অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই, চালকের মৃত্যু
jugantor
অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই, চালকের মৃত্যু

  গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি   

২৭ জানুয়ারি ২০২২, ১৮:৩৩:৫১  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ইসমাইল শেখ (৪৫) নামে এক অটোরিকশা চালকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাতে ১০টার দিকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এর আগে এদিন বিকালে উপজেলা পরিষদের সামনে তাকে অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই করে দুর্বৃত্তরা।

নিহত ঈসমাইল শেখ উপজেলার পশ্চিম উজানচর রমজান মাতুব্বরপাড়ার মৃত সৈয়দ আলী শেখের ছেলে।

ঈসমাইল শেখের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী বন্যা খাতুন জানান, তার ভাসুর বুধবার বেলা ৩টার দিকে অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। বেলা ৪টার দিকে আমরা খবর পাই তিনি উপজেলার সামনে মহাসড়কের পাশে অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছেন এবং তার অটোরিকশাটি নেই। আমরা দ্রুত সেখানে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে গোয়ালন্দ হাসপাতালে নিয়ে আসি। কিন্তু অবস্থা ভালো না হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়।

ঈসমাইলের ভাগনে জহুরুল ইসলাম জানান, মামা গত বছরের নভেম্বর মাসে ১ লাখ ৮৭ হাজার টাকা দিয়ে অটোরিকশাটি কিনেন। এজন্য তিনি কয়েকটি এনজিও সংস্থা থেকে ২ লাখ টাকা লোন নেন। অনেক কষ্ট করে তিনি রোজগার করে লোনের কিস্তি পরিশোধ ও পরিবারের ভরণ-পোষণ করে আসছিলেন। আমরা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, আমরা লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। তবে তাকে বিষাক্ত কিছু খাইয়ে অজ্ঞান করা হয়েছিল বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই, চালকের মৃত্যু

 গোয়ালন্দ (রাজবাড়ী) প্রতিনিধি  
২৭ জানুয়ারি ২০২২, ০৬:৩৩ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রাজবাড়ীর গোয়ালন্দে ইসমাইল শেখ (৪৫) নামে এক অটোরিকশা চালকের মৃত্যু হয়েছে। বুধবার রাতে ১০টার দিকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। এর আগে এদিন বিকালে উপজেলা পরিষদের সামনে তাকে অজ্ঞান করে অটোরিকশা ছিনতাই করে দুর্বৃত্তরা। 

নিহত ঈসমাইল শেখ উপজেলার পশ্চিম উজানচর রমজান মাতুব্বরপাড়ার মৃত সৈয়দ আলী শেখের ছেলে।

ঈসমাইল শেখের ছোট ভাইয়ের স্ত্রী বন্যা খাতুন জানান, তার ভাসুর বুধবার বেলা ৩টার দিকে অটোরিকশা নিয়ে বাড়ি থেকে বের হন। বেলা ৪টার দিকে আমরা খবর পাই তিনি উপজেলার সামনে মহাসড়কের পাশে অজ্ঞান হয়ে পড়ে আছেন এবং তার অটোরিকশাটি নেই। আমরা দ্রুত সেখানে গিয়ে স্থানীয়দের সহায়তায় তাকে গোয়ালন্দ হাসপাতালে নিয়ে আসি। কিন্তু অবস্থা ভালো না হওয়ায় চিকিৎসকরা তাকে ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করেন। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রাত ১০টার দিকে তার মৃত্যু হয়। 

ঈসমাইলের ভাগনে জহুরুল ইসলাম জানান, মামা গত বছরের নভেম্বর মাসে ১ লাখ ৮৭ হাজার টাকা দিয়ে অটোরিকশাটি কিনেন। এজন্য তিনি কয়েকটি এনজিও সংস্থা থেকে ২ লাখ টাকা লোন নেন। অনেক কষ্ট করে তিনি রোজগার করে লোনের কিস্তি পরিশোধ ও পরিবারের ভরণ-পোষণ করে আসছিলেন। আমরা এ ঘটনার সঙ্গে জড়িত অপরাধীকে দ্রুত গ্রেফতার ও শাস্তির দাবি জানাচ্ছি।

গোয়ালন্দ ঘাট থানার এসআই হাবিবুর রহমান জানান, আমরা লাশের সুরতহাল রিপোর্ট করে ময়নাতদন্তের জন্য রাজবাড়ী সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছি। রিপোর্ট পেলে মৃত্যুর প্রকৃত কারণ জানা যাবে। তবে তাকে বিষাক্ত কিছু খাইয়ে অজ্ঞান করা হয়েছিল বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে। এ বিষয়ে পরিবারের পক্ষ থেকে থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে। 
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন