মেয়রের কাছে চাঁদা দাবি, শ্রীঘরে ছাত্রলীগের সাবেক ২ নেতা!
jugantor
মেয়রের কাছে চাঁদা দাবি, শ্রীঘরে ছাত্রলীগের সাবেক ২ নেতা!

  নড়াইল প্রতিনিধি  

২০ মে ২০২২, ০১:৩৯:০১  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইল পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনজুমান আরার কাছে চাঁদা দাবি করার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় সাবেক দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উচ্ছ্বাস আলম (৩০) এবং ফাইনুল ইসলাম শাওন (৩২) নামে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে নড়াইলের গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ শওকত কবির।

এর আগে বুধবার রাতে গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে সিলেট থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

অভিযুক্ত উচ্ছ্বাস আলম নড়াইল পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও শাওন ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। আটককৃতদের উভয়েরই বাড়ি পৌর শহরের ভওয়াখালী গ্রামে।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ এপ্রিল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিলয় রায় বাঁধন, নড়াইল পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি উচ্ছ্বাস আলম ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফাইনুল ইসলাম শাওন নড়াইল পৌর মেয়রের কক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় মেয়র আনজুমান আরা এবং প্যানেল মেয়র জহিরুল হকের সঙ্গে পৌরসভার হাট-বাজারের খাজনা ও টোল আদায়ের টেন্ডারের বিষয়ে বাগবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়।

একপর্যায়ে তারা উভয়কেই অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ ও দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে। এ ঘটনায় পরদিন ২৭ এপ্রিল মেয়র আনজুমান আরা বাদী হয়ে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা বাঁধন, উচ্ছ্বাস ও শাওনসহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করে সদর থানায় চাঁদা দাবির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ মে সকালে পৌর ভবনের সামনে জেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ব্যানারে আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে নড়াইল পৌর মেয়রকে দুর্নীতিগ্রস্ত আখ্যা দিয়ে শিগগিরই তদন্তসাপেক্ষে অপসারণের দাবিতে পাল্টা বিক্ষোভ মিছিল করে অপরপক্ষ।

মেয়রের কাছে চাঁদা দাবি, শ্রীঘরে ছাত্রলীগের সাবেক ২ নেতা!

 নড়াইল প্রতিনিধি 
২০ মে ২০২২, ০১:৩৯ এএম  |  অনলাইন সংস্করণ

নড়াইল পৌর মেয়র ও জেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি আনজুমান আরার কাছে চাঁদা দাবি করার অভিযোগে দায়েরকৃত মামলায় সাবেক দুই ছাত্রলীগ নেতাকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার সকালে উচ্ছ্বাস আলম (৩০) এবং ফাইনুল ইসলাম শাওন (৩২) নামে ২ জনকে গ্রেফতার করেছে নড়াইলের গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশ।

গ্রেফতারকৃতদের আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানিয়েছেন নড়াইল সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শেখ শওকত কবির।

এর আগে বুধবার রাতে গোয়েন্দা সংবাদের ভিত্তিতে সিলেট থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

অভিযুক্ত উচ্ছ্বাস আলম নড়াইল পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি ও শাওন ছাত্রলীগের রাজনীতির সঙ্গে জড়িত ছিলেন। আটককৃতদের উভয়েরই বাড়ি পৌর শহরের ভওয়াখালী গ্রামে।

প্রসঙ্গত, গত ২৬ এপ্রিল জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক নিলয় রায় বাঁধন, নড়াইল পৌর ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি উচ্ছ্বাস আলম ও সাবেক ছাত্রলীগ নেতা ফাইনুল ইসলাম শাওন নড়াইল পৌর মেয়রের কক্ষে প্রবেশ করেন। এ সময় মেয়র আনজুমান আরা এবং প্যানেল মেয়র জহিরুল হকের সঙ্গে পৌরসভার হাট-বাজারের খাজনা ও টোল আদায়ের টেন্ডারের বিষয়ে বাগবিতণ্ডার সৃষ্টি হয়।

একপর্যায়ে তারা উভয়কেই অশ্রাব্য ভাষায় গালিগালাজ ও দেখে নেওয়ার হুমকি প্রদান করে। এ ঘটনায় পরদিন ২৭ এপ্রিল মেয়র আনজুমান আরা বাদী হয়ে ছাত্রলীগের সাবেক নেতা বাঁধন, উচ্ছ্বাস ও শাওনসহ অজ্ঞাত ৮-১০ জনকে আসামি করে সদর থানায় চাঁদা দাবির অভিযোগে মামলা দায়ের করেন। এ নিয়ে উভয়পক্ষের মধ্যে চরম উত্তেজনা বিরাজ করছে।

এরই ধারাবাহিকতায় গত ১০ মে সকালে পৌর ভবনের সামনে জেলা আওয়ামী লীগ ও এর অঙ্গ ও সহযোগী সংগঠনের ব্যানারে আসামিদের গ্রেফতারের দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

অপরদিকে নড়াইল পৌর মেয়রকে দুর্নীতিগ্রস্ত আখ্যা দিয়ে শিগগিরই তদন্তসাপেক্ষে অপসারণের দাবিতে পাল্টা বিক্ষোভ মিছিল করে অপরপক্ষ।

যুগান্তর ইউটিউব চ্যানেলে সাবস্ক্রাইব করুন
আরও খবর
 
জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন