হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
jugantor
হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

  হাকিমপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি  

০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ১৫:০৩:১৬  |  অনলাইন সংস্করণ

হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

ভারত থেকে রপ্তানিকৃত পণ্যের ওজন বাংলাদেশের কাটায় কম হওয়ার প্রতিবাদে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছেন ভারতীয় ট্রাকচালকরা।

রোববার সকালে ভারত থেকে পণ্য রপ্তানির শুরুর আধাঘণ্টা পর বেলা ১১টা থেকে ভারতীয় ট্রাকচালকরা বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। পরে ভারতীয় ট্রাকচালকরা একত্র হয়ে হিলি জিরো পয়েন্ট গেটে ভারতের অভ্যন্তরে বিক্ষোভ করতে থাকে।

ভারত হিলি ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সুজন হেন্ডমাইকে জানান, বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানির আগে ভারতীয় কাটায় পণ্যের ওজন করেই রপ্তানি হয়। অথচ পানামার স্কেলে ওজন কম হচ্ছে। যার কারণে পণ্যে রপ্তানি বন্ধ রাখা হয়েছে। বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানিতে ভারতের কাটার ওজন দিয়েই পণ্য নিতে হবে। বাংলাদেশের কোনো ওজন তারা মানবেন না। তা ছাড়া বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ থাকবে।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি গ্রুপের সভাপতি হারুন-উর রশিদ জানান, ভারত থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাক হিলি বন্দর স্কেলে ওজন করে দেখা যায় ওই দেশের ওজনের সঙ্গে এদেশের ওজন কম হচ্ছে।

এ বিষয়ে কয়েক দিন আগে তাদের অভিযোগ করা হয়। এতে করে ভারতের কয়েকটি পণ্যবাহী ট্রাক বন্দরের বাহিরের স্কেলে পরীক্ষার জন্য ওজন করা হয়। তাতেও তাদের ওজনে কম পাওয়া যায়। এই কারণে ভারতীয় ট্রাক চালক সমিতিরা হিলি বন্দরে পণ্যবাহী ট্রাক আনা বন্ধ করে দিয়েছে। এর পরও যদি সঠিক সুরাহা না হয়, তা হলে আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এদিকে হিলি কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা এএসএম মাহমুদুল হাসান জানান, সকাল থেকে তিনটি ট্রাক প্রবেশ করার পর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ করে দেন ভারতীয় ট্রাকচালকরা। তবে কি কারণে বন্ধ করেছে তা পরে জানানো হবে।

হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ

 হাকিমপুর (দিনাজপুর) প্রতিনিধি 
০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৩:০৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
হিলি স্থলবন্দরে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ
ছবি: যুগান্তর

ভারত থেকে রপ্তানিকৃত পণ্যের ওজন বাংলাদেশের কাটায় কম হওয়ার প্রতিবাদে দিনাজপুরের হিলি স্থলবন্দর দিয়ে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দিয়েছেন ভারতীয় ট্রাকচালকরা।

রোববার সকালে ভারত থেকে পণ্য রপ্তানির শুরুর আধাঘণ্টা পর বেলা ১১টা থেকে ভারতীয় ট্রাকচালকরা বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ করে দেয়। পরে ভারতীয় ট্রাকচালকরা একত্র হয়ে হিলি জিরো পয়েন্ট গেটে ভারতের অভ্যন্তরে বিক্ষোভ করতে থাকে।

ভারত হিলি ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি সুজন হেন্ডমাইকে জানান, বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানির আগে ভারতীয় কাটায় পণ্যের ওজন করেই রপ্তানি হয়। অথচ পানামার স্কেলে ওজন কম হচ্ছে। যার কারণে পণ্যে রপ্তানি বন্ধ রাখা হয়েছে। বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানিতে ভারতের কাটার ওজন দিয়েই পণ্য নিতে হবে। বাংলাদেশের কোনো ওজন তারা মানবেন না। তা ছাড়া বাংলাদেশে পণ্য রপ্তানি বন্ধ থাকবে।

হিলি স্থলবন্দরের আমদানি-রপ্তানি গ্রুপের সভাপতি হারুন-উর রশিদ জানান, ভারত থেকে আসা পণ্যবাহী ট্রাক হিলি বন্দর স্কেলে ওজন করে দেখা যায় ওই দেশের ওজনের সঙ্গে এদেশের ওজন কম হচ্ছে।

এ বিষয়ে কয়েক দিন আগে তাদের অভিযোগ করা হয়। এতে করে ভারতের কয়েকটি পণ্যবাহী ট্রাক বন্দরের বাহিরের স্কেলে পরীক্ষার জন্য ওজন করা হয়। তাতেও তাদের ওজনে কম পাওয়া যায়। এই কারণে ভারতীয় ট্রাক চালক সমিতিরা হিলি বন্দরে পণ্যবাহী ট্রাক আনা বন্ধ করে দিয়েছে। এর পরও যদি সঠিক সুরাহা না হয়, তা হলে আমরা আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করব।

এদিকে হিলি কাস্টমসের রাজস্ব কর্মকর্তা এএসএম মাহমুদুল হাসান জানান, সকাল থেকে তিনটি ট্রাক প্রবেশ করার পর হিলি স্থলবন্দর দিয়ে আমদানি-রপ্তানি বন্ধ করে দেন ভারতীয় ট্রাকচালকরা। তবে কি কারণে বন্ধ করেছে তা পরে জানানো হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন