটির দাদির ফোনে কল করে জানানো হয় তাকে ফিরে পেতে হলে জুবেল আহমদের সঙ্গে যে মেয়ের বিয়ের কথাবার্তা চলছে তার সঙ্গে বিয়ে করাতে হবে। বিষয়টি জাবেদ আহমদ থানায় অভিযোগ করলে রাজনগর থানার এসআই মো. নূর উদ্দিনের নেতৃত্বে প্রযুক্তির সহায়তায় অবস্থান নিশ্চিত হয়ে শুক্রবার বিকালে সিলেটের ওসমানীনগর থানার তাজপুর বাজারের কদমতলী এলাকায় অভিযান চালিয়ে শিশুকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে পুলিশ। 

এ সময় ওসমানীনগর থানার পশ্চিম রুকনপুর এলাকার মৃত কনাই মিয়ার মেয়ে রোয়েনা আক্তার রিয়াকে (২১) গ্রেফতার করে। এ ঘটনায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে রাজনগর থানায় মামলা হয়েছে।

শনিবার বিকালে প্রেস ব্রিফিংয়ে এসব তথ্য নিশ্চিত করেন অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. জিয়াউর রহমান। তিনি বলেন, শিশুটিকে অক্ষত অবস্থায় উদ্ধার করে মায়ের কোলে ফিরিয়ে দেওয়া হয়েছে। অপহরণের মূল পরিকল্পনাকারীকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকি আসামিদেরও গ্রেফতার করতে অভিযান অব্যাহত আছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন