ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার
jugantor
ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

  ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি  

২৮ জানুয়ারি ২০২২, ১৪:৫২:৩৬  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে বেলী বেগম (৭০) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আগুনে ওই বৃদ্ধার বসতঘরটিও পুড়ে ছাই হয়ে যায়।

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার চরদুখিয়া পূর্ব ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। মৃত বেলী বেগম ওই ইউনিয়নের পশ্চিম সন্তোষপুর গ্রামের হামিদ আলী হাজিবাড়িতে মৃত লনি মিয়ার বড় মেয়ে।

ওই বাড়ির প্রবাসী বাবুল হাজীর স্ত্রী জান্নাত আক্তার জানান, রাতে হঠাৎ করেই আগুন দেখে চিৎকার করলে বাড়ির লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। তবে ঘরের ভেতরে থাকা বৃদ্ধ বেলী বেগমকে বাঁচাতে পারেনি বাড়ির লোকজন।

বাড়ির লোকজন জানান, বেলী বেগম ঘরের ভেতর দিয়ে তালা দিয়ে ঘুমাতেন। যার কারণে তাকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তবে কীভাবে আগুন লাগল তা কেউই নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না।

স্থানীয় লোকজনের ধারণা, গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনেই বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

বেলী বেগমের ছোট বোন মনি বেগম জানান, আমার বোন বেলী বেগম ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি পিজি হাসপাতালে আয়ার কাজ করতেন। নিঃসন্তান বেলী বেগমের স্বামী সাজ্জাদ হোসেন ২০০৮ সালে মারা যান। স্বামীর বাড়ি সিলেট হলেও তিনি গত প্রায় আড়াই বছর ধরে বাবার বাড়িতে থাকেন।

আগুনের সংবাদ পেয়ে হাইমচর উপজেলার আলগী বাজার থেকে ফায়ার সার্ভিসের ৫ সদস্যের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আগুন লাগার বিষয়ে আলগী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ওহিদুল ইসলাম জানান, আগুন লাগার তথ্য জেনে ৫ জন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ঘটনাস্থলে এসে সম্পূর্ণ আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছি। কীভাবে আগুন লেগেছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এখনও কিছুই বলা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, আগুন লাগার ঘটনা শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আগুনে পুড়ে যাওয়া বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছি।

ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে প্রাণ গেল বৃদ্ধার

 ফরিদগঞ্জ (চাঁদপুর) প্রতিনিধি 
২৮ জানুয়ারি ২০২২, ০২:৫২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চাঁদপুরের ফরিদগঞ্জে ঘুমন্ত অবস্থায় আগুনে পুড়ে বেলী বেগম (৭০) নামে এক বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে। এ সময় আগুনে ওই বৃদ্ধার বসতঘরটিও পুড়ে ছাই হয়ে যায়। 

বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার চরদুখিয়া পূর্ব ইউনিয়নে এ ঘটনা ঘটে। মৃত বেলী বেগম ওই ইউনিয়নের পশ্চিম সন্তোষপুর গ্রামের হামিদ আলী হাজিবাড়িতে মৃত লনি মিয়ার বড় মেয়ে। 

ওই বাড়ির প্রবাসী বাবুল হাজীর স্ত্রী জান্নাত আক্তার জানান, রাতে হঠাৎ করেই আগুন দেখে চিৎকার করলে বাড়ির লোকজন এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হন। তবে ঘরের ভেতরে থাকা বৃদ্ধ বেলী বেগমকে বাঁচাতে পারেনি বাড়ির লোকজন। 

বাড়ির লোকজন জানান, বেলী বেগম ঘরের ভেতর দিয়ে তালা দিয়ে ঘুমাতেন। যার কারণে তাকে জীবিত উদ্ধার করা সম্ভব হয়নি। তবে কীভাবে আগুন লাগল তা কেউই নিশ্চিত করে বলতে পারছেন না। 

স্থানীয় লোকজনের ধারণা, গ্যাস সিলিন্ডারের আগুনেই বৃদ্ধার মৃত্যু হয়েছে।

বেলী বেগমের ছোট বোন মনি বেগম জানান, আমার বোন বেলী বেগম ক্যান্সার রোগে আক্রান্ত ছিলেন। তিনি পিজি হাসপাতালে আয়ার কাজ করতেন। নিঃসন্তান বেলী বেগমের স্বামী সাজ্জাদ হোসেন ২০০৮ সালে মারা যান। স্বামীর বাড়ি সিলেট হলেও তিনি গত প্রায় আড়াই বছর ধরে বাবার বাড়িতে থাকেন। 

আগুনের সংবাদ পেয়ে হাইমচর উপজেলার আলগী বাজার থেকে ফায়ার সার্ভিসের ৫ সদস্যের একটি ইউনিট ঘটনাস্থলে এসে আগুন নিয়ন্ত্রণে আনে।

আগুন লাগার বিষয়ে আলগী ফায়ার সার্ভিসের স্টেশন অফিসার ওহিদুল ইসলাম জানান, আগুন লাগার তথ্য জেনে ৫ জন ফায়ার সার্ভিসের কর্মী ঘটনাস্থলে এসে সম্পূর্ণ আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছি। কীভাবে আগুন লেগেছে জানতে চাইলে তিনি জানান, এখনও কিছুই বলা যাচ্ছে না।

এ বিষয়ে ফরিদগঞ্জ থানার ওসি মোহাম্মদ শহীদ হোসেন বলেন, আগুন লাগার ঘটনা শুনে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে আগুনে পুড়ে যাওয়া বৃদ্ধার লাশ উদ্ধার করেছি।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন