২ মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা
jugantor
২ মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

  গাজীপুর প্রতিনিধি  

০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ২১:৪৩:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরে একটি ফ্ল্যাট বাসায় মা তার দুই কন্যাসন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে এবং শিশু দুটিকে ওই হাসপাতাল মর্গে পাঠায়।

শনিবার সন্ধ্যার পর মহানগরীর পশ্চিম জয়দেবপুর মোক্তারটেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

নিহত দুই শিশু হচ্ছে- তাসনিহা জাহান তারিহা (৪) ও তাসমিম জাহান বুশরা (সাত মাস)। তাদের পিতার নাম বিল্লাল হোসেন। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার বড় আলমপুর গ্রামে। তিনি গাজীপুরে ওই বাসায় ভাড়া থেকে ভবন নির্মাণের সয়েল টেস্টের মিস্ত্রির কাজ করতেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ) জাকির হাসান জানান, তিন মাস আগে ওই এলাকার নাসরিন মঞ্জিলের সামসুল হকের তিনতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় ভাড়ায় উঠেন বিল্লাল হোসেন। গত দুই দিন আগে ভাড়াটিয়া বিল্লাল হোসেন তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা থেকে স্ত্রী এবং দুই শিশুসন্তানকে ভাড়া বাসায় নিয়ে আসেন।

শনিবার সন্ধ্যার কিছু পর বিল্লাল দোকানে যান শিশুদের খাবার আনার জন্য। এই ফাঁকে তার স্ত্রী ঘরের দরজা বন্ধ করে তার দুই শিশুকে শ্বাসরোধে হত্যার পর নিজে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে স্বামী বিল্লাল হোসেন বাসায় এসে দেখেন ঘরের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করা।

তিনি অনেক ডাকাডাকির পরও কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে বাড়িওয়ালা ও আশপাশের লোকদের ডাক দিলে তারা ভবনের বাইরে গিয়ে জানালা দিয়ে দেখতে পান দুই বাচ্চা বিছানায় পড়ে আছে। সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন ওই মা। পরে তারা দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে দুই শিশুকে মৃত অবস্থায় এবং তাদের মাকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে।

পরে থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু দুটিকে মৃত বলে জানান এবং তাদের মাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি আরও জানান, বিল্লালের স্ত্রী লিজা বেগম (২৫) মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ ছিল। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

২ মেয়েকে হত্যার পর মায়ের আত্মহত্যার চেষ্টা

 গাজীপুর প্রতিনিধি 
০৪ ডিসেম্বর ২০২১, ০৯:৪৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

গাজীপুরে একটি ফ্ল্যাট বাসায় মা তার দুই কন্যাসন্তানকে হত্যার পর আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে পুলিশ ওই নারীকে উদ্ধার করে শহীদ তাজউদ্দীন আহমদ মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে এবং শিশু দুটিকে ওই হাসপাতাল মর্গে পাঠায়। 

শনিবার সন্ধ্যার পর মহানগরীর পশ্চিম জয়দেবপুর মোক্তারটেক এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। 

নিহত দুই শিশু হচ্ছে- তাসনিহা জাহান তারিহা (৪) ও তাসমিম জাহান বুশরা (সাত মাস)। তাদের পিতার নাম বিল্লাল হোসেন। তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লার দেবিদ্বার থানার বড় আলমপুর গ্রামে। তিনি গাজীপুরে ওই বাসায় ভাড়া থেকে ভবন নির্মাণের সয়েল টেস্টের মিস্ত্রির কাজ করতেন।

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের উপকমিশনার (অপরাধ) জাকির হাসান জানান, তিন মাস আগে ওই এলাকার নাসরিন মঞ্জিলের সামসুল হকের তিনতলা বাড়ির দ্বিতীয় তলায় ভাড়ায় উঠেন বিল্লাল হোসেন। গত দুই দিন আগে ভাড়াটিয়া বিল্লাল হোসেন তাদের গ্রামের বাড়ি কুমিল্লা থেকে স্ত্রী এবং দুই শিশুসন্তানকে ভাড়া বাসায় নিয়ে আসেন। 

শনিবার সন্ধ্যার কিছু পর বিল্লাল দোকানে যান শিশুদের খাবার আনার জন্য। এই ফাঁকে তার স্ত্রী ঘরের দরজা বন্ধ করে তার দুই শিশুকে শ্বাসরোধে হত্যার পর নিজে ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে স্বামী বিল্লাল হোসেন বাসায় এসে দেখেন ঘরের ভেতর থেকে দরজা বন্ধ করা। 

তিনি অনেক ডাকাডাকির পরও কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে বাড়িওয়ালা ও আশপাশের লোকদের ডাক দিলে তারা ভবনের বাইরে গিয়ে জানালা দিয়ে দেখতে পান দুই বাচ্চা বিছানায় পড়ে আছে। সিলিং ফ্যানের সঙ্গে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করছেন ওই মা। পরে তারা দরজা ভেঙে ভেতরে প্রবেশ করে দুই শিশুকে মৃত অবস্থায় এবং তাদের মাকে অজ্ঞান অবস্থায় উদ্ধার করে। 

পরে থানা পুলিশ ও স্থানীয়রা তাদের হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক শিশু দুটিকে মৃত বলে জানান এবং তাদের মাকে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। তিনি আরও জানান, বিল্লালের স্ত্রী লিজা বেগম (২৫) মানসিকভাবে কিছুটা অসুস্থ ছিল। বিষয়টি তদন্ত করে দেখা হবে। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা প্রক্রিয়াধীন।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন