স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় যুবকের আত্মহত্যা
jugantor
স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় যুবকের আত্মহত্যা

  ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি  

০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:৪৫:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় ভৈরবে স্বামী ইব্রাহিম মিয়া (২২) আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার মধ্যরাতে তিনি নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

ইব্রাহিম মিয়া শহরের ভৈরবপুর উত্তরপাড়া এলাকার আমির হোসেনের ছেলে। বৃহস্পতিবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ পাঠিয়েছে।

তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর সঙ্গে রাগ করে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে।

জানা গেছে, ইব্রাহিম গত ৫ বছর আগে কোকিলা বেগম নামের এক মেয়েকে বিয়ে করেন। তাদের একটি ছেলেসন্তানও রয়েছে। গত ৪ মাস আগে ঝগড়া করে কোকিলা বেগম তার স্বামীকে তালাক দিয়ে বাপের বাড়ি চলে যান। এরপর অনেক চেষ্টা করেও স্ত্রীকে বাড়িতে আনতে না পেরে বুধবার রাতে তিনি আত্মহত্যা করেন।

নিহতের মা রোহেনা বেগম জানান, গত ৪ মাস আগে আমার ছেলের বউ তাকে তালাক দিয়ে বাপের বাড়ি চলে যান। বুধবার রাতে খাওয়া-দাওয়ার পর সে তার রুমে চলে যায়। সকালে ডাকাডাকি করলে সে ঘরের দরজা খুলছিল না। পরে দরজা ভেঙে দেখি সে ফাঁসিতে ঝুলে আছে।

ভৈরব থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফা জানান, পারিবারিক কলহের কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে।

স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় যুবকের আত্মহত্যা

 ভৈরব (কিশোরগঞ্জ) প্রতিনিধি 
০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৪৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

স্ত্রী তালাক দিয়ে চলে যাওয়ায় ভৈরবে স্বামী ইব্রাহিম মিয়া (২২) আত্মহত্যা করেছেন। বুধবার মধ্যরাতে তিনি নিজ ঘরে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন।

ইব্রাহিম মিয়া শহরের ভৈরবপুর উত্তরপাড়া এলাকার আমির হোসেনের ছেলে। বৃহস্পতিবার সকালে খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য কিশোরগঞ্জ পাঠিয়েছে।

তালাকপ্রাপ্ত স্ত্রীর সঙ্গে রাগ করে এ ঘটনা ঘটিয়েছে বলে পারিবারিক সূত্র জানিয়েছে। 

জানা গেছে, ইব্রাহিম গত ৫ বছর আগে কোকিলা বেগম নামের এক মেয়েকে বিয়ে করেন। তাদের একটি ছেলেসন্তানও রয়েছে। গত ৪ মাস আগে ঝগড়া করে কোকিলা বেগম তার স্বামীকে তালাক দিয়ে বাপের বাড়ি চলে যান। এরপর অনেক চেষ্টা করেও স্ত্রীকে বাড়িতে আনতে না পেরে বুধবার রাতে তিনি আত্মহত্যা করেন।

নিহতের মা রোহেনা বেগম জানান, গত ৪ মাস আগে আমার ছেলের বউ তাকে তালাক দিয়ে বাপের বাড়ি চলে যান। বুধবার রাতে খাওয়া-দাওয়ার পর সে তার রুমে চলে যায়। সকালে ডাকাডাকি করলে সে ঘরের দরজা খুলছিল না। পরে দরজা ভেঙে দেখি সে ফাঁসিতে ঝুলে আছে।

ভৈরব থানার ওসি মো. গোলাম মোস্তফা জানান, পারিবারিক কলহের কারণে তিনি আত্মহত্যা করেছেন। এ ঘটনায় থানায় একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন