শিশু নির্যাতনের মামলায় গ্রেফতার ১
jugantor
শিশু নির্যাতনের মামলায় গ্রেফতার ১

  রংপুর ব্যুরো  

২৮ জানুয়ারি ২০২২, ২১:১৪:০৬  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের কাউনিয়ায় চুরির অপবাদ দিয়ে হাত-পা বেঁধে দুই শিশুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের মামলায় আকরাম হোসেন (৩২) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে তাকে টেপামধুপুর ইউনিয়নের মোল্লাটারী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়।

আকরাম হোসেন টেপামধুপুর ইউনিয়নের মোল্লাটারী গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আকরাম হোসেনের বাড়িতে ঘরের সিঁধ কেটে ৭০ হাজার টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে ৯ ও ১০ বছরের দুটি শিশুকে ইউপি সদস্য ইউনুছ আলীর বাড়িতে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়। পরে বুধবার দুপুরে ৯৯৯-এ খবর পেয়ে পুলিশ ইউপি সদস্যের বাড়ি থেকে শিশু দুটিকে উদ্ধার করে অভিভাবকদের কাছে হস্তান্তর করে।

এর মধ্যে একজন শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ নিয়ে পত্রিকায় খবর প্রকাশ হলে পুলিশের টনক নড়ে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে মাঠে নামে পুলিশ। একজনকে গ্রেফতার করে। অপর দু’জন পলাতক।

কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুমুর রহমান জানান, শিশু নির্যাতনের ঘটনাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে কাউনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদী থানার উপ-পরিদর্শক স্বপন কুমার সরকার বাদী হয়ে এ মামলা করেন। মামলায় টেপামধুপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ইউনুছ আলীসহ তিনজনের নাম উল্লেখ রয়েছে। মামলা দায়েরের পর অভিযান চালিয়ে আকরামকে গ্রেফতার করা হয়।

ওসি মাসুমুর রহমান আরও বলেন, আকরামকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে রংপুর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অমানবিকভাবে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

শিশু নির্যাতনের মামলায় গ্রেফতার ১

 রংপুর ব্যুরো 
২৮ জানুয়ারি ২০২২, ০৯:১৪ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

রংপুরের কাউনিয়ায় চুরির অপবাদ দিয়ে হাত-পা বেঁধে দুই শিশুকে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতনের মামলায় আকরাম হোসেন (৩২) নামে একজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার রাতে তাকে টেপামধুপুর ইউনিয়নের মোল্লাটারী গ্রাম থেকে গ্রেফতার করা হয়। 

আকরাম হোসেন টেপামধুপুর ইউনিয়নের মোল্লাটারী গ্রামের মৃত আব্দুর রহমানের ছেলে।

মামলা ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, আকরাম হোসেনের বাড়িতে ঘরের সিঁধ কেটে ৭০ হাজার টাকা চুরির অপবাদ দিয়ে ৯ ও ১০ বছরের দুটি শিশুকে ইউপি সদস্য ইউনুছ আলীর বাড়িতে নিয়ে হাত-পা বেঁধে মধ্যযুগীয় কায়দায় নির্যাতন করা হয়। পরে বুধবার দুপুরে ৯৯৯-এ খবর পেয়ে পুলিশ ইউপি সদস্যের বাড়ি থেকে শিশু দুটিকে উদ্ধার করে অভিভাবকদের কাছে হস্তান্তর করে।

এর মধ্যে একজন শিশু অসুস্থ্য হয়ে পড়লে তাকে বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়। এ নিয়ে পত্রিকায় খবর প্রকাশ হলে পুলিশের টনক নড়ে। অভিযুক্তদের গ্রেফতার করতে মাঠে নামে পুলিশ। একজনকে গ্রেফতার করে। অপর দু’জন পলাতক।

কাউনিয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুমুর রহমান জানান, শিশু নির্যাতনের ঘটনাটি স্পর্শকাতর হওয়ায় এ ঘটনায় গত বৃহস্পতিবার রাতে কাউনিয়া থানায় একটি মামলা দায়ের করা হয়েছে। মামলার বাদী থানার উপ-পরিদর্শক স্বপন কুমার সরকার বাদী হয়ে এ মামলা করেন। মামলায় টেপামধুপুর ইউনিয়ন পরিষদের ৩ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য ইউনুছ আলীসহ তিনজনের নাম উল্লেখ রয়েছে। মামলা দায়েরের পর অভিযান চালিয়ে আকরামকে গ্রেফতার করা হয়। 

ওসি মাসুমুর রহমান আরও বলেন, আকরামকে মামলায় গ্রেফতার দেখিয়ে শুক্রবার দুপুরে রংপুর আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে পাঠানো হয়েছে। অমানবিকভাবে শিশু নির্যাতনের ঘটনায় জড়িত অন্যদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।
 

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন