বিদ্রোহীদের কি বশে আনা যাবে?
jugantor
বিদ্রোহীদের কি বশে আনা যাবে?

  সৈয়দ মাহফুজ উন নবী খোকন, সাতকানিয়া  

২১ জানুয়ারি ২০২২, ২০:৩৫:১৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ১৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন শনিবার। রোববার প্রতীক বরাদ্দের পরই লড়াই শুরু হবে ভোটের মাঠে।

এদিকে চার ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বেসরকারিভাবে বিজয়ী হলেও সাত ইউপিতে লড়ছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। বহিষ্কারের হুঁশিয়ারি দিয়েও নির্বাচন থেকে সরানো যায়নি তাদের। বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব উপেক্ষা করে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। অনুরোধ-হুঁশিয়ারির পরও তাদের ‘বশ’ মানানো যাচ্ছে কিনা সেটি জানা যাবে শনিবার বিকাল ৫টার পর।

উপজেলা চরতী ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও দক্ষিণ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার চৌধুরী, নলুয়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা তসলিমা আকতার, আমিলাইশে বর্তমান চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এইচএম হানিফ, পশ্চিম ঢেমশায় আবদুল মাবুদ সেন্টু, বাজালিয়ায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শহীদুল্লাহ চৌধুরী, ধর্মপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী, ছদাহায় রফিক মাহমুদ, সোনাকানিয়ায় উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরীর ভাতিজা মোহাম্মদ সেলিম উদ্দীন চৌধুরী বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন। যদিও তারা মনোনয়নপত্রে নিজেদের ‘স্বতন্ত্র’ প্রার্থী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

এদিকে শনিবার বিকাল ৫টার মধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে গত ১৬ জানুয়ারি উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে চিঠি দেন সভাপতি এমএ মোতালেব সিআইপি ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী। নইলে তাদের দলীয় পদ বাতিলসহ দলের প্রাথমিক সদস্যপদ স্থগিত করারও হুঁশিয়ারি দেন তারা।

এরপর ১৮ জানুয়ারি রাতে নিজের ফেসবুক ওয়ালে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিজুড়ে একই হুঁশিয়ারি দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি। অনেকে আমাদের অনুরোধে সাড়া দিয়েছেন। প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার। আমি শতভাগ আশাবাদী তারা সবাই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেবেন।

প্রসঙ্গত সপ্তম ধাপে ৭ ফেব্রুয়ারি সাতকানিয়ার এওচিয়া ইউনিয়ন বাদে ১৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। শনিবার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। রোববার প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে।

বিদ্রোহীদের কি বশে আনা যাবে?

 সৈয়দ মাহফুজ উন নবী খোকন, সাতকানিয়া 
২১ জানুয়ারি ২০২২, ০৮:৩৫ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের সাতকানিয়ায় ১৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে প্রার্থিতা প্রত্যাহারের শেষ দিন শনিবার। রোববার প্রতীক বরাদ্দের পরই লড়াই শুরু হবে ভোটের মাঠে। 

এদিকে চার ইউপিতে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় আওয়ামী লীগের প্রার্থীরা বেসরকারিভাবে বিজয়ী হলেও সাত ইউপিতে লড়ছেন বিদ্রোহী প্রার্থীরা। বহিষ্কারের হুঁশিয়ারি দিয়েও নির্বাচন থেকে সরানো যায়নি তাদের। বিদ্বেষপূর্ণ মনোভাব উপেক্ষা করে নৌকার বিজয় সুনিশ্চিত করতে তাদের মনোনয়ন প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়েছে উপজেলা আওয়ামী লীগ। অনুরোধ-হুঁশিয়ারির পরও তাদের ‘বশ’ মানানো যাচ্ছে কিনা সেটি জানা যাবে শনিবার বিকাল ৫টার পর।

উপজেলা চরতী ইউনিয়নে উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি ও দক্ষিণ জেলা হিন্দু বৌদ্ধ খ্রিস্টান ঐক্য পরিষদের সহ-সভাপতি অ্যাডভোকেট প্রদীপ কুমার চৌধুরী, নলুয়া ইউনিয়নে বর্তমান চেয়ারম্যান দক্ষিণ জেলা যুবলীগের সহ-মহিলা বিষয়ক সম্পাদিকা তসলিমা আকতার, আমিলাইশে বর্তমান চেয়ারম্যান উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য এইচএম হানিফ, পশ্চিম ঢেমশায় আবদুল মাবুদ সেন্টু, বাজালিয়ায় ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সদস্য শহীদুল্লাহ চৌধুরী, ধর্মপুরে উপজেলা আওয়ামী লীগের তথ্য ও গবেষণা বিষয়ক সম্পাদক মোহাম্মদ ইলিয়াছ চৌধুরী, ছদাহায় রফিক মাহমুদ, সোনাকানিয়ায় উপজেলা যুবলীগের আহ্বায়ক কমিটির সদস্য ও দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগের প্রচার ও প্রকাশনা বিষয়ক সম্পাদক নুরুল আবছার চৌধুরীর ভাতিজা মোহাম্মদ সেলিম উদ্দীন চৌধুরী বিদ্রোহী প্রার্থী হিসেবে লড়ছেন। যদিও তারা মনোনয়নপত্রে নিজেদের ‘স্বতন্ত্র’ প্রার্থী হিসেবে উল্লেখ করেছেন।

এদিকে শনিবার বিকাল ৫টার মধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের অনুরোধ জানিয়ে গত ১৬ জানুয়ারি উপজেলা আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে চিঠি দেন সভাপতি এমএ মোতালেব সিআইপি ও সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী। নইলে তাদের দলীয় পদ বাতিলসহ দলের প্রাথমিক সদস্যপদ স্থগিত করারও হুঁশিয়ারি দেন তারা। 

এরপর ১৮ জানুয়ারি রাতে নিজের ফেসবুক ওয়ালে একটি প্রেস বিজ্ঞপ্তিজুড়ে একই হুঁশিয়ারি দেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক কুতুব উদ্দীন চৌধুরী বলেন, আমরা তাদের সঙ্গে যোগাযোগ রেখেছি। অনেকে আমাদের অনুরোধে সাড়া দিয়েছেন। প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে দলের প্রার্থীর পক্ষে কাজ করার। আমি শতভাগ আশাবাদী তারা সবাই মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করে নেবেন।

প্রসঙ্গত সপ্তম ধাপে ৭ ফেব্রুয়ারি সাতকানিয়ার এওচিয়া ইউনিয়ন বাদে ১৬টি ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনের ভোটগ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। শনিবার প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। রোববার প্রার্থীদের প্রতীক বরাদ্দ দেওয়া হবে। 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন