জামায়াতের রোকনদের সঙ্গে আ.লীগ প্রার্থীর বৈঠকের ছবি ভাইরাল
jugantor
জামায়াতের রোকনদের সঙ্গে আ.লীগ প্রার্থীর বৈঠকের ছবি ভাইরাল

  কুমিল্লা ব্যুরো  

২০ জানুয়ারি ২০২২, ২২:০৬:৩৮  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার দেবিদ্বারে জামায়াতের রোকনদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর ‘গোপন’ বৈঠকের ছবি ভাইরাল হয়ে গেছে। এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

সপ্তম ধাপে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম চেয়ারম্যানের সঙ্গে জামায়াতের কয়েকজন রোকনের ‘গোপন’ বৈঠকের একটি ছবি নিয়ে ফেসবুকে তোলপাড় চলছে।

বৃহস্পতিবার ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। তবে বৈঠকটি ঠিক কোন স্থানে হয়েছে সেটা নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা রয়েছে।

আসছে নির্বাচনে জয়লাভ করতে চির বৈরী এ সংগঠনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নেতাদের করুণা চাইতেই এমন বৈঠক বলে মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

এদিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর জামায়াত নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি ভালোভাবে নিতে পারছেন না নেতাকর্মীরা। বিষয়টি নিয়ে দলের অভ্যন্তরে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, আসছে ৭ ফেব্রুয়ারি সপ্তম ধাপে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ১৫টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরই মাঝে এসব ইউপির প্রার্থীদেরকে দলের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকেই দলীয় এবং স্বতন্ত্রসহ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীগণ এলাকায় প্রচারণা গণসংযোগসহ উঠান বৈঠকের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সম্প্রতি জামায়াত নেতাদের সঙ্গে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের নৌকার মনোনীত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সিরাজুল ইসলামের গোপন বৈঠক নিয়ে বেশ তোলপাড় চলছে।

ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা গেছে- ওই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঢাকা ইস্টার্ন কলেজের চেয়ারম্যান এবং জামায়াতের রোকন মোহাম্মদ উল্লাহ এবং ঢাকার বনশ্রী আল রাজী হসপিটালের চেয়ারম্যান ও জামায়াতের রোকন মো. কামাল হোসেনসহ বেশ কয়েকজন জামায়াত নেতার সঙ্গে গোপন বৈঠক করছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ ওই ইউপি চেয়ারম্যান জামায়াত নেতাদের করুণা এবং সমর্থন পেতেই রাজনৈতিক নিষিদ্ধ ওই দলের সঙ্গে গোপন বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া তিনি বিএনপিসহ বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গেও আঁতাত চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে। যে কোনো কিছুর বিনিময়ে তিনি জয়লাভ করতে চান। এক্ষেত্রে আদর্শ জলাঞ্জলি দিতে কোনো প্রকার দ্বিধাবোধ করছেন না তিনি। এমন বেশ কিছু মন্তব্য ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে নেটিজেনরা মন্তব্য অব্যাহত রেখেছেন।

মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল বলেন, সিরাজ চেয়ারম্যান নৌকার মনোনীত একজন প্রার্থী হয়ে কিভাবে স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তা বোধগম্য নয়। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এবং নৌকার মনোনীত প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে আমি আমার এলাকার ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছি, এখানে জামায়াতের কোনো নেতা ছিলেন কিনা তা আমার জানা নেই। আমি আমার এলাকার ভোটার হিসেবে তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। এটা কোনো গোপন বৈঠক নয়।

জামায়াতের রোকনদের সঙ্গে আ.লীগ প্রার্থীর বৈঠকের ছবি ভাইরাল

 কুমিল্লা ব্যুরো 
২০ জানুয়ারি ২০২২, ১০:০৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

কুমিল্লার দেবিদ্বারে জামায়াতের রোকনদের সঙ্গে আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থীর ‘গোপন’ বৈঠকের ছবি ভাইরাল হয়ে গেছে। এ নিয়ে তোলপাড় শুরু হয়েছে।

সপ্তম ধাপে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নে নৌকার প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম চেয়ারম্যানের সঙ্গে জামায়াতের কয়েকজন রোকনের ‘গোপন’ বৈঠকের একটি ছবি নিয়ে ফেসবুকে তোলপাড় চলছে।

বৃহস্পতিবার ছবিটি ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। তবে বৈঠকটি ঠিক কোন স্থানে হয়েছে সেটা নিয়ে এখনো ধোঁয়াশা রয়েছে।

আসছে নির্বাচনে জয়লাভ করতে চির বৈরী এ সংগঠনের সর্বোচ্চ পর্যায়ের নেতাদের করুণা চাইতেই এমন বৈঠক বলে মন্তব্য করেছেন অনেকেই।

এদিকে আওয়ামী লীগ প্রার্থীর জামায়াত নেতাদের সঙ্গে বৈঠকের বিষয়টি ভালোভাবে নিতে পারছেন না নেতাকর্মীরা। বিষয়টি নিয়ে দলের অভ্যন্তরে চাপা ক্ষোভ বিরাজ করছে।

জানা যায়, আসছে ৭ ফেব্রুয়ারি সপ্তম ধাপে কুমিল্লার দেবিদ্বার উপজেলার ১৫টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। এরই মাঝে এসব ইউপির প্রার্থীদেরকে দলের মনোনয়ন দেয়া হয়েছে। মনোনয়ন পাওয়ার পর থেকেই দলীয় এবং স্বতন্ত্রসহ দলের বিদ্রোহী প্রার্থীগণ এলাকায় প্রচারণা গণসংযোগসহ উঠান বৈঠকের কাজ চালিয়ে যাচ্ছে। কিন্তু সম্প্রতি জামায়াত নেতাদের সঙ্গে উপজেলার এলাহাবাদ ইউনিয়নের নৌকার মনোনীত প্রার্থী ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাবেক সভাপতি এবং উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য সিরাজুল ইসলামের গোপন বৈঠক নিয়ে বেশ তোলপাড় চলছে।

ভাইরাল হওয়া ছবিতে দেখা গেছে- ওই চেয়ারম্যান প্রার্থী ঢাকা ইস্টার্ন কলেজের চেয়ারম্যান এবং জামায়াতের রোকন মোহাম্মদ উল্লাহ এবং ঢাকার বনশ্রী আল রাজী হসপিটালের চেয়ারম্যান ও জামায়াতের রোকন মো. কামাল হোসেনসহ বেশ কয়েকজন জামায়াত নেতার সঙ্গে গোপন বৈঠক করছেন।

স্থানীয়দের অভিযোগ ওই ইউপি চেয়ারম্যান জামায়াত নেতাদের করুণা এবং সমর্থন পেতেই রাজনৈতিক নিষিদ্ধ ওই দলের সঙ্গে গোপন বৈঠক চালিয়ে যাচ্ছেন। এছাড়া তিনি বিএনপিসহ বিরোধী রাজনৈতিক নেতাদের সঙ্গেও আঁতাত চালিয়ে যাচ্ছেন বলে অভিযোগ করেছেন অনেকে। যে কোনো কিছুর বিনিময়ে তিনি জয়লাভ করতে চান। এক্ষেত্রে আদর্শ জলাঞ্জলি দিতে কোনো প্রকার দ্বিধাবোধ করছেন না তিনি। এমন বেশ কিছু মন্তব্য ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ভাইরাল হওয়া ছবি নিয়ে নেটিজেনরা মন্তব্য অব্যাহত রেখেছেন।

মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল জলিল বলেন, সিরাজ চেয়ারম্যান নৌকার মনোনীত একজন প্রার্থী হয়ে কিভাবে স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে বৈঠক করেন তা বোধগম্য নয়। বিষয়টি নিয়ে তদন্ত করে তার বিরুদ্ধে সাংগঠনিক ব্যবস্থা নেওয়া দরকার।

এ বিষয়ে ইউপি চেয়ারম্যান এবং নৌকার মনোনীত প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম বলেন, আসন্ন ইউপি নির্বাচনকে সামনে রেখে আমি আমার এলাকার ভোটারদের সঙ্গে মতবিনিময় করেছি, এখানে জামায়াতের কোনো নেতা ছিলেন কিনা তা আমার জানা নেই। আমি আমার এলাকার ভোটার হিসেবে তাদের সঙ্গে বৈঠক করেছি। এটা কোনো গোপন বৈঠক নয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন