‘স্যার আমারটা একটু দেখবেন’

  চাটমোহর (পাবনা) প্রতিনিধি ২১ মে ২০১৮, ২০:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি
চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি। ছবি: যুগান্তর

পাবনার চাটমোহর উপজেলার পার্শ্বডাঙ্গা ইউনিয়নের বনগ্রাম এলাকায় জমিতে ধান কাটা নিয়ে সোমবার সকালে দুইপক্ষের মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে নারীসহ উভয়পক্ষের ১৫ জন আহত হন।

আহতদের উদ্ধার করে চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে আসেন স্থানীয়রা। বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জরুরি বিভাগে ছিল প্রচুর ভিড়।

আঘাতপ্রাপ্ত রোগীরা যন্ত্রণায় কাতরাচ্ছিলেন। চারিদিকে শুধু রক্তের গন্ধ। ঠিক তখনই বেশ কয়েকজন ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি কর্তব্যরত চিকিৎসকদের কাছে এসে তাদের কোম্পানির ওষুধ লেখার জন্য অনুরোধ করতে থাকেন।

শুধু তাই নয়, চিকিৎসক ব্যবস্থাপত্রে কী ওষুধ লিখলেন তা দেখার জন্য বাইরে দাঁড়িয়ে রোগীর স্বজনদের কাছ থেকে প্রেসক্রিপশন নিয়ে টানাটানি শুরু করেন!

এসময় এক ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধি জরুরি বিভাগের টেবিলের সামনে দাঁড়িয়ে বলতে থাকেন, ‘স্যার আমারটা একটু দেখবেন।’ পরে তিনি ছবি তোলা দেখে এবং সাংবাদিক পরিচয় পেয়ে জরুরি বিভাগ থেকে বেরিয়ে যান।

প্রতিনিয়ত ওষুধ লেখার জন্য এইসব বিক্রয় প্রতিনিধিদের চাপ প্রয়োগ করায় ডাক্তাররা বিরক্ত হলেও তাদের কাছে তারা যেন অসহায়। সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তারা হাসপাতালে প্রবেশ করে রোগীদের হেনস্তা করলেও এ ব্যাপারে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষ নিশ্চুপ।

প্রসঙ্গত, এমনিতেই ডাক্তার সংকটে জোড়াতালি দিয়ে চলছে পঞ্চাশ শয্যা বিশিষ্ট চাটমোহর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের স্বাস্থ্য সেবা। তারপর ওষুধ কোম্পানির প্রতিনিধিদের দৌরাত্মে অতিষ্ট হয়ে পড়েছে চিকিৎসক ও রোগীরা।

আগের যে কোনো সময়ের চেয়ে বৃদ্ধি পেয়েছে তাদের আনাগোনা। হাসাপাতালে নির্দিষ্ট দিন ছাড়া (রোববার-বুধবার) তাদের প্রবেশ সম্পূর্ণ নিষেধ। এরপরেও তাদের অবাধ বিচরণে চিকিৎসা সেবা ব্যাহত হচ্ছে।

সকাল হলেই সারিবদ্ধভাবে তারা ডাক্তারদের অভ্যর্থনা জানানোর জন্য দাঁড়িয়ে থাকেন হাসপাতালের গেটে। সন্ধ্যার পর জরুরি বিভাগের পাশে দাঁড়িয়ে ‘নজরদারি’ করেন। তাদের তৎপরতায় অসহায় হয়ে পড়েন রোগী ও তাদের স্বজনরা।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. সবিজুর রহমান যুগান্তরকে বলেন, কোনোমতেই রোববার ও বুধবার ছাড়া তারা (ওষুধ কোম্পানির বিক্রয় প্রতিনিধি) হাসপাতালে প্রবেশ করতে পারবে না। বিষয়টির সত্যতা পেলে এদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নেয়া হবে।

 

 

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.