অটোরিকশায় উঠিয়ে জঙ্গলে নিয়ে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ
jugantor
অটোরিকশায় উঠিয়ে জঙ্গলে নিয়ে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ

  বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি  

১৭ মে ২০২২, ২০:২৬:৩৩  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে অটোরিকশায় উঠিয়ে জঙ্গলে নিয়ে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। এ অভিযোগে সোমবার রাতে উপজেলার বৈলছড়ি এলাকা থেকে অটোরিকশাচালকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন- বৈলছড়ি ইউপির ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শফিক আহমেদের ছেলে মো. মোক্তার (৪০), একই এলাকার আব্দুল কুদ্দুস ফকিরের ছেলে মো. সরোয়ার (৩৫) ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ফরিদ আহমদের পুত্র নুরুল আলম (৩৫)।

জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই নারী শুক্রবার (১৩ মে) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার কালীপুরের পূর্ব পালেকগ্রাম শাহবারিয়া মাদ্রাসায় যায়। ওই মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে বাড়িতে ফিরে আসার জন্য কালীপুর ইজ্জতনগর ফকিরের দোকান এলাকার ফয়েজ আহমদের ছেলে শহিদুল ইসলামের অটোরিকশায় ওঠে। যাত্রাপথে রাস্তা পরিবর্তন করে ওই গৃহবধূকে শহিদুল গ্রামের ভেতরের রাস্তা দিয়ে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বৈলছড়ি আজিজিয়া কাছেমুল উলুম (ফকিরপাড়া বড় মাদ্রাসা) মাদ্রাসা সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে কালীপুর-বৈলছড়ী সীমান্তের ৯নং ওয়ার্ডের বরকাটা এলাকার গভীর জঙ্গলে নিয়ে যায়।

সেখানে ওতপেতে থাকা ৫-৭ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল ওই নারীকে শারীরিক নির্যাতনসহ পালাক্রমে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। পরদিন শনিবার সকালে পরিবারের লোকজন গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরবর্তীতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

বৈলছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন বলেন, বাঁশখালী থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করলে ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সোমবার (১৬ মে) রাতে ভুক্তভোগী ওই নারীর মা বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানা মামলা করেছেন।

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বাঁশখালী থানার ওসি মো. কামাল উদ্দিন বলেন, গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় স্থানীয়রা তিনজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। এ ঘটনায় তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

অটোরিকশায় উঠিয়ে জঙ্গলে নিয়ে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ

 বাঁশখালী (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি 
১৭ মে ২০২২, ০৮:২৬ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

চট্টগ্রামের বাঁশখালীতে অটোরিকশায় উঠিয়ে জঙ্গলে নিয়ে দুই সন্তানের জননীকে গণধর্ষণ করা হয়েছে। এ অভিযোগে সোমবার রাতে উপজেলার বৈলছড়ি এলাকা থেকে অটোরিকশাচালকসহ তিনজনকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ।

গ্রেফতাররা হলেন- বৈলছড়ি ইউপির ৩ নম্বর ওয়ার্ডের শফিক আহমেদের ছেলে মো. মোক্তার (৪০), একই এলাকার আব্দুল কুদ্দুস ফকিরের ছেলে মো. সরোয়ার (৩৫) ও ৪ নম্বর ওয়ার্ডের ফরিদ আহমদের পুত্র নুরুল আলম (৩৫)।

জানা যায়, ভুক্তভোগী ওই নারী শুক্রবার (১৩ মে) বেলা সাড়ে ১১টায় উপজেলার কালীপুরের পূর্ব পালেকগ্রাম শাহবারিয়া মাদ্রাসায় যায়। ওই মাদ্রাসা থেকে বের হয়ে বাড়িতে ফিরে আসার জন্য কালীপুর ইজ্জতনগর ফকিরের দোকান এলাকার ফয়েজ আহমদের ছেলে শহিদুল ইসলামের অটোরিকশায় ওঠে। যাত্রাপথে রাস্তা পরিবর্তন করে ওই গৃহবধূকে শহিদুল গ্রামের ভেতরের রাস্তা দিয়ে বাড়ি নিয়ে যাওয়ার কথা বলে বৈলছড়ি আজিজিয়া কাছেমুল উলুম (ফকিরপাড়া বড় মাদ্রাসা) মাদ্রাসা সংলগ্ন রাস্তা দিয়ে কালীপুর-বৈলছড়ী সীমান্তের ৯নং ওয়ার্ডের বরকাটা এলাকার গভীর জঙ্গলে নিয়ে যায়।

সেখানে ওতপেতে থাকা ৫-৭ জনের একটি সংঘবদ্ধ দল ওই নারীকে শারীরিক নির্যাতনসহ পালাক্রমে ধর্ষণ করে। একপর্যায়ে তিনি অজ্ঞান হয়ে যান। পরদিন শনিবার সকালে পরিবারের লোকজন গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে প্রথমে বাঁশখালী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স এবং পরবর্তীতে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে যান।

বৈলছড়ি ইউপি চেয়ারম্যান কফিল উদ্দিন বলেন, বাঁশখালী থানা পুলিশকে বিষয়টি অবহিত করলে ভুক্তভোগী নারীর অভিযোগের ভিত্তিতে তাৎক্ষণিক অভিযান পরিচালনা করে তিনজনকে গ্রেফতার করে পুলিশ। এ ঘটনায় সোমবার (১৬ মে) রাতে ভুক্তভোগী ওই নারীর মা বাদী হয়ে ৫ জনের নাম উল্লেখ করে থানা মামলা করেছেন। 

বিষয়টির সত্যতা নিশ্চিত করে বাঁশখালী থানার ওসি মো. কামাল উদ্দিন বলেন, গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় স্থানীয়রা তিনজনকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছেন। এ ঘটনায় তদন্তপূর্বক আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন