হাসপাতালে শিশু বদল, এক বাবার মামলায় আরেক বাবা গ্রেফতার
jugantor
হাসপাতালে শিশু বদল, এক বাবার মামলায় আরেক বাবা গ্রেফতার

  হবিগঞ্জ প্রতিনিধি  

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১১:২৮:৩৪  |  অনলাইন সংস্করণ

শিশু উদ্ধার

হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর আধুনিক হাসপাতালে নবজাতক বদলের ঘটনায় মেয়ে নবজাতকের বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে ছেলে নবজাতকের বাবার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাসুম চৌধুরী আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের বাসিন্দা।

মামলার অভিযোগের বরাত দিয়ে সদর মডেল থানার ওসি মো. মাসুক আলী জানান, হাসপাতালে মাছুমের মেয়ে শিশু জন্ম হওয়ায় তিনি সন্তুষ্ট ছিলেন না। এ জন্য তিনি পাশের শয্যায় থাকা ছেলে নবজাতকটি ইচ্ছাকৃতভাবে বদল করেছিলেন। ছেলে নবজাতকের বাবার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার মড়রা গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী ফেরদৌস আক্তার এবং আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের মাসুম চৌধুরী স্ত্রী আকলিমা বেগম প্রসব বেদনা নিয়ে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হন।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৬টায় ফেরদৌস আক্তার ছেলে শিশু ও তার দেড় ঘণ্টা আগে ভোর ৫টায় আকলিমা বেগম মেয়ে শিশুর জন্ম দেন।

সকালে দুই শিশুকে নবজাতকদের বিশেষ সেবা ইউনিটে নেওয়া হয়। সেখান থেকে সকাল ৯টায় ছেলেশিশুটি নিজের বলে মায়ের কাছে দুধ খাওয়ানোর কথা বলে নিয়ে যান মাসুম চৌধুরী। পরে ওই ছেলে শিশুর স্বজনরা সেখানে গিয়ে তাকে না পেলে হুলস্থুল শুরু হয়। এ ঘটনায় হাসপাতালে তুলকালাম কাণ্ড হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে যায়। অবশেষে ঘটনার ৫ ঘণ্টা পর বেলা ২টায় মেয়েশিশুটির মায়ের কোল থেকে ছেলে নবজাতকটি উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দুই শিশুকে তাদের নিজ নিজ মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেন।

এ ঘটনায় ছেলে শিশুটির বাবা দেলোয়ার হোসেন বুধবার সদর থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় মেয়ে শিশুর বাবা মাসুম চৌধুরীকে গ্রেফতার করা হয়।

হাসপাতালে শিশু বদল, এক বাবার মামলায় আরেক বাবা গ্রেফতার

 হবিগঞ্জ প্রতিনিধি 
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১১:২৮ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ
শিশু উদ্ধার
ছবি: যুগান্তর

হবিগঞ্জ ২৫০ শয্যা সদর আধুনিক হাসপাতালে নবজাতক বদলের ঘটনায় মেয়ে নবজাতকের বাবাকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

বুধবার রাতে ছেলে নবজাতকের বাবার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়। গ্রেফতার মাসুম চৌধুরী আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের বাসিন্দা।

মামলার অভিযোগের বরাত দিয়ে সদর মডেল থানার ওসি মো. মাসুক আলী জানান, হাসপাতালে মাছুমের মেয়ে শিশু জন্ম হওয়ায় তিনি সন্তুষ্ট ছিলেন না। এ জন্য তিনি পাশের শয্যায় থাকা ছেলে নবজাতকটি ইচ্ছাকৃতভাবে বদল করেছিলেন। ছেলে নবজাতকের বাবার করা মামলায় তাকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

পুলিশ ও হাসপাতাল সূত্রে জানা যায়, সোমবার রাতে শায়েস্তাগঞ্জ উপজেলার মড়রা গ্রামের দেলোয়ার হোসেনের স্ত্রী ফেরদৌস আক্তার এবং আজমিরীগঞ্জ উপজেলার শিবপাশা গ্রামের মাসুম চৌধুরী স্ত্রী আকলিমা বেগম প্রসব বেদনা নিয়ে সদর আধুনিক হাসপাতালে ভর্তি হন।

মঙ্গলবার ভোর সাড়ে ৬টায় ফেরদৌস আক্তার ছেলে শিশু ও তার দেড় ঘণ্টা আগে ভোর ৫টায় আকলিমা বেগম মেয়ে শিশুর জন্ম দেন।

সকালে দুই শিশুকে নবজাতকদের বিশেষ সেবা ইউনিটে নেওয়া হয়। সেখান থেকে সকাল ৯টায় ছেলেশিশুটি নিজের বলে মায়ের কাছে দুধ খাওয়ানোর কথা বলে নিয়ে যান মাসুম চৌধুরী। পরে ওই ছেলে শিশুর স্বজনরা সেখানে গিয়ে তাকে না পেলে হুলস্থুল শুরু হয়। এ ঘটনায় হাসপাতালে তুলকালাম কাণ্ড হয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ও হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ঘটনাস্থলে যায়। অবশেষে ঘটনার ৫ ঘণ্টা পর বেলা ২টায় মেয়েশিশুটির মায়ের কোল থেকে ছেলে নবজাতকটি উদ্ধার করা হয়। পরে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ দুই শিশুকে তাদের নিজ নিজ মায়ের কাছে ফিরিয়ে দেন।

এ ঘটনায় ছেলে শিশুটির বাবা দেলোয়ার হোসেন বুধবার সদর থানায় একটি মামলা করেন। ওই মামলায় মেয়ে শিশুর বাবা মাসুম চৌধুরীকে গ্রেফতার করা হয়।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন