রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের ক্যাবল চুরির ঘটনায় ২ ভাই গ্রেফতার
jugantor
রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের ক্যাবল চুরির ঘটনায় ২ ভাই গ্রেফতার

  পাবনা প্রতিনিধি  

২৮ জানুয়ারি ২০২২, ২১:১০:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনায় নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প থেকে বৈদ্যুতিক ক্যাবল চুরির ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া থেকে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে ঈশ্বরদী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

গ্রেফতাররা হলেন- কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার বানিয়াপাড়া গ্রামের মো. হুজুর আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম সাজিব (৩৫) ও তার ভাই তারেকুল ইসলাম তারেক (৩০)। তারা দু’জনই পেশায় ভাঙারি ব্যবসায়ী।

ঈশ্বরদী থানার ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শুক্রবার তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে।

কুষ্টিয়া র‌্যাব-১২ সিপিসি-১ এর কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়ান্ড্রন লিডার ইলিয়াস খান জানান, রূপপুর প্রকল্পে ক্যাবল চুরির বিষয়টি নিয়ে তারা কয়েক দিন ধরে বিভিন্ন ধরনের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করেন। তথ্যর ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন গ্রেফতার দু’ভাই চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং চুরি করা ক্যাবলগুলো তাদের কাছে ছিল। কোনো এক সময় মেশিন দিয়ে কেটে ক্যাবলগুলো তারা অন্যত্র বিক্রি করে দেয়। এসব তথ্যর সত্যতা পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রূপপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আতিকুল ইসলাম আতিক জানান, রূপপুররের দুটি লেইভার ক্রেন থেকে গুরুত্বপূর্ণ বৈদ্যুতিক ক্যাবল চুরির ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে গ্রেফতার দু'জন আপন ভাই। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি। তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না। শুক্রবার তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে।

পুলিশের তথ্যমতে, রূপপুর প্রকল্পের অভ্যন্তরে জাহাজের মালামাল ওঠা-নামার নির্ধারিত স্থানে থাকা ওই দুটি লেইভার ক্রেন গত ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত পর্যবেক্ষণের সময়ে ক্যাবলগুলো রাখা ছিল। কিন্তু গত ৯ জানুয়ারি পুনরায় জাহাজে ওই দুটি লেইভার ক্রেনের যান্ত্রিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সময় ২৬৫ মিটার এ গুরুত্বপূর্ণ ক্যাবল পাওয়া যায়নি।

এরপর থেকে রূপপুর প্রকল্পের জন্য নির্মিত জেটিতে মালামাল ওঠা-নামা অনিয়মিত হয়। এই চুরির বেশ কয়েক দিন পর ১৯ জানুয়ারি রাত ১১টার দিকে ঈশ্বরদী থানায় রূপপুর প্রকল্প থেকে এ সংক্রান্ত একটি মামলা দায়ের করা হয়। রাশিয়ান কোম্পানি ‘আছের’ ডাইরেক্টর অব সিকিউরিটি ভিএন তুরুটিন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চুরি যাওয়া ক্যাবল এর দাম প্রায় ৬৫ লাখ টাকা।

রূপপুর বিদ্যুৎকেন্দ্রের ক্যাবল চুরির ঘটনায় ২ ভাই গ্রেফতার

 পাবনা প্রতিনিধি 
২৮ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:১০ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

পাবনায় নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প থেকে বৈদ্যুতিক ক্যাবল চুরির ঘটনায় দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে কুষ্টিয়া থেকে তাদের গ্রেফতার করে র‌্যাব। পরে ঈশ্বরদী থানা পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়। 

গ্রেফতাররা হলেন- কুষ্টিয়া জেলার কুমারখালী উপজেলার বানিয়াপাড়া গ্রামের মো. হুজুর আলীর ছেলে সাইফুল ইসলাম সাজিব (৩৫) ও তার ভাই তারেকুল ইসলাম তারেক (৩০)। তারা দু’জনই পেশায় ভাঙারি ব্যবসায়ী। 

ঈশ্বরদী থানার ওসি (তদন্ত) হাদিউল ইসলাম গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, শুক্রবার তাদেরকে আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

কুষ্টিয়া র‌্যাব-১২ সিপিসি-১ এর কোম্পানি কমান্ডার স্কোয়ান্ড্রন লিডার ইলিয়াস খান জানান, রূপপুর প্রকল্পে ক্যাবল চুরির বিষয়টি নিয়ে তারা কয়েক দিন ধরে বিভিন্ন ধরনের তথ্য উপাত্ত সংগ্রহ করেন। তথ্যর ভিত্তিতে তারা জানতে পারেন গ্রেফতার দু’ভাই চুরির ঘটনার সঙ্গে জড়িত এবং চুরি করা ক্যাবলগুলো তাদের কাছে ছিল। কোনো এক সময় মেশিন দিয়ে কেটে ক্যাবলগুলো তারা অন্যত্র বিক্রি করে দেয়। এসব তথ্যর সত্যতা পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার রাতে অভিযান চালিয়ে তাদের গ্রেফতার করা হয়। 

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা রূপপুর ফাঁড়ির ইনচার্জ এসআই আতিকুল ইসলাম আতিক জানান, রূপপুররের দুটি লেইভার ক্রেন থেকে গুরুত্বপূর্ণ বৈদ্যুতিক ক্যাবল চুরির ঘটনায় জড়িত থাকার সন্দেহে  গ্রেফতার দু'জন আপন ভাই। পুলিশের প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে তাদের কাছ থেকে বেশ কিছু তথ্য পেয়েছি। তদন্তের স্বার্থে বিস্তারিত বলা যাচ্ছে না। শুক্রবার তাদের আদালতে পাঠানো হয়েছে। 

পুলিশের তথ্যমতে, রূপপুর প্রকল্পের অভ্যন্তরে জাহাজের মালামাল ওঠা-নামার নির্ধারিত স্থানে থাকা ওই দুটি লেইভার ক্রেন গত ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত পর্যবেক্ষণের সময়ে ক্যাবলগুলো রাখা ছিল। কিন্তু গত ৯ জানুয়ারি পুনরায় জাহাজে ওই দুটি লেইভার ক্রেনের যান্ত্রিক পরীক্ষা-নিরীক্ষা করার সময় ২৬৫ মিটার এ গুরুত্বপূর্ণ ক্যাবল পাওয়া যায়নি। 

এরপর থেকে রূপপুর প্রকল্পের জন্য নির্মিত জেটিতে মালামাল ওঠা-নামা অনিয়মিত হয়। এই চুরির বেশ কয়েক দিন পর ১৯ জানুয়ারি রাত ১১টার দিকে ঈশ্বরদী থানায় রূপপুর প্রকল্প থেকে এ সংক্রান্ত একটি মামলা দায়ের করা হয়। রাশিয়ান কোম্পানি ‘আছের’ ডাইরেক্টর অব সিকিউরিটি ভিএন তুরুটিন বাদী হয়ে মামলাটি করেন। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, চুরি যাওয়া ক্যাবল এর দাম প্রায় ৬৫ লাখ টাকা।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন