রমজানে বেনাপোল বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা

  বেনাপোল (যশোর) প্রতিনিধি ২১ মে ২০১৮, ১৯:২৫ | অনলাইন সংস্করণ

বেনাপোল স্থলবন্দর
বেনাপোল স্থলবন্দর। ছবি: সংগৃহীত

আমদানিকৃত পণ্যের বাজার সহনশীল রাখতে এবার রোজার মাসে বেনাপোল বন্দর ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশনা দিয়েছেন বেনাপোল কাস্টমস হাউস কর্তৃপক্ষ।

তবে শুধুমাত্র ইফতার ও সেহেরির সময় মুসলিম সম্প্রদায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের কর্মবিরতি রাখা হয়েছে। এ সময়টুকু অমুসলিম সম্প্রদায়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের দিয়ে বাণিজ্য সচল রাখার নির্দেশনা রয়েছে।

সোমবার থেকে এই নির্দেশনা কার্যকর করার জন্য বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার মোহাম্মদ বেলাল হোসেন চৌধুরী স্বাক্ষরিত চিঠি বিভিন্ন দফতরে পাঠানো হয়েছে।

কাস্টমস সুত্র জানায়, আমদানিকৃত পণ্য দ্রুত বাজারজাত করতে গত বছর থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে সপ্তাহে সাত দিনে ২৪ ঘণ্টা আমদানি রফতানি বাণিজ্য সচল করার নির্দেশনা দেন জাতীয় রাজস্ব বোর্ড। কিন্তু কিছুদিন চলার পর বিভিন্ন দফতরের অসহযোগিতার কারণে তা চালু রাখতে পারেনি কাস্টমস কর্তৃপক্ষ। বর্তমানে এ বন্দরে ছয় দিন ২৪ ঘণ্টা বাণিজ্য সচল রয়েছে। শুধুমাত্র শুক্রবার আমদানি-রফতানি বন্ধ থাকছে।

বেনাপোল সিএন্ডএফ এজেন্টস অ্যাসোশিয়েশনের সভাপতি মফিজুর রহমান সজন জানান, ভারতের সঙ্গে যোগাযোগ ব্যবস্থা সহজ হওয়ায় সিংহভাগ পণ্য আমদানি রফতানি হয় দেশের বৃহওম স্থলবন্দর বেনাপোল দিয়ে। কলকাতা থেকে একটি পন্য বোঝাই ট্রাক মাত্র তিন ঘণ্টায় বেনাপোল বন্দরে এসে পৌঁছায়।

তেমনি প্রায় একই সময়ে বেনাপোল বন্দর থেকে রফতানি পণ্য নিয়ে ট্রাক পৌঁছায় কলকাতায়। কম সময় ও অর্থ সাশ্রয়ের জন্য ব্যবসায়ীদের এ পথে আমদানি রফতানি বাণিজ্যে আগ্রহ বেশি। প্রতি বছর এ বন্দর থেকে সরকার প্রায় ছয় হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয় করে থাকেন।

এদিকে সোমবার সকালে ভারত থেকে বেনাপোল বন্দর দিয়ে ১০২ ট্রাক পিয়াজ আমদানি হয়েছে। রোজার মধ্যে পেঁয়াজ, চাল, মাছসহ বিভিন্ন খাদ্যদ্রব্য প্রচুর পরিমাণে আমদানি হচ্ছে ভারত থেকে। পরে এসব পণ্য খালাস শেষে তা দেশের বিভিন্ন অঞ্চলে সরবরাহ করতে ট্রাক সংকট ভয়াবহ রূপ নিয়েছে।

অনেকে ট্রাকের অভাবে পচনশীল পন্য খালাশ করতে পারছে না বন্দর থেকে। এছাড়া শিল্প-কারখানায় উৎপাদন কাজে প্রয়োজনীয় কাঁচামালের আমদানিও স্বাভাবিক রয়েছে।

বেনাপোল কাস্টমস কমিশনার বেলাল হোসেন চৌধুরী জানান, বন্দর থেকে পচনশীল পন্য দ্রুত খালাশ করতে বন্দর কর্তৃপক্ষকে ২৪ ঘণ্টা খোলা রাখার নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.