বাবার গোপন বিয়ের খবরে মেয়ের আত্মহত্যা, মা মৃত্যুশয্যায়
jugantor
বাবার গোপন বিয়ের খবরে মেয়ের আত্মহত্যা, মা মৃত্যুশয্যায়

  নাটোর প্রতিনিধি  

২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৩২:১৯  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোর সদরের হালসায় সাবেক ইউপি সদস্যের গোপন বিয়ে নিয়ে পারিবারিক কলহে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে অনার্স পড়ুয়া মেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। একই সময়ে পাশের ঘরে তার মাও গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। শনিবার এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতাল পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নাটোর সদরের হালসা ইউনিয়ন পরিষদের সদ্য সাবেক হওয়া সদস্য তিন সন্তানের জনক খোরশেদ আলম অনেক দিন আগেই গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে তিনি পরাজিত হন। নির্বাচনে হেরে তিনি প্রায় ছয় লাখ টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এ সময় আস্তে আস্তে তার দ্বিতীয় বিয়ের বিষয়টিও ফাঁস হয়ে যায়। এতে পারিবারিক অশান্তি চরমে পৌঁছে।

নাটোর রাণী ভবাণী সরকারি মহিলা কলেজের বাংলা বিষয়ের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী বড় মেয়ে মুন্নী বাবার দ্বিতীয় বিয়ের ঘটনায় নিজের ভবিষ্যৎ, বিয়ে, পরিবারের আর্থিক টানাপড়েন নিয়ে বেশি চিন্তিত হয়ে পড়েন। এসব নিয়ে কয়েকদিন থেকে পরিবারটিতে ঝগড়া ঝাটি চলছিল।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে এসব ঘটনার জের ধরে একই সময়ে নিজ বাড়ির আলাদা ঘরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে মা ও মেয়ে ঘরের আরার সঙ্গে ফাঁস দেন। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে উভয়কে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মেয়ে মুন্নীকে (২২) মৃত ঘোষণা করেন। মা জাহেদা বেগমকে (৩৬) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘটনার আগের দিনও জাহেদা বেগম ঘুমের অতিরিক্ত ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

হালসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, কোনো তথ্য প্রমাণ হাতে না থাকলেও লোকমুখে খোরশেদ আলমের গোপনে দ্বিতীয় বিয়ের খবরেই মা ও মেয়ের আত্মহত্যার চেষ্টা এবং মেয়ের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

নাটোর থানার ওসি মনসুর রহমান শনিবার বিকেলে যুগান্তরকে বলেছেন, কেন এমন ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে তদন্ত চলছে। আপাতত এ ঘটনায় নাটোর থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হবে। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় অন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মুন্নীর আত্মহত্যার ঘটনায় তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নাটোর রাণী ভবাণী সরকারি মহিলা কলেজের তার সহপাঠী ও শিক্ষকদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

বাবার গোপন বিয়ের খবরে মেয়ের আত্মহত্যা, মা মৃত্যুশয্যায়

 নাটোর প্রতিনিধি 
২৩ জানুয়ারি ২০২২, ০১:৩২ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নাটোর সদরের হালসায় সাবেক ইউপি সদস্যের গোপন বিয়ে নিয়ে পারিবারিক কলহে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে অনার্স পড়ুয়া মেয়ে আত্মহত্যা করেছেন। একই সময়ে পাশের ঘরে তার মাও গলায় ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। তাকে উদ্ধার করে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তবে তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। শনিবার এ ঘটনা ঘটে।

হাসপাতাল পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, নাটোর সদরের হালসা ইউনিয়ন পরিষদের সদ্য সাবেক হওয়া সদস্য তিন সন্তানের জনক খোরশেদ আলম অনেক দিন আগেই গোপনে দ্বিতীয় বিয়ে করেন। চতুর্থ ধাপের ইউপি নির্বাচনে তিনি পরাজিত হন। নির্বাচনে হেরে তিনি প্রায় ছয় লাখ টাকা ঋণগ্রস্ত হয়ে পড়েন। এ সময় আস্তে আস্তে তার দ্বিতীয় বিয়ের বিষয়টিও ফাঁস হয়ে যায়। এতে পারিবারিক অশান্তি চরমে পৌঁছে।

নাটোর রাণী ভবাণী সরকারি মহিলা কলেজের বাংলা বিষয়ের অনার্স তৃতীয় বর্ষের ছাত্রী বড় মেয়ে মুন্নী বাবার দ্বিতীয় বিয়ের ঘটনায় নিজের ভবিষ্যৎ, বিয়ে, পরিবারের আর্থিক টানাপড়েন নিয়ে বেশি চিন্তিত হয়ে পড়েন। এসব নিয়ে কয়েকদিন থেকে পরিবারটিতে ঝগড়া ঝাটি চলছিল।

শনিবার বেলা ১১টার দিকে এসব ঘটনার জের ধরে একই সময়ে নিজ বাড়ির আলাদা ঘরে গলায় ওড়না পেঁচিয়ে মা ও মেয়ে ঘরের আরার সঙ্গে ফাঁস দেন। প্রতিবেশীরা টের পেয়ে উভয়কে উদ্ধার করে নাটোর আধুনিক সদর হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক মেয়ে মুন্নীকে (২২) মৃত ঘোষণা করেন। মা জাহেদা বেগমকে (৩৬) আশঙ্কাজনক অবস্থায় রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়েছে। ঘটনার আগের দিনও জাহেদা বেগম ঘুমের অতিরিক্ত ওষুধ খেয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন বলে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।

হালসা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শফিকুল ইসলাম শফিক ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে বলেছেন, কোনো তথ্য প্রমাণ হাতে না থাকলেও লোকমুখে খোরশেদ আলমের গোপনে দ্বিতীয় বিয়ের খবরেই মা ও মেয়ের আত্মহত্যার চেষ্টা এবং মেয়ের মৃত্যুর ঘটনা ঘটেছে।

নাটোর থানার ওসি মনসুর রহমান শনিবার বিকেলে যুগান্তরকে বলেছেন, কেন এমন ঘটনা ঘটলো তা নিয়ে তদন্ত চলছে। আপাতত এ ঘটনায় নাটোর থানায় অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হবে। ময়না তদন্ত প্রতিবেদন পাওয়া গেলে প্রয়োজনীয় অন্য ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। মুন্নীর আত্মহত্যার ঘটনায় তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নাটোর রাণী ভবাণী সরকারি মহিলা কলেজের তার সহপাঠী ও শিক্ষকদের মধ্যে শোকের ছায়া নেমে আসে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন