হেরোইনসহ উপজেলা ভূমি সার্ভেয়ার গ্রেফতার
jugantor
হেরোইনসহ উপজেলা ভূমি সার্ভেয়ার গ্রেফতার

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি  

০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ১৭:৫৩:৫৩  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা ভূমি সার্ভেয়ার আশরাফুল হককে (৩৭) হেরোইনসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকালে উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আশরাফুল হক কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার কালোয়া গ্রামের মো. সামছুর রহমান জোহার ছেলে। নিয়মিত মাদক গ্রহণ, ঘুস ছাড়া কাজ না করাসহ তিনি নানা বিতর্কের মধ্য দিয়ে বিগত ৩ বছর ধরে গোয়ালন্দ উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই মো. ফরহাদ হোসেন, এএসআই মো. খলিলুর রহমান ও এএসআই দেলোয়ার হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপজেলার দৌলতদিয়া বাজারস্হ নুরু চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে পাকা রাস্তা থেকে মোটরসাইকেলযোগে পালানোর সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার হেফাজতে থাকা ১২ পুড়িয়া অর্থাৎ ১.২ গ্রাম হেরোইন ও তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি জব্দ করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মাদক নির্মূলে আমাদের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবেই দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা থেকে হেরোইনসহ আশরাফুলকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, তার বিরুদ্ধে এএসআই মো. খলিলুর রহমান বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতের মাধ্যমে রাজবাড়ীর জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, এটা আমাদের অফিস সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় নয়; তবুও আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত করেছি।

হেরোইনসহ উপজেলা ভূমি সার্ভেয়ার গ্রেফতার

 গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি 
০৯ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:৫৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দ উপজেলা ভূমি সার্ভেয়ার আশরাফুল হককে (৩৭) হেরোইনসহ গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বুধবার বিকালে উপজেলার দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়।

বৃহস্পতিবার দুপুরে এ বিষয়ে গোয়ালন্দ ঘাট থানায় মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে তার বিরুদ্ধে একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

আশরাফুল হক কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার  কালোয়া গ্রামের মো. সামছুর রহমান জোহার ছেলে। নিয়মিত মাদক গ্রহণ, ঘুস ছাড়া কাজ না করাসহ তিনি নানা বিতর্কের মধ্য দিয়ে বিগত ৩ বছর ধরে গোয়ালন্দ উপজেলায় কর্মরত রয়েছেন।

মামলার এজাহার সূত্রে জানা যায়, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই মো. ফরহাদ হোসেন, এএসআই মো. খলিলুর রহমান ও এএসআই দেলোয়ার হোসেনসহ সঙ্গীয় ফোর্স উপজেলার দৌলতদিয়া বাজারস্হ নুরু চেয়ারম্যানের বাড়ির সামনে পাকা রাস্তা থেকে মোটরসাইকেলযোগে পালানোর সময় তাকে গ্রেফতার করা হয়। এ সময় তার হেফাজতে থাকা ১২ পুড়িয়া অর্থাৎ ১.২ গ্রাম হেরোইন ও তার ব্যবহৃত মোটরসাইকেলটি জব্দ করা হয়।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার ওসি মোহাম্মাদ আব্দুল্লাহ আল তায়াবীর বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, মাদক নির্মূলে আমাদের নিয়মিত অভিযানের অংশ হিসেবেই দৌলতদিয়া ঘাট এলাকা থেকে হেরোইনসহ আশরাফুলকে গ্রেফতার করা হয়।

তিনি আরও বলেন, তার বিরুদ্ধে এএসআই মো. খলিলুর রহমান বাদী হয়ে মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে মামলা দিয়ে আদালতের মাধ্যমে রাজবাড়ীর জেলহাজতে প্রেরণ করা হয়েছে। মাদকের বিরুদ্ধে আমাদের অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ প্রসঙ্গে গোয়ালন্দ উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, এটা আমাদের অফিস সংশ্লিষ্ট কোনো বিষয় নয়; তবুও আমি আমার ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাকে বিষয়টি অবহিত করেছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন