এমপি বদি সৌদি আরবে

প্রকাশ : ০১ জুন ২০১৮, ২২:৩২ | অনলাইন সংস্করণ

  কক্সবাজার প্রতিনিধি

ছবি: সংগৃহীত

দেশজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযানের মধ্যে কক্সবাজার-৪ (উখিয়া-টেকনাফ) আসনের বিতর্কিত সরকারদলীয় সংসদ সদস্য আবদুর রহমান বদি সৌদি আরব গেছেন।

বৃহস্পতিবার রাতে হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে সৌদি আরবের উদ্দেশে তিনি বাংলাদেশ ত্যাগ করেন।

এদিকে এমপি আবদুর রহমান বদি ওমরা হজ পালনের উদ্দেশে সৌদি আরব গেলেও একটি সূত্র বলছে, মাদকবিরোধী অভিযানকে কেন্দ্র করে বহুল আলোচিত এই এমপি দেশ ত্যাগ করেছেন।

তবে এমপি বদির ব্যক্তিগত সহকারী হেলাল উদ্দিন যুগান্তরকে বলেন, এমপি আবদুর রহমান বদি ওমরাহ হজ পালনের উদ্দেশে সৌদি আরব গেছেন। সৌদি এয়ারলাইনসের একটি উড়োজাহাজে করে বৃহস্পতিবার রাতে তিনি সৌদি আরবের উদ্দেশে ঢাকা ছাড়েন।তার সঙ্গে আছেন বন্ধু গিয়াস উদ্দিন, নুরুল আকতার ও উখিয়ার মৌলভি আলী নূরী।

হেলাল উদ্দিন আরও বলেন, এমপি বদির মেয়ে সামিয়া রহমান ও জামাতা রানা আশরাফ গত ২৬ মে ওমরাহ পালনের জন্য সৌদি আরব গেছেন। সেখানে আপনজনদের সঙ্গে সাক্ষাতের কথা রয়েছে এমপির।

এদিকে দেশব্যাপী চলমান মাদকবিরোধী অভিযান চলাকালে এমপি বদির সৌদি আরব যাওয়াকে কেউ কেউ ভিন্নভাবে দেখছেন। টেকনাফ উপজেলা আওয়ামী লীগের কয়েকজন নেতা নাম প্রকাশ না করার শর্তে বলেন, দেশজুড়ে মাদকবিরোধী অভিযান চলার সময় এমপি বদির হঠাৎ করে সৌদি আরবে যাওয়াটা একধরনের কৌশল। অভিযান থেকে বাঁচতেই তিনি সৌদি আরব গেছেন।

তবে এমপি বদির ব্যক্তিগত সহকারী হেলাল উদ্দিন দাবি করেন, মাদকবিরোধী অভিযানের ভয়ে দেশ ছাড়ার বিষয়টি সত্য নয়। তিনি অনেক আগেই ওমরাহ পালনের সিদ্ধান্ত নিয়েছেন। সব নিয়মনীতি মেনে যথাযথ কর্তৃপক্ষের অনুমতি সাপেক্ষে তিনি সৌদি আরব গেছেন। আর ১৭ জুন দেশে ফিরবেন তিনি। তখন বুঝবেন এমপি সাহেব কি পালিয়েছে না ওমরা পালনে গেছেন।

সূত্রমতে, এমপি বদি ওমরা পালনের জন্য দেশ ত্যাগ করলেও চলমান সময়ে মাদকের নাম এলেই বদির নাম বাদ দেয়ার কোনো সুযোগ নেই। তাই এমপি বদি সৌদি আরব যাওয়ার বিষয়টি বর্তমানে আলোচনা ও সমালোচনার তুঙ্গে ওঠেছে।

কেউ বলছেন বদি আত্মরক্ষার্থে দেশ ত্যাগ করেছেন আবার কেউ কেউ মনে করছে মাদকবিরোধী অভিযানকে কেন্দ্র করে তিনি দেশ ছেড়েছেন।

তবে এমপি বদির পক্ষের দাবি মাদক অভিযান কিংবা ভয়ে দেশ ত্যাগ করেননি বদি। এমপি সৌদি আরব যাওয়ার বিষয়টি ৬ মাস পূর্বের সিডিউল ছিল।