থানার সামনে সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ১০
jugantor
থানার সামনে সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ১০

  নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি  

০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ১৯:২৪:৫৮  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানার সামনে দুইপক্ষের সংঘর্ষে ওসিসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চাপাতি ও দেশীয় অস্ত্রসহ উভয়পক্ষের ৬ জনকে আটক করেছে।

সূত্র জানায়, নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়নের নবীপুর ও পৌর এলাকার আলমনগর গ্রামের যুবকদের মধ্যে গত কয়েক মাস যাবত বিরোধ চলছিল। এর জেরে শনিবার নবীপুরের শাওন নামে এক যুবককে শ্রীরামপুর এলাকায় সিএনজি থেকে নামিয়ে মারধর করা হয়। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিকালে নবীনগর থানা গেটের সামনে শাওনের মামা কাউসার মিয়ার সঙ্গে আলমনগর গ্রামের রাজিব ও রবিনের বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে ওসি আমিনুর রশিদ, এসআই আজিজুর রহমান শেখ, এসআই মামুনুর রশীদ, মনিরুল ইসলাম, এসআই আশ্রাফুল ইসলামসহ ৮ জন আহত হন।

সংঘর্ষে আহতদের চিকিৎসার জন্য নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে আরেক দফা সংঘর্ষ হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ মেহেদী হাসান, শাওন, কাউছার, ছুবুর, পাবেল ও রাজিবকে আটক করে।

ঘটনার বিষয়ে নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুর রশিদ বলেন, দুই গ্রামের যুবকদের মধ্যে পূর্ববিরোধের জেরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তিনিসহ ৪ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন জানিয়ে ওসি বলেন, মেহেদী ও রাজিবসহ ৬ জনকে আটক করা হয়েছে।

থানার সামনে সংঘর্ষ, ওসিসহ আহত ১০

 নবীনগর (ব্রাহ্মণবাড়িয়া) প্রতিনিধি 
০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৭:২৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নবীনগর থানার সামনে দুইপক্ষের সংঘর্ষে ওসিসহ ১০ জন আহত হয়েছেন। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে চাপাতি ও দেশীয় অস্ত্রসহ উভয়পক্ষের ৬ জনকে আটক করেছে।

সূত্র জানায়, নবীনগর পশ্চিম ইউনিয়নের নবীপুর ও পৌর এলাকার আলমনগর গ্রামের যুবকদের মধ্যে গত কয়েক মাস যাবত বিরোধ চলছিল। এর জেরে শনিবার নবীপুরের শাওন নামে এক যুবককে শ্রীরামপুর এলাকায় সিএনজি থেকে নামিয়ে মারধর করা হয়। এ সংবাদ ছড়িয়ে পড়লে বিকালে নবীনগর থানা গেটের সামনে শাওনের মামা কাউসার মিয়ার সঙ্গে আলমনগর গ্রামের রাজিব ও রবিনের বাগবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে তারা সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনার চেষ্টা করলে ওসি আমিনুর রশিদ, এসআই আজিজুর রহমান শেখ, এসআই মামুনুর রশীদ, মনিরুল ইসলাম, এসআই আশ্রাফুল ইসলামসহ ৮ জন আহত হন।
 
সংঘর্ষে আহতদের চিকিৎসার জন্য নবীনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে আরেক দফা সংঘর্ষ হয়।

এ ঘটনায় পুলিশ মেহেদী হাসান, শাওন, কাউছার, ছুবুর, পাবেল ও রাজিবকে আটক করে।

ঘটনার বিষয়ে নবীনগর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আমিনুর রশিদ বলেন, দুই গ্রামের যুবকদের মধ্যে পূর্ববিরোধের জেরে সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় তিনিসহ ৪ পুলিশ কর্মকর্তা আহত হয়েছেন জানিয়ে ওসি বলেন, মেহেদী ও রাজিবসহ ৬ জনকে আটক করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন