কেনা জমির রেজিস্ট্রি না পাওয়ায় বিষপানে নারীর 'আত্মহত্যা'
jugantor
কেনা জমির রেজিস্ট্রি না পাওয়ায় বিষপানে নারীর 'আত্মহত্যা'

  নোয়াখালী প্রতিনিধি  

১৮ মে ২০২২, ১২:৪২:৪৭  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে জমি কিনে রেজিস্ট্রি না পাওয়ায় ক্ষোভে মোশের্দা বেগম (৫০) নামে এক গৃহবধূ বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়। এর আগে একই দিন বেলা ১১টার দিকে নিজ বাড়িতে ধানের পোকা মারা কীটনাশক পান করলে আত্মীয়রা তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

নিহত মোশের্দা বেগম উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কালামের স্ত্রী।

নিহতের ছেলে ইউসুফ অভিযোগ করে বলেন, ৮ বছর আগে একই এলাকার ছিদ্দিক উল্যার ছেলে সিরাজ বেপারি থেকে বসতবাড়ির জায়গাসহ ৩৭ শতাংশ জমি ক্রয় করে আমাদের পরিবার। এ জমি ক্রয় করার ৮ বছর অতিবাহিত হলেও সিরাজ বেপারি আমাদের জায়গা রেজিস্ট্রি দেয়নি।

আমার মা-বাবা তার কাছ থেকে ক্রয়কৃত জমি রেজিস্ট্রি নিতে বারবার ধরনা দিয়েও ব্যর্থ হয়। সিরাজ বেপারি নানা অজুহাতে জমি রেজিস্ট্রি না দিয়ে তালবাহানা করে। একপর্যায়ে আমার মাকে পাগল অ্যাখা দিয়ে অপমান করে। এতে ক্ষোভে-দুঃখে বিষপান করেন তিনি। এ ঘটনায় সিরাজ বেপারির দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন তিনি।

তবে এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত সিরাজ গা ঢাকা দিয়েছেন। অভিযোগের বিষয়ে জানতে একাধিকবার তার মোবাইলে কল করা হলেও সংযোগ পাওয়া যায়নি। সরেজমিন তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গেলে তার প্রতিষ্ঠান বন্ধ পাওয়া যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চরজব্বার থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা আছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবার এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

কেনা জমির রেজিস্ট্রি না পাওয়ায় বিষপানে নারীর 'আত্মহত্যা'

 নোয়াখালী প্রতিনিধি 
১৮ মে ২০২২, ১২:৪২ পিএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নোয়াখালীর সুবর্ণচরে জমি কিনে রেজিস্ট্রি না পাওয়ায় ক্ষোভে মোশের্দা বেগম (৫০) নামে এক গৃহবধূ বিষপানে আত্মহত্যা করেছেন বলে অভিযোগ উঠেছে।

মঙ্গলবার বিকাল ৫টার দিকে ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ওই গৃহবধূর মৃত্যু হয়। এর আগে একই দিন বেলা ১১টার দিকে নিজ বাড়িতে ধানের পোকা মারা কীটনাশক পান করলে আত্মীয়রা তাকে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে যায়।

নিহত মোশের্দা বেগম উপজেলার চরজব্বর ইউনিয়নের ৩ নম্বর ওয়ার্ডের আবুল কালামের স্ত্রী।

নিহতের ছেলে ইউসুফ অভিযোগ করে বলেন, ৮ বছর আগে একই এলাকার ছিদ্দিক উল্যার ছেলে সিরাজ বেপারি থেকে বসতবাড়ির জায়গাসহ ৩৭ শতাংশ জমি ক্রয় করে আমাদের পরিবার। এ জমি ক্রয় করার ৮ বছর অতিবাহিত হলেও সিরাজ বেপারি আমাদের জায়গা রেজিস্ট্রি দেয়নি। 

আমার মা-বাবা তার কাছ থেকে ক্রয়কৃত জমি রেজিস্ট্রি নিতে বারবার ধরনা দিয়েও ব্যর্থ হয়। সিরাজ বেপারি নানা অজুহাতে জমি রেজিস্ট্রি না দিয়ে তালবাহানা করে। একপর্যায়ে আমার মাকে পাগল অ্যাখা দিয়ে অপমান করে। এতে ক্ষোভে-দুঃখে বিষপান করেন তিনি। এ ঘটনায় সিরাজ বেপারির দৃষ্টান্তমূলক বিচার দাবি করেন তিনি।

তবে এ ঘটনার পর থেকে অভিযুক্ত সিরাজ গা ঢাকা দিয়েছেন। অভিযোগের বিষয়ে জানতে একাধিকবার তার মোবাইলে কল করা হলেও সংযোগ পাওয়া যায়নি। সরেজমিন তার ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে গেলে তার প্রতিষ্ঠান বন্ধ পাওয়া যায়।

বিষয়টি নিশ্চিত করে চরজব্বার থানার ওসি মো. জিয়াউল হক বলেন, মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য ২৫০ শয্যাবিশিষ্ট নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের মর্গে রাখা আছে। এ ঘটনায় নিহতের পরিবার এখন পর্যন্ত কোনো লিখিত অভিযোগ করেনি। অভিযোগ পেলে আইনগত পদক্ষেপ নেওয়া হবে।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন