রাজশাহী সিটি নির্বাচন

প্রার্থী দিচ্ছে জাতীয় পার্টি-জামায়াত, ভাবনায় আওয়ামী লীগ-বিএনপি

  রাজশাহী ব্যুরো ০২ জুন ২০১৮, ২৩:৫২ | অনলাইন সংস্করণ

রাসিক
ফাইল ফটো

রাজশাহী সিটি কর্পোরেশন (রাসিক) নির্বাচনে অংশ নিতে রাজনৈতিক দলগুলো সক্রিয় হয়ে উঠেছে। প্রায় সব দলই তাদের সম্ভাব্য প্রার্থীর নাম ঘোষণা দিয়েছে। আওয়ামী লীগ থেকে নির্বাচন করছেন সাবেক মেয়র এএইচএম খায়রুজ্জামান লিটন। আর ঘোষণা না দিলেও বিএনপির সম্ভাব্য প্রার্থী বর্তমান মেয়র মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল বলে ধারণা করা হচ্ছে।

বর্তমান রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে আওয়ামী লীগের প্রধান রাজনৈতিক মিত্র জাতীয় পার্টি। আর বিএনপির পুরনো বন্ধু জামায়াত। মাসতিনেক আগে জামায়াতের রাজশাহী মহানগর সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসাইনকে তাদের প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিয়েছে। আর জাতীয় পার্টির মেয়র প্রার্থী রাজশাহী মহানগর জাপার সহসভাপতি এবং যুব সংহতির কেন্দ্রীয় যুগ্ম-সম্পাদক ওয়াসিউর রহমান দোলন।

এদিকে মিত্ররা প্রার্থী ঘোষণা করায় চ্যালেঞ্জের মুখে পড়েছে বড় দুই দল। শুরু হয়েছে নতুন রাজনৈতিক সমীকরণ। বড় দুই দলের নীতিনির্ধারকরা মেলাচ্ছেন নানা ধরনের হিসাব-নিকাশ। মিত্রদের প্রার্থীদের প্রতি ভোটারদের সমর্থন নিয়ে চুলচেরা বিশ্লেষণ করছেন আওয়ামী লীগ এবং বিএনপির নীতিনির্ধারকরা। আর এ কারণে আওয়ামী লীগ প্রার্থী লিটন এবং বিএনপি প্রার্থী বুলবুলের জাতীয় পার্টি ও জামায়াতের প্রার্থী নিয়ে মাথাব্যথা শুরু হয়েছে।

রাজশাহীসহ দেশের তিন সিটির নির্বাচনের তফসিল ঘোষণা করা হয়েছে ২৯ মে। এই তফসিল ১৩ জুন থেকে কার্যকর হবে। ভোট হবে ৩০ জুলাই। এই ভোটের জন্য আওয়ামী লীগের দীর্ঘদিনের অপেক্ষা। বছরখানেক প্রচার-প্রচারণার মধ্য দিয়ে ভোটের মাঠে রয়েছে আওয়ামী লীগ।

আর তফসিল ঘোষণার পর ২৯ মে রাতেই রাজশাহী মহানগর জাতীয় পার্টি জরুরি সভা হয়েছে। সিটি নির্বাচনে প্রার্থী দিতেই অনুষ্ঠিত হয় এই সভা। সভায় পার্টির নেতাকর্মীরা প্রাথমিকভাবে মহানগর জাপার সহসভাপতি ওয়াসিউর রহমান দোলনকে তাদের প্রার্থী হিসেবে মনোনীত করেছেন। তাকে জাপার মেয়র প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিতে পার্টির চেয়ারম্যান হুসেইন মুহম্মদ এরশাদের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে।

বিষয়টি নিশ্চিত করে মহানগর জাপার সাধারণ সম্পাদক খন্দকার মোস্তাফিজুর রহমান ডালিম জানান, তারা মেয়র পদে নিজেদের প্রার্থী দিতে চান। তাই প্রাথমিকভাবে দোলনকে মনোনীত করা হয়েছে। তাকে প্রার্থী হিসেবে ঘোষণা দিতে পার্টির চেয়ারম্যানের কাছে প্রস্তাব পাঠানো হয়েছে। ৪ জুন পার্টির হাইকমান্ড থেকে চ‚ড়ান্ত সিদ্ধান্ত আসবে বলে জানিয়েছেন মহানগর জাপার নেতারা।

ডালিম বলেন, একটা সময় রাজশাহীতে জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক অবস্থা কিছুটা খারাপ ছিল। এখন অনেক শক্তিশালী। নির্বাচন হলে আমাদের প্রার্থী অন্যদের বিপরীতে শক্তিশালী অবস্থানে থেকে লড়াই করবেন।

তবে জাতীয় পার্টি প্রার্থী দিলেও সেটাকে সমস্যা হিসেবে দেখছেন না মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ডাবলু সরকার। শেষ মুহূর্তে জাপা প্রার্থী প্রত্যাহার করবে বলে মনে করেন এ নেতা।

এদিকে তফসিল ঘোষণা হলেও বিএনপির প্রার্থী কে হচ্ছেন তা স্পষ্ট হয়নি। বর্তমান মেয়র ও মহানগর বিএনপির সভাপতি মোহাম্মদ মোসাদ্দেক হোসেন বুলবুল এবারো নির্বাচন করতে চান। বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ও সাবেক সিটি মেয়র মিজানুর রহমান মিনুও ভোট করবেন না বলে ঘোষণা দিয়েছেন।

তাই বুলবুল সমর্থকরা প্রার্থিতা নিয়ে খুব একটা চিন্তিত নন। তবে বিএনপির নেতৃত্বাধীন জোটের শরিক জামায়াতে ইসলামী ভাবাচ্ছে তাদের। নিবন্ধন হারানো জামায়াত প্রার্থীর নাম ঘোষণা করেছে। দলটির মহানগর সেক্রেটারি সিদ্দিক হোসাইন স্বতন্ত্র প্রার্থী হবেন। জামায়াতের প্রার্থী নিয়ে দুশ্চিন্তায় আছে বিএনপি।

অবশ্য ১২ মার্চ রাজশাহীতে দলটির কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত আমীর অধ্যাপক মুজিবুর রহমানের সঙ্গে সিদ্দিককেও গ্রেফতার করেছে পুলিশ। তবে রাজশাহীর জামায়াত নেতারা বলছেন, কারাগার থেকে ভোট করার ইতিহাস আছে। বিএনপির নীতিনির্ধারকদের আশঙ্কা, জামায়াতের সিদ্দিক হোসাইন প্রার্থী হলে জয় কঠিন হয়ে যেতে পারে।

ঘটনাপ্রবাহ : রাজশাহী-বরিশাল-সিলেট সিটি নির্বাচন ২০১৮

জেলার খবর
অনুসন্ধান করুন
  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
সব খবর

ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক : সাইফুল আলম, প্রকাশক : সালমা ইসলাম

প্রকাশক কর্তৃক ক-২৪৪ প্রগতি সরণি, কুড়িল (বিশ্বরোড), বারিধারা, ঢাকা-১২২৯ থেকে প্রকাশিত এবং যমুনা প্রিন্টিং এন্ড পাবলিশিং লিঃ থেকে মুদ্রিত।

পিএবিএক্স : ৯৮২৪০৫৪-৬১, রিপোর্টিং : ৯৮২৪০৭৩, বিজ্ঞাপন : ৯৮২৪০৬২, ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৩, সার্কুলেশন : ৯৮২৪০৭২। ফ্যাক্স : ৯৮২৪০৬৬ 

E-mail: [email protected]

© সর্বস্বত্ব স্বত্বাধিকার সংরক্ষিত ২০০০-২০১৮

converter
×