বাঘার আম যুক্তরাজ্যসহ ৮ দেশে রফতানি শুরু

  বাঘা (রাজশাহী) প্রতিনিধি ২২ মে ২০১৮, ২১:০৭ | অনলাইন সংস্করণ

আম বাঘা
বাঘায় এভাবেই গাছে গাছে ঝুলে আছে আম। ছবি: সংগৃহীত

রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আম চলতি মৌসুমে যুক্তরাজ্য, নেদারল্যান্ডস, সুইডেন, নরওয়ে, পর্তুগাল, ফ্রান্স, রাশিয়াসহ ৮টি দেশে রফতানি শুরু হয়েছে। হটেক্স ফাউন্ডেশন ও উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের যৌথ আয়োজনে বিশ্ব খাদ্য সংস্থার মাধ্যমে এই আম রফতানির কাজ শুরু হয়েছে।

গত তিন বছর থেকে আম রফতানি কার্যক্রম চালু হয়েছে। ইতিমধ্যেই ২০ মে থেকে গাছ থেকে আম পাড়া শুরু হয়েছে। আম থেকে চলতি মৌসুমে এ উপজেলার লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান ও আয় হবে ৫০০ কোটি টাকা।

বাঘায় ফজলি, খেরসাপাত, গোপালভোগ, মহনভোগ, ল্যাংড়া বিখ্যাত। এছাড়া বৌ-ভুলানি, রানি পছন্দ, জামাই খুশি, বৃন্দাবন, তুতাপরি, লোকনা, বোম্বাই, খেরসাপাত, দাউদ ভোগ, সেন্দুরি, আমরোপালি, আশ্বিনা, ব্যানানা, মল্লিকা, ক্ষুদি খেরসাপাত, কালীভোগসহ শতাধিক জাতের আম রয়েছে।

আম রফতানির জন্য ৫০ জন বাগান মালিককে উত্তম কৃষি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে নিরাপদ ও বিষমুক্ত আম উৎপাদনের লক্ষ্যে প্রশিক্ষণের মাধ্যমে তালিকাভুক্ত করে সনদপত্র প্রদান করা হয়।

এই প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত চাষিরা কৃষি ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে বাগানে উৎপাদিত ও ক্ষতিকর রাসায়নিকমুক্ত ২০০ থেকে ৩০০ গ্রাম ওজনের আম ঢাকা বিএসটিআই ল্যাবে নমুনা পরীক্ষা করেন।

বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের একটি টিম ইতিমধ্যেই বাগান পরিদর্শন করেছে। ফলে এ উপজেলার আম তৃতীয়বারের মতো বিদেশে রফতানিযোগ্য হিসেবে বিবেচিত হয়েছে।

কলীগ্রামের আম চাষি আশরাফুদৌল্লা, আড়পাড়া গ্রামের মহসীন আলী বলেন, গতবারের মতো এবারও আম রফতানিতে সফল হবে। ফলে চাষিদের মধ্যে আম রফতানির বিষয়ে ব্যাপক উৎসাহ-উদ্দীপনা দেখা যাচ্ছে।

রাজশাহীর কয়েকটি উপজেলার মধ্যে আম প্রধান উপজেলা হিসেবে বাঘার আম ব্যাপক পরিচিত। প্রতি বছর আম মৌসুমে গ্রামে গ্রামে বাজার গড়ে ওঠে। ফলে বাজারে ক্ষুদ্র ও প্রান্তিক ব্যবসায়ীরা ব্যস্ত সময় কাটান।

ব্যবসায়ীরা চুক্তি মূল্যে বাগান কিনে রাজধানীসহ দেশের বিভিন্ন শহরে আম চালান করে। ক্ষুদ্র ব্যবসায়ীরাও বসে থাকেন না। আম ফেরি করে গ্রামে গ্রামে বিক্রি করেন। স্বল্প পরিসরে নিকটতম বাজারে বিক্রি করেন।

২০ মে থেকে গুটি আম, ২৫ মে গোপালভোগ, ২৮ মে হিমসাগর, খেরসাপাত, লক্ষণভোগ, ১ জুন লোকনা, ল্যাংড়া, ৫ জুন ১৫ জুন ফজলি, ১ জুলাই আস্বিনা আম চাষিরা গাছ থেকে নামিয়ে ঢাকা, নরসিংদী, ভৈরব, বরিশাল, সিলেট, চট্টগ্রাম ও ফেনীসহ দেশের অন্যান্য স্থানে কেনাবেচা করবেন।

বাঘা উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা সাবিনা বেগম বলেন, বাঘা উপজেলার মাটি আম চাষের জন্য উপযোগী। ফলে এই দেশে চাহিদা মিটিয়ে বিদেশে রফতানি করা হচ্ছে। এছাড়া আম থেকে চলতি মৌসুমে এ উপজেলার লক্ষাধিক মানুষের কর্মসংস্থান ও আয় হবে প্রায় ৫০০ কোটি টাকা।

বাঘা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শাহিন রেজা বলেন, অনেক জায়গায় চাকরি করেছি, আমও খেয়েছি। কিন্তু বাঘার আমের স্বাদ ও গুণগতমান অতুলনীয়।

 

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
bestelectronics

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
.