সাতক্ষীরার সাবেক ডিসির বিরুদ্ধে আদালতে দুর্নীতির মামলা
jugantor
সাতক্ষীরার সাবেক ডিসির বিরুদ্ধে আদালতে দুর্নীতির মামলা

  সাতক্ষীরা প্রতিনিধি  

১৭ জানুয়ারি ২০২২, ২২:৫৬:০০  |  অনলাইন সংস্করণ

সাতক্ষীরার সাবেক জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে আদালতে বহুমুখী দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে।

সোমবার সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলাটি করেন ঢাকাস্থ দৈনিক গণকন্ঠের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মো. শাহ আলম।

আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান মামলাটি নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেন। পরে তিনি বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

মামলার বাদী মো. শাহ আলম তার আরজিতে বলেন, এসএম মোস্তফা কামাল ২০১৯ সালের ১৮ অক্টোবর থেকে ২০২১ এর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাতক্ষীরায় জেলা প্রশাসক হিসেবে তার কার্যকালে নানা ধরনের দুর্নীতি ও চাঁদাবাজি করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে শহরের প্রাণ সায়ের খাল খননে দুর্নীতি, মুজিববর্ষে নতুন গৃহ নির্মাণে দুর্নীতি, ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা প্রকল্পের নামে দুর্নীতি, ইটভাটা মালিকদের কাছে চাঁদাবাজি, জাতীয় দিবস পালনের নামে টাকা আদায় করে আত্মসাৎ করেছেন তিনি।

এছাড়া জেলার বিভিন্ন সমিতির কাছ থেকেও নানা অসিলায় চাঁদা আদায় করেছেন তিনি। তার কার্যকালে এসব খাতে ১০ কোটি টাকারও বেশি চাঁদাবাজি তিনি আত্মসাৎ করেছেন বলে বাদী তার আরজিতে উল্লেখ করেন।

মামলাটির দাখিলকারী আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহনাজ পারভিন মিলি বলেন, আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছেন এবং বাদীর জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন। আগামী ২৭ জানুয়ারি এ মামলা সংক্রান্ত আদেশ জারির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

সাতক্ষীরার সাবেক ডিসির বিরুদ্ধে আদালতে দুর্নীতির মামলা

 সাতক্ষীরা প্রতিনিধি 
১৭ জানুয়ারি ২০২২, ১০:৫৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

সাতক্ষীরার সাবেক জেলা প্রশাসক এসএম মোস্তফা কামালের বিরুদ্ধে  আদালতে বহুমুখী দুর্নীতি ও চাঁদাবাজির মামলা হয়েছে। 

সোমবার সাতক্ষীরা জেলা ও দায়রা জজ আদালতে মামলাটি করেন ঢাকাস্থ দৈনিক গণকন্ঠের সাতক্ষীরা প্রতিনিধি মো. শাহ আলম।

আদালতের বিচারক জেলা ও দায়রা জজ শেখ মফিজুর রহমান মামলাটি নথিভুক্ত করার নির্দেশ দেন। পরে তিনি বাদীর জবানবন্দি গ্রহণ করেন।

মামলার বাদী মো. শাহ আলম তার আরজিতে বলেন, এসএম মোস্তফা কামাল ২০১৯ সালের ১৮ অক্টোবর থেকে ২০২১ এর ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত সাতক্ষীরায় জেলা প্রশাসক হিসেবে তার কার্যকালে নানা ধরনের দুর্নীতি ও চাঁদাবাজি করেছেন। এর মধ্যে রয়েছে শহরের প্রাণ সায়ের খাল খননে দুর্নীতি, মুজিববর্ষে নতুন গৃহ নির্মাণে দুর্নীতি, ক্লিন সাতক্ষীরা গ্রিন সাতক্ষীরা প্রকল্পের নামে দুর্নীতি, ইটভাটা মালিকদের কাছে চাঁদাবাজি, জাতীয় দিবস পালনের নামে টাকা আদায় করে আত্মসাৎ করেছেন তিনি।

এছাড়া জেলার বিভিন্ন সমিতির কাছ থেকেও নানা অসিলায় চাঁদা আদায় করেছেন তিনি। তার কার্যকালে এসব খাতে ১০ কোটি টাকারও বেশি চাঁদাবাজি তিনি আত্মসাৎ করেছেন বলে বাদী তার আরজিতে উল্লেখ করেন।

মামলাটির দাখিলকারী আইনজীবী অ্যাডভোকেট শাহনাজ পারভিন মিলি বলেন, আদালত মামলাটি গ্রহণ করেছেন এবং বাদীর জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন। আগামী ২৭ জানুয়ারি এ মামলা সংক্রান্ত আদেশ জারির দিন ধার্য করেছেন আদালত।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন