ঘুসিতে প্রাণ গেল বৃদ্ধের
jugantor
ঘুসিতে প্রাণ গেল বৃদ্ধের

  দিনাজপুর প্রতিনিধি  

০৯ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:১৮:০৮  |  অনলাইন সংস্করণ

প্রতীকী ছবি

দিনাজপুরের খানসামায় প্রতিপক্ষের ঘুসিতে মকবুল হোসেন (৬০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন।

উপজেলার শুসুলী গ্রামের আজগার চকিদারপাড়ায় রোববার বেলা ১১টায় এ ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আনিসুর রহমানের স্ত্রী পারুল বেগমকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।

নিহত মকবুল হোসেন ওই গ্রামের মৃত সাদি মাহমুদের ছেলে।

খানসামা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, বাড়ির সীমানা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে মকবুলের সঙ্গে আনিসুরের বিরোধ চলে আসছিল। রোববার বেলা ১১টার সময় মকবুল বিরোধপূর্ণ জায়গায় মাটি দিতে গেলে আনিসুরের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে মকবুলের বুকে আনিসুর একটি ঘুসি মারেন। সঙ্গে সঙ্গে মকবুল হোসেন অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরিবারের সদস্যরা তাকে গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়।

এ ব্যাপারে খানসামা থানার ওসি শেখ কামাল হোসেন যুগান্তরকে জানান, খবর পেয়ে মকবুলের বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া আনিসুরকে না পেয়ে তার স্ত্রী পারুল বেগমকে আটক করা হয়েছে।

রোববার বিকালে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত খানসামা ধানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

ঘুসিতে প্রাণ গেল বৃদ্ধের

 দিনাজপুর প্রতিনিধি 
০৯ জানুয়ারি ২০২২, ০৬:১৮ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ
প্রতীকী ছবি
প্রতীকী ছবি

দিনাজপুরের খানসামায় প্রতিপক্ষের ঘুসিতে মকবুল হোসেন (৬০) নামের এক বৃদ্ধ নিহত হয়েছেন। 

উপজেলার শুসুলী গ্রামের আজগার চকিদারপাড়ায় রোববার বেলা ১১টায় এ ঘটনা ঘটে। 

এ ঘটনায় অভিযুক্ত আনিসুর রহমানের স্ত্রী পারুল বেগমকে (৩০) আটক করেছে পুলিশ।
 
নিহত মকবুল হোসেন ওই গ্রামের মৃত সাদি মাহমুদের ছেলে। 

খানসামা থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মনিরুজ্জামান যুগান্তরকে জানান, বাড়ির সীমানা নিয়ে বেশ কিছুদিন ধরে মকবুলের সঙ্গে আনিসুরের বিরোধ চলে আসছিল। রোববার বেলা ১১টার সময় মকবুল বিরোধপূর্ণ জায়গায় মাটি দিতে গেলে আনিসুরের সঙ্গে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে মকবুলের বুকে আনিসুর একটি ঘুসি মারেন। সঙ্গে সঙ্গে মকবুল হোসেন অসুস্থ হয়ে পড়েন। পরিবারের সদস্যরা তাকে গ্রাম্য চিকিৎসকের কাছে নিয়ে গেলে তাকে মৃত ঘোষণা করা হয়। 

এ ব্যাপারে খানসামা থানার ওসি শেখ কামাল হোসেন যুগান্তরকে জানান, খবর পেয়ে মকবুলের বাড়ি থেকে তার লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য দিনাজপুর এম আব্দুর রহিম মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। এছাড়া আনিসুরকে না পেয়ে তার স্ত্রী পারুল বেগমকে আটক করা হয়েছে। 

রোববার বিকালে এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত খানসামা ধানায় মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন